Advertisement
১৫ জুলাই ২০২৪

তাপসী এ বার ‘হিরো’

‘পিঙ্ক’য়ের পর জীবন বদলে গেছে তাঁর। তাপসী পান্নু এখন ‘এম এস ধোনি’র পরিচালক নীরজ পাণ্ডের নতুন ছবির মুখ্য চরিত্রে। কুয়ালা লামপুর থেকে কথা বললেন সায়ন আচার্য-র সঙ্গে‘পিঙ্ক’য়ের পর জীবন বদলে গেছে তাঁর। তাপসী পান্নু এখন ‘এম এস ধোনি’র পরিচালক নীরজ পাণ্ডের নতুন ছবির মুখ্য চরিত্রে। কুয়ালা লামপুর থেকে কথা বললেন সায়ন আচার্য-র সঙ্গে

শেষ আপডেট: ১৯ অক্টোবর ২০১৬ ০০:০৩
Share: Save:

দক্ষিণ দিল্লির ফ্ল্যাটটায় আর থাকেন না মিনাল অরোরা। শহর ছেড়েছেন বেশ কয়েক মাস হল।

দুই বান্ধবী ফলক আর আন্দ্রেয়ার সঙ্গে মাঝে মধ্যে ফোনে কথা হলেও, দেখা হয়নি বহু দিন। যদিও নিয়মিত যোগাযোগ রয়েছে উকিল দীপক সেহগল — অমিতাভ বচ্চনের সঙ্গে।

সেই ডানপিটে মেয়েটা এখন ‘র’-য়ের এজেন্ট। এই মুহূর্তে মালয়েশিয়ায় একটা গুরুত্বপূর্ণ মিশনে ব্যস্ত।

ফোন ধরেন না। হোয়াটসঅ্যাপ-এও মেসেজ ‘আনরিড’ থেকে যায় ঘণ্টার পর ঘণ্টা।

তারপর হঠাৎ সাতসকালে, অজানা নম্বর থেকে ফোন করেন এক রহস্যময়ী নারী। ‘‘হ্যালো, মিনাল বলছি...’’

ভুল পড়লেন। আসলে, ফোনের ও প্রান্তে তাপসী পান্নু।

‘পিঙ্ক’য়ের মিনাল অরোরা এখন পরিচালক নীরজ পাণ্ডের ‘নাম শাবানা’র নামভূমিকায়। ‘র’ এজেন্ট, যিনি কিনা এই মুহূর্তে চষে বেড়াচ্ছেন কুয়ালা লামপুরের অলি-গলি। কখনও চুপিসারে ঢুকে যাচ্ছেন শহরের কুখ্যাত অঞ্চলে, আবার কখনও সরাসরি এনকাউন্টার।

তবে এই মিশনে তিনি একা নন। সঙ্গী এক সুপারস্টার। অক্ষয়কুমার।

চমকের শুরু এখানেই। এই মিশনে হিরো অক্ষয় নন, তাপসী স্বয়ং। শ্যুটিং শুরুর দিনই অক্ষয় ইউনিটের সবাইকে জানিয়ে দেন যে ‘নাম শাবানা’য় তাপসী-ই ক্যাপ্টেন, তিনি ক্যামিও মাত্র।

‘‘অক্ষয় সেটে এসে বলল, শোনো, এই মিশনের চিফ কিন্তু তুমি। আমি জাস্ট প্লেয়ার। তুমি যা বলবে, আমি তাই করব,’’ কুয়ালা লামপুর থেকে আনন্দplusকে বলছিলেন তাপসী।

বছর দেড়েক আগে যখন ‘বেবি’ করেছিলেন, তখনও ভাবেননি যে সেই ছবির সিকুয়েলের মুখ্য চরিত্রে থাকবেন তাপসী। আর, এখন তিনিই মালয়েশিয়ায় মিশন-ইন-চার্জ।

প্রশ্নটা করতেই মুচকি হাসলেন। ‘‘‘বেবি’তে আমার স্ক্রিন প্রেজেন্স ছিল মেরে কেটে কুড়ি মিনিট। তখন, সেটাই বড় ব্যাপার। আর এ বার, আমিই হিরো,’’ বলছিলেন তাপসী।

মাস চারেক আগে হঠাৎ যে দিন নীরজ পাণ্ডে জানালেন যে ‘নাম শাবানা’য় তিনিই শাবানা, বিশ্বাস হয়নি। এটাও ভাবতে পারেননি যে ‘পিঙ্ক’য়ের শ্যুটিং দেখে মুগ্ধ পরিচালক তাঁকেই লিড রোলটা দেবেন। ‘‘মিনাল অরোরা-র ওই চরিত্রটা না করলে তো এটা করাই হতো না। হয়ত সেই সাইড রোলেই পড়ে থাকতাম।’’

বলিউডে এটা তাঁর চতুর্থ ছবি। এবং, তার মধ্যে দুটোতে তিনিই লিড। এখনও বিশ্বাস হচ্ছে না তাপসীর। কথা বলতে বলতেই বিড়বিড় করলেন বার দুয়েক। শোনা গেল শুধু কয়েকটা শব্দ। ‘‘ইটস টু গুড টু বি ট্রু...’’

• অক্ষয়ের টিপস!

অ্যাকশন ফিল্ম পছন্দ করেন না। শেষ কবে অ্যাকশন ফিল্ম হল-য়ে গিয়ে দেখেছেন, মনে করতে পারলেন না। কিন্তু, সেই তাপসীই কিনা গত কয়েক মাস ধরে মার্শাল আর্টস শিখছেন ‘নাম শাবানা’-র জন্য। কখনও হেল্প করেছেন নিজের ট্রেনার, আবার কখনও বা অক্ষয়কুমার স্বয়ং।

‘‘এই চরিত্রটা আমার কমফর্ট জোনের বাইরে। এত রক্ত, গোলাগুলি আমার সহ্য হয় না। অথচ দেখুন, সেই আমি কি না এ বার ‘র’ এজেন্ট,’’ একটু হেসে বলছেন তাপসী।

মিনাল অরোরা ছিলেন দিল্লির এক সাধারণ মেয়ে। অথচ, শাবানা অনেক বেশি অ্যাগ্রেসিভ। এবং এই নতুন রোল করার আগে, তাঁকে তিনটে পরামর্শ দিয়েছেন অক্ষয় — এক, একদম ভয় পাবে না।

দুই, চরিত্রটাকে উপভোগ করবে।

তিন, তুমি যখন লিড, তখন তুমিই শেষ কথা। আশেপাশে বড় অভিনেতা থাকলেও, তাদের কথা শোনার দরকার নেই। জাস্ট ফলো ইয়োর মাইন্ড।

এবং গত এক মাস ধরে, এই কথাগুলো অক্ষরে অক্ষরে মানছেন তাপসী। ‘‘আমার কাছে অক্ষয়ই সত্যিকারের অ্যাকশন হিরো। এখনও প্রতিটা শট দেওয়ার আগে, ওর থেকেই টিপস নিচ্ছি। আরে বাবা, যতই ক্যামিও ক্যামিও করুক, ওই তো আসল হিরো,’’ হেসে বলছিলেন। মালয়েশিয়ায় শ্যুট করেছেন গত কয়েক দিন, এবং লম্বা শিডিউলেও, অক্ষয় নিয়ম করে প্রতিটা শট বুঝিয়েছেন এই ‘জুনিয়র’কে।

‘‘এটা আমার প্রথম অ্যাকশন ফিল্ম। সুতরাং, পুরোটাই অক্ষয় আর নীরজ স্যরের উপর।’’ ওরা না থাকলে তো একটা শটও ও-কে হতো না, বলছিলেন তিনি।

রিলিজ হওয়ার পরের দিনই ‘পিঙ্ক’ দেখেছিলেন অক্ষয়। পাঠিয়েছিলেন এসএমএসও। ‘‘অক্ষয় বলল যে, এত ভাল ছবি ও এর আগে দেখেনি। মহিলাদের লড়াই দেখে, হি ওয়াজ স্পিচলেস,’’ বলছিলেন তাপসী, যাঁকে ইউনিটের লোকজন নাকি সদ্য একটা নাম দিয়েছে — ধোনি!


কুয়ালা লামপুরে ‘নাম শাবানা’র সেটে অক্ষয়কুমার ও তাপসী পান্নু

• সেট-য়ের ‘এম এস ধোনি’!

সম্প্রতি মুম্বইয়ে নতুন ফ্ল্যাট কিনেছেন। আগে যে সোসাইটিতে থাকতেন, সেখানে খুব বেশি লোক তাঁকে চিনত না। তবে, নতুন ফ্ল্যাটে তাপসীকে দেখে যেচে আলাপ করতে এসেছেন বেশ কিছু বয়স্ক মানুষ।

কেউ তাঁকে আশীর্বাদ করেছেন, আবার কারও কারও গলায় আফশোস, ‘‘ইস, আমার যদি এ রকম একটা ছেলের বউ থাকত!’’

পর্দার মিনাল অরোরার অবশ্য ‘পিঙ্ক’ মুক্তির পর নতুন কোনও সিনেমা দেখা হয়নি। এবং, মুম্বই ফিরে প্রথম যে ছবিটা দেখতে চান, তার নাম ‘এম এস ধোনি: দ্য আনটোল্ড স্টোরি’।

নিজে মহেন্দ্র সিংহ ধোনির ফ্যান, কিন্তু তাও দেখা হয়নি ছবিটা। এবং, কুয়ালা লামপুরে পৌঁছে, সে কথা জানিয়েছেন পরিচালক নীরজ পাণ্ডেকেও। ‘‘ভেবেছিলাম নীরজ স্যর বলবেন, সে কী আমার সিনেমাটাই দেখোনি? অথচ উনিও আমার ‘পিঙ্ক’ পুরোটা দেখেননি এখনও। তাই ঠিক করেছি, মুম্বই ফিরেই একে অপরের ছবিগুলো দেখব,’’ বলছিলেন তাপসী।

তবে, শট চলাকালীন নাকি এক ‘হাইপার অ্যাক্টিভ’ এম এস ধোনি-কে খুঁজে পেয়েছেন নীরজ! ‘‘এটা যেহেতু আমার ফার্স্ট অ্যাকশন ছবি, সেই উত্তেজনার চোটে, একটু বেশি কাজ করে ফেলছি। সেই কারণেই, লোকজন মজা করে এ সব নাম দিয়েছে,’’ বলছিলেন তিনি।

মালয়েশিয়ায় শ্যুটিং চলবে ২৮ অক্টোবর পর্যন্ত। এবং নিজের লুক নিয়ে সতর্ক বয়স ঊনত্রিশের অভিনেত্রী।

• আপনিই মিস অরোরা?

আশা করেননি যে বিদেশেও এরকম ঘটনার সাক্ষী হতে হবে। কিন্তু দিন কয়েক আগে, কুয়ালা লামপুরের বিমানবন্দরের বাইরে ধরা পড়ে যান। এক ভারতীয় মহিলা সোজাসুজি জিজ্ঞেস করে বসেন, ‘‘আরে আপনি মিস অরোরা না?’’

প্রথমে এড়িয়ে গেলেও, পরে নিজের পরিচয় দেন তাপসী। চলে সেলফি তোলার পর্ব। ‘‘ভাবিনি এত লোক আমায় চিনবেন, তাও আবার বিদেশে। কয়েকজন তো আবার আমার দক্ষিণী ছবিও দেখেছেন,’’ বলছিলেন তিনি। গত এক মাসে যেমন প্রচুর শুভেচ্ছাবার্তা পেয়েছেন, তেমনই সোশ্যাল মিডিয়ায় জুটেছে প্রেম নিবেদনও। ‘‘এত দিন ইন্ডাস্ট্রিতে আছি, এরকম কিছু ফেস করিনি,’’ শট দিতে যাওয়ার আগে বলছিলেন।

গত কয়েক দিনে মা-বাবার সঙ্গে কথা হয়েছে কয়েক মিনিট। বন্ধু-বান্ধবদের সঙ্গে জাস্ট হোয়াটসঅ্যাপ। আর বয়ফ্রেন্ড, ব্যাডমিন্টন তারকা মাথায়স বো? ‘‘ও সব আবার কেন? বেশ তো ছবি নিয়ে কথা হচ্ছিল...,’’ বলেই মুচকি হাসি।

আসলে, রহস্য সমাধানে এসে হঠাৎই যেন বদলে গেছেন শাবানা।

ভুল লিখলাম, তাপসী পান্নু।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

Taapsee Pannu Naam Shabana Neeraj Pandey
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE