×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৩ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

প্রদ্যুম্নর স্কুলে ব্যাপক বিক্ষোভ, পুলিশের লাঠিচার্জ

সংবাদ সংস্থা
গুরুগ্রাম ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ১৬:০৫
রায়ান ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের অভিভাবকদের বিক্ষোভ। রবিবার। ছবি: পিটিআই।

রায়ান ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের অভিভাবকদের বিক্ষোভ। রবিবার। ছবি: পিটিআই।

ইতিমধ্যেই গ্রেফতার করা হয়েছে স্কুলবাসের অভিযুক্ত হেল্পার অশোক কুমারকে। সাসপেন্ড হয়েছেন প্রিন্সিপাল নীরজ বাত্রা। সরিয়ে দেওয়া হয়েছে স্কুলের সমস্ত নিরাপত্তা কর্মীকেও। কিন্তু, তাও ছাত্র খুনের ঘটনায় গুরুগ্রামের রায়ান ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের অভিভাবকদের ক্ষোভ এতটুকু কমেনি। রবিবারও স্কুলের সামনে বিক্ষোভ দেখান অভিভাবকরা।তাদের দাবি, সারা জীবন জেলে রাখতে হবে স্কুলের ডিরেক্টর রায়ান পিন্টোকে। এ দিন সকালেই স্কুলের পাশে একটি মদের দোকান পুড়িয়ে দিয়েছেন বিক্ষুব্ধ অভিভাবকরা। অন্য দিকে, বিক্ষোভরত অভিভাবকদের হটাতে পুলিশ লাঠি চালায় বলে অভিযোগ উঠল।

এ দিনই ছেলের মৃত্যুতে সিবিআই তদন্তের দাবি জানালেন প্রদ্যুম্নর বাবা বরুণ ঠাকুর। এই ঘটনার পিছনে বড় ষড়যন্ত্র থাকতে পারে বলে সন্দেহ তাঁর। বরুণ ঠাকুর বলেন, ‘‘অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সে অপরাধ স্বীকার করেছে বলে খবর। আমার মনে হয় আসলে সে দোষী নয়। কাউকে বাঁচাতে তাকে ফাঁসানো হচ্ছে। সিবিআই তদন্ত হলেই বিষয়টি স্পষ্ট হয়ে যাবে।’’ এ দিনই হরিয়ানার শিক্ষামন্ত্রী রামবিলাস শর্মা জানিয়েছেন, অভিযুক্ত অশোক কুমার এবং রায়ান ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আরও পড়ুন: এ বার দিল্লি, স্কুলে ৫ বছরের ছাত্রীকে ধর্ষণ

Advertisement



অলঙ্করণ: অর্ঘ্য মান্না

গত শুক্রবার, স্কুলের শৌচাগার থেকে গলার নলি কাটা অবস্থায় উদ্ধার হয়েছিল স্কুলের দ্বিতীয় শ্রেণির পড়ুয়া প্রদ্যুম্ন ঠাকুরের রক্তাক্ত দেহ। তার পরই থেকেই ফুঁসছে গুরুগ্রাম। শনিবারও দফায় দফায় স্কুলের সামনে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন অভিভাবকরা। এ দিন সকালে স্কুলের সামনে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করলে তাদের চলে যেতে বলে পুলিশ। পরিস্থিতি মোকাবিলায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয় স্কুলের সামনে। তখনই বিক্ষোভকারী হটাতে পুলিশ লাঠি চালায়। যদিও সেই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন গুরুগ্রামের পুলিশ কমিশনার সন্দীপ খিরওয়ার। তিনি জানিয়েছেন, পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে সব রকম চেষ্টা করছি আমরা। এ দিন অভিভাবকরা বিক্ষোভ দেখালে, তাদের সরিয়ে দেওয়া হয়। তবে এ জন্য কোনও লাঠিচার্জ করা হয়নি। পাশাপাশি, অভিযুক্ত অশোক কুমারের বিরুদ্ধে অপরাধমূলক কোনও রেকর্ড আছে কি না পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন খিরওয়ার। শনিবারই দিল্লিতে শাহদরা স্কুলে পাঁচ বছরের এক ছাত্রীকে ধর্ষণের দায়ে গ্রেফতার হয়েছে তার স্কুলেরই এক পিয়ন। অভিযোগ, ফাঁকা একটি ক্লাসরুমে তার উপরে অত্যাচার চালায় বিকাশ (৪০) নামে ওই ব্যক্তি।

Advertisement