মহাকাশে একের পর এক অভিযান চালিয়ে আন্তর্জাতিক মহলের কুর্নিশ আদায় করে নিয়েছে ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ইসরো। কিন্তু, সেই তুলনায় অনেকটাই পিছিয়ে পড়েছে পাকিস্তানের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা। ষাটের দশকের শুরুতে তার পথ চলা শুরু হয়েছিল। তার ৫৮ বছর পার করে এ বার মহাকাশে প্রথম মানব অভিযান চালানোর কথা ঘোষণা করল ইসলামাবাদ।

রবিবার পাক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী চৌধরি ফাওয়াদ হুসেন জানিয়েছেন, ২০২২ সালেই চিনের সাহায্য নিয়ে মহাকাশে প্রথম মানব অভিযান চালানো হবে। ২০২০ সাল থেকেই মহাকাশচারী বাছাইয়ের প্রক্রিয়াও শুরু করবে তারা। তিনি আরও জানান, প্রাথমিক ভাবে ৫০ জনকে বাছাই করা হবে। তার পর ২০২২ সালের মধ্যে তাঁদের মধ্যে থেকে ২৫ জনকে বেছে নেওয়া হবে। তাঁদের মধ্যে থেকে এক জনকেই মহাকাশে পাঠানো হবে বলেও জানিয়েছেন ফাওয়াদ। মহাকাশচারী বেছে নেওয়ার ক্ষেত্রে ইসলামাবাদ বিমান বাহিনীর সদস্যদের দিকেই নজর দিচ্ছে। এ সব তথ্য দেওয়ার মধ্যেই পাক মন্ত্রী জানিয়েছেন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ক্ষেত্রে ভারতের সঙ্গে হাত মিলিয়ে কাজ করলে তা ফলপ্রসূ হবে। সম্প্রতি ভারতের চন্দ্র অভিযান নিয়ে উৎসাহ ও আগ্রহ তৈরি হয়েছিল ওয়াঘার ওপারেও।

পাক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রীর দাবি, তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নের পর, এশিয়ায় পাকিস্তানই দ্বিতীয় দেশ যারা ১৯৬৩ সালেই মহাকাশে রকেট পাঠিয়েছিল। গত বছর চিনা লঞ্চ ভেহিকেলের সাহায্যে মহাকাশে দুটি কৃত্রিম উপগ্রহ পাঠানো হয় বলেও জানিয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন: ভারত মহাসাগরে সাত চিনা যুদ্ধজাহাজ, নৌবাহিনীর নজরদার বিমানে ধরা পড়ল ছবি

আরও পড়ুন: প্রয়োজনে আমি নিজে যাব, জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে মামলায় বললেন প্রধান বিচারপতি