Advertisement
০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
Abhinandan Varthaman

দেহ ফিরেছিল আনন্দ, সৌরভের, ফিরেছিলেন নচিকেতা, অভিনন্দন ফিরছেন অক্ষত অবস্থায়

উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমান পাকিস্তানের হাতে বন্দি। গোটা দেশ প্রার্থনা করছে তাঁর ফিরে আসার। তবে অভিনন্দন প্রথম নয়। এর আগেও পাকিস্তান আরও কয়েকজন ভারতীয় সেনাকে গ্রেফতার করেছে। কেউ ফিরে এসেছেন। কারও দেহ ফিরে এসেছে নির্মম অত্যাচারের চিহ্ন নিয়ে। সেই ইতিহাসের দিকেই একবার চোখ বুলিয়ে নেওয়া যাক।

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি শেষ আপডেট: ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ ১৪:২৯
Share: Save:
০১ ১২
উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমান পাকিস্তানের হাতে বন্দি। গোটা দেশ প্রার্থনা করছে তাঁর ফিরে আসার। তবে অভিনন্দন প্রথম নয়। এর আগেও পাকিস্তান আরও কয়েকজন ভারতীয় সেনাকে গ্রেফতার করেছে। কেউ ফিরে এসেছেন। কারও দেহ ফিরে এসেছে নির্মম অত্যাচারের চিহ্ন নিয়ে। সেই ইতিহাসের দিকেই একবার চোখ বুলিয়ে নেওয়া যাক।

উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমান পাকিস্তানের হাতে বন্দি। গোটা দেশ প্রার্থনা করছে তাঁর ফিরে আসার। তবে অভিনন্দন প্রথম নয়। এর আগেও পাকিস্তান আরও কয়েকজন ভারতীয় সেনাকে গ্রেফতার করেছে। কেউ ফিরে এসেছেন। কারও দেহ ফিরে এসেছে নির্মম অত্যাচারের চিহ্ন নিয়ে। সেই ইতিহাসের দিকেই একবার চোখ বুলিয়ে নেওয়া যাক।

০২ ১২
বর্বরোচিত নির্যাতন করা হয়েছিল স্কোয়াড্রন লিডার অজয় আহুজার ক্ষেত্রে। সেই সময় প্রধানমন্ত্রী ছিলেন অটলবিহারী বাজপেয়ী।

বর্বরোচিত নির্যাতন করা হয়েছিল স্কোয়াড্রন লিডার অজয় আহুজার ক্ষেত্রে। সেই সময় প্রধানমন্ত্রী ছিলেন অটলবিহারী বাজপেয়ী।

০৩ ১২
কার্গিল যুদ্ধের সময় মিগ-২১ যুদ্ধবিমান নিয়ে একটি নিখোঁজ মিগ-২৭-কে খুঁজতে গিয়েছিলেন তিনি। ১৯৯৯ সালের ২৭ মে পাকিস্তানের একটি ‘সারফেস টু এয়ার মিসাইল’ তাঁর মিগ ২১-কে আঘাত করে। (প্রতীকী ছবি)

কার্গিল যুদ্ধের সময় মিগ-২১ যুদ্ধবিমান নিয়ে একটি নিখোঁজ মিগ-২৭-কে খুঁজতে গিয়েছিলেন তিনি। ১৯৯৯ সালের ২৭ মে পাকিস্তানের একটি ‘সারফেস টু এয়ার মিসাইল’ তাঁর মিগ ২১-কে আঘাত করে। (প্রতীকী ছবি)

০৪ ১২
অজয়কে বন্দি অবস্থায় হত্যা করে পাকবাহিনী। তিনি ইজেক্ট করে নামতে পারলেও তাঁকে গ্রেফতার করে পাকবাহিনী। পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক রেঞ্জ থেকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছিল অজয়কে।

অজয়কে বন্দি অবস্থায় হত্যা করে পাকবাহিনী। তিনি ইজেক্ট করে নামতে পারলেও তাঁকে গ্রেফতার করে পাকবাহিনী। পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক রেঞ্জ থেকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছিল অজয়কে।

০৫ ১২
সে দিন নিজের মিগ ২৭ নিয়ে উড়েছিলেন ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট কে নচিকেতা। কিন্তু তাঁর বিমানে আগুন ধরে যায়। তিনি ইজেক্ট করে বেরিয়ে আসতে পারলেও পাক সেনার নর্দার্ন ইনফ্যান্ট্রি বন্দি করে তাঁকে।

সে দিন নিজের মিগ ২৭ নিয়ে উড়েছিলেন ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট কে নচিকেতা। কিন্তু তাঁর বিমানে আগুন ধরে যায়। তিনি ইজেক্ট করে বেরিয়ে আসতে পারলেও পাক সেনার নর্দার্ন ইনফ্যান্ট্রি বন্দি করে তাঁকে।

০৬ ১২
শারীরিক অত্যাচার করা হয় নচিকেতাকে। পাক নাগরিকদের সামনে প্যারেডও করানো হয় তাঁকে।

শারীরিক অত্যাচার করা হয় নচিকেতাকে। পাক নাগরিকদের সামনে প্যারেডও করানো হয় তাঁকে।

০৭ ১২
রেড ক্রসের মাধ্যমে ফিরে আসেন ২৬ বছরের নচিকেতা। নচিকেতা ফিরে এসেছিলেন ৩ জুন, অর্থাৎ ধরা পড়ার আট দিন বাদে।

রেড ক্রসের মাধ্যমে ফিরে আসেন ২৬ বছরের নচিকেতা। নচিকেতা ফিরে এসেছিলেন ৩ জুন, অর্থাৎ ধরা পড়ার আট দিন বাদে।

০৮ ১২
এ বার আসা যাক ক্যাপ্টেন সৌরভ কালিয়ার কথায়।

এ বার আসা যাক ক্যাপ্টেন সৌরভ কালিয়ার কথায়।

০৯ ১২
কালিয়ার বয়স তখন ২২। তিনি কার্গিল হাইটসে ৪ জাঠ রেজিমেন্টে দায়িত্বরত ছিলেন। কাকসার এলাকায় পাঁচ জন সেনার সঙ্গে নজরদারি চালাচ্ছিলেন। নিয়ন্ত্রণরেখার এ পারেই ছিলেন, সেখানে অনুপ্রবেশকারীরা তাঁদের উপর হামলা চালায়।

কালিয়ার বয়স তখন ২২। তিনি কার্গিল হাইটসে ৪ জাঠ রেজিমেন্টে দায়িত্বরত ছিলেন। কাকসার এলাকায় পাঁচ জন সেনার সঙ্গে নজরদারি চালাচ্ছিলেন। নিয়ন্ত্রণরেখার এ পারেই ছিলেন, সেখানে অনুপ্রবেশকারীরা তাঁদের উপর হামলা চালায়।

১০ ১২
২২ দিন ধরে আটকে রাখা হয় তাঁকে। শুধু তাই নয়, হাত ও যৌনাঙ্গ কেটে, চোখ খুবলে, সিগারেটের ছ্যাঁকা দিয়ে অত্যাচার করা হয় তাঁকে, জানা গিয়েছিল ময়নাতদন্তে।

২২ দিন ধরে আটকে রাখা হয় তাঁকে। শুধু তাই নয়, হাত ও যৌনাঙ্গ কেটে, চোখ খুবলে, সিগারেটের ছ্যাঁকা দিয়ে অত্যাচার করা হয় তাঁকে, জানা গিয়েছিল ময়নাতদন্তে।

১১ ১২
পাকিস্তান সেনা ১৯৯৯ সালের ৯ জুন কালিয়ার ছিন্নবিচ্ছিন্ন দেহ ভারতকে ফিরিয়ে দেয়।

পাকিস্তান সেনা ১৯৯৯ সালের ৯ জুন কালিয়ার ছিন্নবিচ্ছিন্ন দেহ ভারতকে ফিরিয়ে দেয়।

১২ ১২
ইসলামাবাদের হেফাজতে থাকা ভারতীয় বায়ুসেনার উইং কম্যান্ডার অভিনন্দন বর্তমানকে সুস্থ শরীরে ফিরিয়ে দেওয়ার জোরালো দাবি জানালেন প্রয়াত প্রাক্তন পাক প্রধানমন্ত্রী জুলফিকার আলি ভুট্টোর নাতনি ফতিমা বেগম। দেশজুড়ে প্রার্থনা চলছে অভিনন্দনের জন্য।

ইসলামাবাদের হেফাজতে থাকা ভারতীয় বায়ুসেনার উইং কম্যান্ডার অভিনন্দন বর্তমানকে সুস্থ শরীরে ফিরিয়ে দেওয়ার জোরালো দাবি জানালেন প্রয়াত প্রাক্তন পাক প্রধানমন্ত্রী জুলফিকার আলি ভুট্টোর নাতনি ফতিমা বেগম। দেশজুড়ে প্রার্থনা চলছে অভিনন্দনের জন্য।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
আরও গ্যালারি

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.