সমকামী বিয়েকে বৈধ বলে ঘোষণা করল জার্মানির পার্লামেন্ট। শুক্রবার গ্রীষ্মকালীন বিরতির আগে জার্মান পার্লামেন্টে এই বিল পাস হয়ে গেল। যদিও সমকামী বিয়ের বিরুদ্ধে ভোট দিয়েছেন স্বয়ং জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মের্কেল। পার্লামেন্টের রায় তাঁর মতের বিরুদ্ধে গেলেও তা মেনে নিয়ে মের্কেল বলেছেন, ‘‘আমি আশা রাখছি আজকের ভোট শুধুমাত্র একে অপরের প্রতি শ্রদ্ধা এবং প্রত্যেকের স্বতন্ত্র অবস্থানকেই স্পষ্ট করল না, সমাজের কাছে শান্তি ও সম্প্রীতির বার্তাও পৌঁছল।’’

জার্মান পার্লামেন্টে সমলিঙ্গের মানুষদের মধ্যে বিয়ের অধিকার নিয়ে ভোটাভুটিতে ভাল ব্যবধানে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায় বিষয়টি। জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মার্কেল প্রথম থেকেই সমকামী বিয়ের বিরোধিতা করে আসছিলেন। কিন্তু সাধারণ নির্বাচনের আগে বিষয়টি নিয়ে ভোট গ্রহণের সম্মতি দেন। এর পরই ভোট অনুষ্ঠিত হয়।

আরও পড়ুন, পোপের ঘনিষ্ঠ যৌন হেনস্থায় অভিযুক্ত

ভোটের ফল ঘোষণার পরে দেখা যায়, বিলের পক্ষে ভোট পড়েছে ৩৯৩টি এবং বিপক্ষে ২২৬টি। ভোট দান থেকে বিরত থেকেছেন চার জন। সোশ্যাল ডেমোক্রাটদের সংসদীয় নেতা থমাস অপারম্যানের কথায়, ‘‘যদি সংবিধান এই বিষয়টিকে নিশ্চিত করে, তা হলে দেশের মধ্যে সবাই তাঁদের ইচ্ছে মতো জীবন কাটাতে পারবেন।’’ সমকামী বিয়ে বৈধতা পেলে সমাজের কিছু মানুষ উপকৃত হবেন বলেও মনে করেন তিনি। নতুন পাস হওয়া আইন অনুসারে, এখন থেকে সমকামীরা বিয়ের পূর্ণ অধিকার পেলেন। একই সঙ্গে তারা সন্তানও দত্তক নিতে পারবেন।

অধিকার অর্জনের উল্লাস। সমকামী বিয়ে স্বীকৃতি পাওয়ার পর। ছবি: এএফপি।

২০০১ সালে সমকামীদের বিয়ের রীতিকে প্রথম আইনত স্বীকৃতি দেয় নেদারল্যান্ডস। বর্তমানে পাশ্চাত্যের বিভিন্ন দেশে সমকামী বিয়ে আইন অনুযায়ী স্বীকৃত।