Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৮ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

কাশ্মীর ভারতেরই, রাষ্ট্রপুঞ্জে জবাব সুষমার

সংবাদ সংস্থা
রাষ্ট্রপুঞ্জ ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৬ ০৩:২৮
রাষ্ট্রপুঞ্জে বিদেশমন্ত্রী। ছবি: রয়টার্স।

রাষ্ট্রপুঞ্জে বিদেশমন্ত্রী। ছবি: রয়টার্স।

কোঝিকোড়ে সুর বেঁধে দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেই সুরেই রাষ্ট্রপুঞ্জে আজ পাকিস্তানকে একঘরে করার ডাক দিলেন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। জানিয়ে দিলেন, পাকিস্তানকে কাশ্মীর দখলের স্বপ্ন ছাড়তে হবে। জম্মু-কাশ্মীর ভারতের অবিচ্ছেদ্য অংশ ছিল, থাকবেও।

গত বুধবারই রাষ্ট্রপুঞ্জে কাশ্মীরে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ তুলে ভারতকে আক্রমণ করেছিলেন পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ। নিহত জঙ্গি বুরহান ওয়ানিকে স্বাধীনতা সংগ্রামীর মর্যাদা দিয়েছিলেন। তার পরে ভারতের তরফে বলা হয়েছিল, পাকিস্তানের জঙ্গি-যোগেরই প্রমাণ দিলেন নওয়াজ! আর কোঝিকোড়ের বক্তৃতায় মোদী জানিয়ে দিয়েছিলেন, জঙ্গিদের লিখে দেওয়া বক্তৃতা পাঠ করেন যে রাষ্ট্রপ্রধান, তাঁর সঙ্গে আলোচনায় বসার কোনও অর্থই হয় না। সুষমাও এ দিন সেই পথেই হেঁটেছেন। সরাসরি পাকিস্তানের নাম করেননি বটে। কিন্তু ‘সন্ত্রাসে মদতদাতা’ বলে যে রাষ্ট্রের কড়া সমালোচনা করেছেন, সেটা যে ভারতের পড়শি দেশ, তা বুঝতে অসুবিধে হয়নি কারওরই। তিনি মনে করিয়ে দেন, আফগানিস্তানও রাষ্ট্রপুঞ্জে বলে গিয়েছে, জঙ্গিরা কোথায় থাকে তা সকলেই জানে! তাঁর দাবি, সন্ত্রাসকে লালন করা কিছু দেশের শৌখিনতা হয়ে দাঁড়িয়েছে। আন্তর্জাতিক মঞ্চে তাদের জায়গা থাকা উচিত নয়। বরং তাদের সরাসরি জঙ্গিবাদের মদতদাতা বলে চিহ্নিত করা দরকার। স্মরণীয়, পাকিস্তানকে এই তকমা দেওয়ার আর্জি নিয়ে ক’দিন আগে বিল এসেছে মার্কিন হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসে। সুষমা যেন সেই ভাবনাকেই তাতিয়ে দিতে চাইলেন।

এ দিন সুষমা সবার প্রথমে উন্নয়নে মোদী সরকারের সাফল্যের খতিয়ান দিয়েছেন। তার পরে দাবি করেছেন, এই উন্নয়নমুখী কর্মকাণ্ডের অন্যতম অন্তরায়ই হল সন্ত্রাস। পাক মদতে পুষ্ট উরি, পঠানকোট হামলাকে বিশ্ব সন্ত্রাসের সঙ্গে একাসনে বসিয়েছেন তিনি। টেনেছেন ৯/১১ থেকে হালের ঢাকা-ব্রাসেলস হামলার কথা। প্রশ্ন তুলেছেন, ‘‘জঙ্গিদের ব্যাঙ্ক নেই! অস্ত্র তৈরির কারখানা নেই! তা হলে তারা অস্ত্র, অর্থ পাচ্ছে কোথায়?’’

Advertisement

নওয়াজের বক্তৃতায় অনুপস্থিত ছিল উরি। এ দিন সুষমার বক্তৃতায় অনুপস্থিত কাশ্মীরের অভ্যন্তরীণ অশান্তির প্রসঙ্গ। কাশ্মীরে ভারত স্বাধীনতার কণ্ঠরোধ করছে, নিপীড়ন চালাচ্ছে বলে অভিযোগ করেছিলেন নওয়াজ। জবাবে সুষমা বললেন, ‘‘যাঁরা কাচের ঘরে বাস করেন তাঁদের অন্যকে পাথর ছোড়া উচিত নয়। বালুচিস্তানে আপনারা যা করছেন তা রাষ্ট্রীয় পীড়নের ভয়ঙ্করতম নজির।’’ তার পরই হুঁশিয়ারি, ‘‘পাকিস্তান ভাবছে জঙ্গি হামলা চালিয়ে কাশ্মীর কেড়ে নিতে পারবে। আমি বলছি, ওই স্বপ্ন দেখা ছেড়ে দাও।’’

ভারত-পাক আলোচনা ঠান্ডা ঘরে চলে যাওয়ার নালিশ নিয়েও ইসলামাবাদকে তুলোধনা করেন বিদেশমন্ত্রী। বলেন, ‘‘নওয়াজ শরিফ এই মঞ্চে বলে গিয়েছেন, ভারত এমন সব শর্ত দিচ্ছে যা মানা সম্ভব নয়। তিনি কোন শর্তের কথা বলছেন?’’ সুষমার বক্তব্য, ‘‘মোদীর শপথগ্রহণে শরিফকে আমন্ত্রণ করা হয়েছিল। লাহৌরে গিয়ে শরিফের সঙ্গে দেখা করে এসেছিলেন মোদী। এগুলি কোন শর্তের ভিত্তিতে করা হয়েছিল?’’

সুষমার দাবি, মোদী সরকার গত দু’বছরে পাকিস্তানের সঙ্গে অভূতপূর্ব মৈত্রীর পরিবেশ তৈরি করেছিল। কিন্তু তার বদলে পঠানকোট-উরির হামলা, বাহাদুর আলির মতো জঙ্গিকে পেল ভারত। সুষমার কথায়, ‘‘আমরা শর্ত চাপাচ্ছি, নাকি আপনারা মানসিকতা বদলাচ্ছেন?’’ এমন স্পষ্ট ভাষায় দেশের অবস্থানকে তুলে ধরার জন্য পরে সুষমাকে টুইট করে অভিনন্দন জানান প্রধানমন্ত্রী।

আরও পড়ুন

Advertisement