• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

অস্কারের মঞ্চে ভ্রান্তিবিলাস

Ema Watson
সেরা। ‘লা লা ল্যান্ড’ ছবির জন্য শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীর অস্কার হাতে এমা স্টোন। ছবি: রয়টার্স

চাইলেই যে কোনও দেশকে ‘নিষিদ্ধ’ করা যায় না, ফেডেরাল কোর্ট আগেই বলেছিল। এ বার জানান দিল অস্কারের মঞ্চও। সেরা বিদেশি ছবি হিসেবে ৮৯তম অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ড গেল ইরানের ঝুলিতেই। সেই ইরান, যে দেশের মানুষের আমেরিকায় ঢোকাই আটকে দিতে চান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

কিন্তু চাইলেই কি আর আটকানো যায়!

আটকানো গেল না ইরানি পরিচালক আসগর ফারহাদিকেও। বছর পাঁচেক আগেই একটা অস্কার পেয়েছিলেন ‘আ সেপারেশন’ ছবির জন্য। আর এ বার পুরস্কার এনে দিল ‘দ্য সেলসম্যান’। ট্রাম্পের অভিবাসন নীতির প্রতিবাদে ফারহাদি আগেই জানিয়েছিলেন, আসবেন না অস্কারে। তাঁর বার্তা পড়া করা হলো মঞ্চে— ‘‘আমার না-থাকাটা ইরান-সহ সাতটি দেশের মানুষকে সম্মান জানাতে।’’

জিতল ‘নিষিদ্ধ’ সিরিয়াও। যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটির উদ্ধারকর্মীদের নিয়ে বানানো ‘দ্য হোয়াইট হেলমেটস’ তথ্যচিত্রটিকে শর্ট সাবজেক্ট বিভাগে সেরা ঘোষণা করল অস্কার। আর সেই নাম ঘোষণা মাত্রই উঠে দাঁড়িয়ে যাঁরা কুর্নিশ জানালেন, তাঁদের অনেকেরই পোশাকে নীল ফিতে বাঁধা। ট্রাম্পের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের প্রতীক। 

অস্কার বলে কথা! গোড়া থেকেই তাই সব ছিল সাজানো-গোছানো। কিন্তু তাল কাটল শেষটায় এসে। অস্কারের মঞ্চে ভ্রান্তিবিলাস! বছর দু’য়েক আগে ঠিক যেমন হয়েছিল মিস ইউনিভার্সের মঞ্চে।

মঞ্চে তখন উপস্থাপক জিমি কিমেল। সেরা ছবির নাম ঘোষণা এই হলো বলে। খাম হাতে এগিয়ে এলেন বর্ষীয়ান অভিনেতা ওয়ারেন বেটি। খামটা খুললেন। মিনিট খানেক চুপ করে রইলেন। দর্শক-তারকারা ভাবলেন— নির্ঘাত সাসপেন্স তৈরি করছেন ভদ্রলোক। খানিক পরেই অবশ্য ঘোষণা হয়ে গেল— ‘সেরা ছবি এমা স্টোন অভিনীত লা লা ল্যান্ড।’ আবেগে আপ্লুত হয়ে ছবির গোটা টিম উঠে এল মঞ্চে। পরিচালক দামিয়েন শ্যাজেল ছোটখাটো বক্তৃতাও  দিয়ে ফেললেন। ঠিক তখনই আমতা-আমতা করে এগিয়ে এলেন উপস্থাপক। বললেন, ‘‘একটা ভুল হয়ে গিয়েছে। আসলে এ বারের সেরা ছবি ‘মুনলাইট’।’’

\

ডামাডোলের মধ্যেই বেরিয়ে এল আসল খামটা। সেরা ছবি হিসেবে মুনলাইটের নামই তো লেখা রয়েছে। আগের কার্ডটায় তা হলে কী ছিল? লেখা ছিল, সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার পেয়েছেন এমা স্টোন, লা লা ল্যান্ড ছবির জন্য। সেই কার্ডটাই ফের চলে এসেছিল উপস্থাপকের হাতে।

কী ভাবে হল এমনটা? কার দোষে? শেষমেশ ভুল স্বীকার করে ‘প্রাইস ওয়াটারহাউসকুপার’। ভোটগণনার পরে এরাই বিজয়ীর নাম চূড়ান্ত করে সিল করা খামে ভরে তা পাঠিয়ে দেয় অস্কার কর্তৃপক্ষের কাছে। সেখানেই কোথাও গণ্ডগোল হয়ে গিয়েছে। ক্ষমা চেয়েছে প্রাইস ওয়াটারহাউসকুপার। পুরস্কারের মঞ্চ থেকে ক্ষমা চেয়েছেন অস্কার কর্তৃপক্ষও।

  আরও পড়ুন: অস্কার মঞ্চে ওমের স্বীকৃতিতে আবেগে ভাসল পরিবার

দিনের শেষে অবশ্য লা লা ল্যান্ড-এর ঝুলি ভরেছে ভালই। ছ’টি অস্কার। তরুণতম পরিচালক হিসেবে বছর বত্রিশের দামিয়েনই এ বারের সেরা। মুনলাইট পেয়েছে তিনটি— সেরা ছবি, সেরা অনুপ্রাণিত চিত্রনাট্য এবং সেরা সহ-অভিনেতার পুরস্কার। ‘লায়ন’ ছবির জন্য ভারতীয় বংশোদ্ভূত দেব পটেলের নাম নিয়ে বেশ চর্চা হচ্ছিল। কিন্তু সেরা সহ-অভিনেতার শিরোপা জুটল না শেষমেশ।

আরও একটা আক্ষেপ রয়ে গেল। ইরানি পরিচালক না হয় স্বেচ্ছায় এলেন না। কিন্তু ‘হোয়াইট হেলমেটস’-এর সিরীয় চিত্রগ্রাহককে যে ঢুকতেই দিল না ট্রাম্পের আমেরিকা!

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন