পলাতক নীরব মোদীকে প্রত্যপর্ণের অনুরোধ জানিয়ে ব্রিটেনকে নথি পাঠিয়েছে লন্ডনের ভারতীয় দূতাবাস। লন্ডনের সরকারি সূত্রে এই খবর জানা গিয়েছে। পঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্ক (পিএনবি) দুর্নীতিতে অভিযুক্ত নীরব।

গত সপ্তাহেই রাজ্যসভায় একটি প্রশ্নের উত্তরে বিদেশ প্রতিমন্ত্রী ভি কে সিংহও লিখিত ভাবে জানিয়েছেন, নীরবের প্রত্যপর্ণের জন্য ব্রিটেনকে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

ব্রিটেন এখন নীরবের বিরুদ্ধে  প্রত্যপর্ণ পরোয়ানা জারি করার আগে  ভারতের এই অনুরোধ খতিয়ে দেখবে। নীরব অবস্থান নিয়ে অবশ্য ধোঁয়াশা রয়েছে। তবে জুন মাসেই ব্রিটেনের ক্রাউন প্রসিকিউশন সার্ভিস (সিপিসি) ভারতকে আশ্বাস দিয়েছিল, যাবতীয় অনিশ্চিয়তা সত্ত্বেও, নীরবের প্রত্যপর্ণ নিয়ে পদক্ষেপ করা হবে।

জালিয়াতিতে অভিযুক্ত নীরবের মামা মেহুল চোক্সী এখন অ্যান্টিগার নাগরিক। অ্যান্টিগার সরকার দাবি করেছে, ভারতের বিদেশ মন্ত্রক ‘সন্তোষজনক’ শংসাপত্র দেওয়ার পরেই চোক্সীকে অ্যান্টিগার নাগরিকত্ব দেওয়া হয়েছে। কিন্তু নীরব কোথায়? জানা গিয়েছে, চলতি বছরের শুরুতে ভারতীয় পাসপোর্ট নিয়ে লন্ডনে পা রাখেন নীরব। ১৯ ফেব্রুয়ারি ভারত ব্রিটেনকে জানায়, নীরবের পাসপোর্ট বাতিল করা হয়েছে। ব্রিটেন জানিয়েছিল, পর্যটনের নথি নিয়ে ব্রিটেনে ঢুকেছিলেন নীরব। কিন্ত তাঁর দেশ ছাড়া নিয়ে কোনও তথ্য নেই।

এ দিনই নীরবের সংস্থার সিনিয়র এগ্‌জিকিউটিভ বিপুল অম্বানীকে জামিন দিয়েছে মুম্বইয়ের বিশেষ সিবিআই আদালত। পিএনবি কাণ্ডে গত ফেব্রুয়ারিতে বিপুলকে গ্রেফতার করেছিল সিবিআই।