প্রসাধনী নির্মাতা সংস্থা জনসন অ্যান্ড জনসনের জনপ্রিয়তা বিশ্বজুড়ে। ট্যালকম পাউডারভিত্তিক নানা প্রোডাক্ট রয়েছে জনসন অ্যান্ড জনসন সংস্থার। তার মধ্যে রয়েছে জনসন বেবি পাউডারও। এক মহিলা অভিযোগ তুলেছিলেন এই বেবি পাউডার থেকেই মেসোথ্যালমিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন তিনি। বুধবার ক্যালিফোর্নিয়ার সুপিরিয়ার কোর্ট নির্দেশ দেয়, টেরি লিয়াভিট নামের ওই মহিলাকে ২ কোটি ৯০ লাখ ডলার বা ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ১৯৯ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হবে জনসন অ্যান্ড জনসন কোম্পানিকে। সুপিরিয়ার কোর্টের এই নির্দেশকে যুগান্তকারী বলেই মনে করছে বিশেষজ্ঞ মহল। দেশ জুড়ে ১৩০০০-এরও বেশি অভিযোগ জমা হয়েছিল এর বিরুদ্ধে। তাই এই রায় স্বাস্থ্যক্ষেত্রে নতুন দিশা দেখাতে পারে বলেই অনেকের মত।

জনসন অ্যান্ড জনসন অবশ্য তাদের প্রোডাক্ট থেকে ক্যানসার হয় এই আশঙ্কাকে সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছে। সংস্থার দাবি বিশ্বজুড়ে অসংখ্য মানুষের উপরে পরীক্ষা করে দেখা হয়েছে এটা সম্পূর্ণ সুরক্ষিত এবং অ্যাসবেস্টস-মুক্ত। শুনানির সময় তাঁদের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের স্বপক্ষে দেওয়া প্রমাণের বিরুদ্ধে আবেদন জানানোর কথাও বলেছেন তাঁরা।

গত বছরের ডিসেম্বরে চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে আসে জনসন অ্যান্ড জনসনের বিরুদ্ধে। বলা হয় যে, জনসন বেবি পাউডারে রয়েছে অ্যাসবেস্টসের মতো ক্ষতিকর খনিজ পদার্থ। উচ্চ তাপ শোষণ ক্ষমতা সম্পন্ন এই খনিজ পদার্থটি শরীরে ঢুকলে ক্যানসার হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। কিন্তু এই তথ্য লুকিয়েই নাকি বছরের পর বছর ধরে বেবি পাউডার বিক্রি করে গিয়েছে জনসন অ্যান্ড জনসন।

আরও পড়ুন: বিশ্বে প্রতি চার জনের এক জনের মৃত্যু দূষণে, বলছে রাষ্ট্রপুঞ্জের রিপোর্টে

আরও পড়ুন: মাসুদ নিয়ে চিনের ভেটোয় ক্ষুব্ধ আমেরিকা বিকল্প ব্যবস্থা নিতে চায়