Advertisement
২৪ জুলাই ২০২৪
Lok Sabha Election 2024

মুম্বই উত্তর-পশ্চিম কেন্দ্রের ফল বদলে গিয়েছে ইভিএম কারচুপিতে? মুখ খুললেন রিটার্নিং অফিসার

ইভিএম কারচুপি করে মুম্বই উত্তর-পশ্চিম কেন্দ্রে জয়ী হয়েছেন শিবসেনা (একনাথ শিন্ডে)-র প্রার্থী? ‘মিড-ডে’ একটি সংবাদপত্রে প্রকাশিত প্রতিবেদন ঘিরে শুরু হয় জোর জল্পনা।

—প্রতিনিধিত্বমূলক ছবি।

আনন্দবাজার অনলাইন ডেস্ক
কলকাতা শেষ আপডেট: ১৬ জুন ২০২৪ ২০:৪১
Share: Save:

ইভিএম কারচুপি করে মুম্বই উত্তর-পশ্চিম কেন্দ্রে জয়ী হয়েছেন শিবসেনা (একনাথ শিন্ডে)-র প্রার্থী? ‘মিড-ডে’ একটি সংবাদপত্রে প্রকাশিত প্রতিবেদন ঘিরে শুরু হয় জোর জল্পনা। শেষমেশ এই বিষয়ে মুখ খুললেন ওই কেন্দ্রের রিটার্নিং অফিসার বন্দনা সূর্যবংশী। রবিবার মুম্বইয়ে একটি সাংবাদিক বৈঠক করে ইভিএমে কারচুপির যাবতীয় অভিযোগ নস্যাৎ করে দিলেন তিনি।

মুম্বই উত্তর-পশ্চিম লোকসভা কেন্দ্রের জয়ী প্রার্থী, বিজেপির রবীন্দ্র ওয়েইকরের শ্যালক মঙ্গেশ পান্ডিলকরের বিরুদ্ধে নিয়ম ভেঙে ফোন নিয়ে গণনাকেন্দ্রে ঢোকার অভিযোগ উঠেছে। তা-ও যে সে ফোন নয়! সংবাদপত্রটির প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, ইভিএমকে ‘আনলক’ করার জন্য যে ওটিপি লাগে, তা ওই ফোন থেকেই নিয়ন্ত্রণ করা যায়। প্রতিবেদন অনুসারে, পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করে দেখছে এবং ফোনটি ফরেন্সিক পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। এই প্রতিবেদনটির ছবি তুলে রবিবার সকালেই নিজের এক্স (সাবেক টুইটার) হ্যান্ডলে পোস্ট করেন রাহুল গান্ধী। একই সঙ্গে কংগ্রেস নেতা লেখেন, ““ইভিএম ভারতের ব্ল্যাক বক্স। কেউ সেটিকে পরীক্ষা করে দেখতে পারে না। আমাদের নির্বাচনী প্রক্রিয়া নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ কিছু প্রশ্ন উঠেছে।” বিষয়টি নিয়ে সরব হয় শিবসেনা (উদ্ধব বালাসাহেব ঠাকরে) নেতারাও। প্রসঙ্গত, শিবসেনার উদ্ধব গোষ্ঠীর প্রার্থী অমোল গজানন কীর্তিকরকে মাত্র ৪৮ ভোটে হারিয়েছেন শিবসেনার রবীন্দ্র।

রিটার্নিং অফিসার বন্দনা ইভিএম কারচুপির যাবতীয় অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে দাবি করেন, কোনও যন্ত্রের দ্বারাই ইভিএমকে নিয়ন্ত্রণ করা যায় না। তাঁর কথায়, “ইভিএম খুলতে (আনলক করতে) মোবাইলে কোনও ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড বা ওটিপি লাগে না। কারণ ইভিএমে আগে থেকেও কোনও বিষয় নির্দিষ্ট রাখা যায় না। তাই তারযুক্ত কিংবা তারবিহীন কোনও যন্ত্র দিয়ে একে নিয়ন্ত্রণও করা যায় না।” মিথ্যা এবং মানহানিকর খবর প্রকাশ করার জন্য সংবাদপত্রটির বিরুদ্ধে নোটিস জারি করা হয়েছে বলে জানান তিনি। এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “একটি সংবাদপত্র সম্পূর্ণ মিথ্যা খবর ছড়িয়েছে। কিছু নেতা মিথ্যা ভাষ্য তৈরি করতে সংবাদপত্রটিকে ব্যবহার করেছেন।

প্রসঙ্গত, রবিবারই ইভিএম নিয়ে একটি টুইট করেন মাস্ক। টেসলা এবং এক্সের মালিক মাস্ক লেখেন, “আমাদের ইভিএম ত্যাগ করা উচিত। কারণ মানুষ কিংবা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (এআই)-র দ্বারা এটিকে প্রভাবিত (হ্যাক) করার সম্ভাবনা বেশি।” সেই বিতর্কেই নতুন মাত্রা যোগ করে উত্তর-পশ্চিম দিল্লি কেন্দ্রে ইভিএম কারচুপির অভিযোগ।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE