লক্ষ্য সব বয়সের মানুষের মধ্যে বজরংবলীর মাহাত্ম্য প্রচার। সে জন্য ছ’টি ভিন্ন মিউজিক্যাল কম্পোজিশনে হনুমান চালিশা বানিয়েছেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত দক্ষিণ আফ্রিকার গায়িকা বন্দনা নারান। ছয়টি ভিন্ন সুরের হনুমান চালিশা সম্বলিত সেই সিডি সম্প্রতি প্রকাশিত হয়েছে। সিডি প্রকাশিত হওয়ার পর থেকেই প্রশংসার বন্যায় ভেসে গিয়েছেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত সেই গায়িকা।

গত রবিবার দক্ষিণ আফ্রিকার জোহানেসবার্গ শহরের লেনাশিয়াতে অনুষ্ঠিত হয়েছিল ‘ইউনাইটেড হনুমান চালিশা’ অনুষ্ঠান। এই অনুষ্ঠানে টানা ১২ ঘণ্টা ধরে চলে বিভিন্ন ভক্তিমূলক গানের অনুষ্ঠান। সেই অনুষ্ঠানেই ভিন্ন ভিন্ন সুরে হনুমান চালিশা গেয়েছেন বন্দনা। সেখানে উপস্থিত বিভিন্ন বয়সের দর্শকরা হাততালি দিয়ে অভিবাদন জানিয়েছেন তাঁর এই প্রচেষ্টাকে।

বিভিন্ন সুরে হনুমান চালিশা গাওয়া নিয়ে সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে বন্দনা নারান বলেছেন, ‘‘একটি সিডির মাধ্যমেই বিভিন্ন বয়সের মানুষের মধ্যে হনুমান চালিশা পৌঁছে দিতে চাই আমি।’’ কিন্তু হনুমান চালিশার শ্লোক বিভিন্ন সুরে কেন? এ ব্যাপারে গায়িকা বলেছেন, ‘‘এক জন বয়স্ক ব্যক্তির যে ধরনের সুর পছন্দ, যুবক-যুবতীর পছন্দ অন্যরকম হতেই পারে। সেই জন্যই হনুমার চালিশার স্তোত্রগুলি ভিন্ন সুরে উপস্থাপন করা হয়েছে।’’

প্রসঙ্গত ভারতীয় সমাজে হনুমান চালিশা ভীষণ জনপ্রিয়। রামচরিত মানসের রচয়িতা গোস্বামী তুলসীদাস হনুমান চালিশা রচনা করেছিলেন। এর ৪০টি স্তোত্রের মাধ্যমে মূলত হনুমানের বন্দনা করা হয়েছে। 

 

আরও পড়ুন: বউয়ের উপর রাগ করে পাস্তা দিয়েই পিসি বানিয়ে ফেললেন ইনি