মার্কিন পণ্যের উপর বর্ধিত শুল্ক নিয়ে ফের ভারতকে তীব্র আক্রমণ ডোনাল্ড ট্রাম্পের। সম্প্রতি বাণিজ্য ক্ষেত্রে ভারতকে দেওয়া বিশেষ সুযোগসুবিধা তুলে নেয় তাঁর প্রশাসন। তার পাল্টা হিসাবে মার্কিন পণ্যের উপর শুল্কের হার বাড়ায় ভারত। তা নিয়েই মঙ্গলবার ফের এক বার দিল্লিকে একহাত নেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। তাঁর হুমকি, ভারতের এই আচরণ বরদাস্ত করা হবে না।

এ দিন নিজের টুইটার হ্যান্ডলে ট্রাম্প লেখেন, ‘মার্কিন পণ্যের উপর শুল্ক বসিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে ফায়দা তুলেছে ভারত। এই আচরণ আর বরদাস্ত করা হবে না।’’ আগামী সপ্তাহে দিল্লিতে আসার কথা মার্কিন বাণিজ্য প্রতিনিধি দলের (ইউএসটিআর) সিনিয়র আধিকারিকদের। সেখানে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক হওয়ার কথা দু’দেশের। তার আগে ট্রাম্পের এই মন্তব্যে অস্বস্তি বাড়ল দিল্লির।

গত মাসে জাপানের ওসাকায় আয়োজিত জি-২০ শীর্ষ সম্মেলনের মাঝে একটি বৈঠকে মুখোমুখি হয়েছিলেন নরেন্দ্র মোদী এবং ডোনাল্ড ট্রাম্প। তার আগেও বর্ধিত শুল্ক নিয়ে ভারতকে হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। ‘‘ভারতের শুল্ক বৃদ্ধি মেনে নেওয়া যায় না এবং অবশ্যই তা প্রত্যাহার করা উচিত,’’— সে বার মন্তব্য করেছিলেন তিনি। যদিও অন্যান্য দেশের তুলনায় মার্কিন পণ্যের উপর চাপানো শুল্ক হার বেশি নয় বলে সেই সময় দাবি করে ভারত। তার পরই এ দিন ফের ভারতকে কার্যত হুমকি দিলেন ট্রাম্প।

আরও পড়ুন: গ্রিন কার্ড পেতে কমতে পারে প্রতীক্ষার মেয়াদ! সিদ্ধান্ত নেবে মার্কিন কংগ্রেস​

আরও পড়ুন: কর্নাটকে জট কাটেনি, পদত্যাগী ৮ বিধায়কের ইস্তফা বৈধ নয়, রাজ্যপালকে চিঠি দিলেন স্পিকার​

ক্ষমতায় আসার পর বাণিজ্য ক্ষেত্রে ভারতকে বিশেষ সুযোগসুবিধা বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে সম্প্রতি তা চরম আকার নেয়। উন্নয়নশীল দেশ হিসাবে এত দিন মার্কিন বাজারে অনেক ছাড় পেত ভারত। কিছু পণ্যের শুল্ক দিতেও হত না। কিন্তু গত ১ জুন থেকে সেই সুবিধা তুলে নিয়ে ভারতীয় পণ্যের উপর শুল্ক চাপিয়ে দেয় ওয়াশিংটন। তার পাল্টা হিসাবে ২৮টি মার্কিন পণ্যের উপর শুল্ক বাড়িয়ে  দেয় ভারত। শুরু থেকেই ভারতের এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে আসছেন ট্রাম্প।

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের YouTube Channel - এ।