চন্দ্রকোনায় লক্ষ্মীপুর পঞ্চায়েতের চালতাবাঁধি ও ইন্দায় নতুন করে আন্ত্রিকে আক্রান্ত হলেন ২৫ জন। ফলে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১৫৫ জন। বৃহস্পতিবার আক্রান্তদের মধ্যে দশ জনকে ক্ষীরপাই গ্রামীণ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রামজীবনপুর প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি হয়েছেন ছ’জন। বাকিদেরও চিকিৎসা চলছে। জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক গিরীশচন্দ্র বেরা বলেন, “ওই এলাকায় দু’টি মেডিক্যাল ক্যাম্প খোলা হয়েছে। ক্যাম্পেই অসুস্থদের চিকিৎসা চলছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে । অনেকে সুস্থও হয়ে উঠছেন।’’

ব্লকের বিডিও সুরজিৎ ভড় বলেন, “সজলধারা প্রকল্পের পাম্প থেকেই দূষণ ছড়িয়েছে। দূষণের প্রমাণ মেলার পর থেকেই পাম্পটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। জল ব্যবহার করতে মাইকে প্রচারও চালানো হচ্ছে।’’ বিডিও বলেন, “ওই গ্রামে পানীয় জলের প্যাকেট বিলি করা হচ্ছে। ’’

স্থানীয় ও প্রশাসন সূত্রে খবর, মঙ্গলবার রাত থেকে ওই গ্রামে আন্ত্রিকের প্রকোপ শুরু হয়। প্রথমে আন্ত্রিকের প্রকোপ ছড়ানোর কারণ জানা যাচ্ছিল না। সজলধারা প্রকল্পের পাম্পের জলের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। বৃহস্পতিবার পরীক্ষার রিপোর্ট পাওয়ার পরই বিষয়টি পরিষ্কার হয়। মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক গিরীশচন্দ্র বেরা বলেন, “ওখানে নতুন করে যাতে আর কেউ অসুস্থ না হয় সে জন্য সমস্ত রকম ব্যবস্থাই নেওয়া হয়েছে। আপাতত পুরসভার বিলি করা প্যাকেটের জলই ব্যবহার করার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।”  বিডিও বলেন,  ‘‘দ্রুত ওই গ্রামে পানীয়  জলের জন্য পাম্প বসানো হবে।”