• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

মেক্সিকো সীমান্তে দেওয়াল তুলতে ১০০ কোটি ডলার মঞ্জুর পেন্টাগনের

wall
মেক্সিকো সীমান্ত বরাবর দেওয়াল তুলতে চান ডোনাল্ড ট্রাম্প। ছবি: রয়টার্স।

Advertisement

মেক্সিকো সীমান্তে দেওয়াল উঠছেই। তার জন্য ১০০ কোটি ডলার মঞ্জুর করল পেন্টাগন। মার্কিন কংগ্রেসকে তারা জানিয়েছে, খুব শীঘ্র দেওয়ালের একটি অংশের কাজ শুরু হবে। তার জন্য ১০০ কোটি ডলার মঞ্জুর করেছে তারা। খুব শীঘ্র সেই টাকা পৌঁছে যাবে প্রতিরক্ষা দফতরের ইঞ্জিনিয়ারদের হাতে।

কোন খাতে কত খরচ, তা নিয়ে সোমবার জাতীয় নিরাপত্তা দফতরের সচিব কার্স্টজেন নিয়েলসনকে চিঠি দেন মার্কিন প্রতিরক্ষা দফতরের ভারপ্রাপ্ত সচিব প্যাট্রিক শ্যানাহান। তাতে তিনি জানান, যুক্তরাষ্ট্রীয় শাসনব্যবস্থায় আন্তর্জাতিক সীমান্তে মাদক পাচার-সহ সেই সংক্রান্ত অপরাধ রুখতে সবরকম পদক্ষেপ করার অধিকার রয়েছে প্রতিরক্ষা দফতরের। সেই মতো মেক্সিকো সীমান্তে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করতে এই উদ্যোগ।

তবে কংক্রিটের দেওয়াল নয়, চিঠিতে প্যাট্রিক শ্যানাহান যে বর্ণনা দিয়েছেন, তাতে আপাতত ৯২ কিলোমিটার দীর্ঘ, ১৮ ফুট উঁচু কাঁটাতারের বেড়া তোলা হবে। সেই নির্মাণকার্য শুরু করতেই ১০০ কোটি ডলার মঞ্জুর করা হয়েছে বলে জানিয়েছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন। সীমান্ত সংলগ্ন রাস্তার উন্নয়ন এবং সেখানে আলো বসানোর কাজেও ওই টাকা ব্যবহার করা হবে।

আরও পড়ুন: ভোটের কাজ থেকে অপসারিত, দায়িত্বে রত্না, অদ্ভুত ঔদাসীন্য দেখানোর চেষ্টায় শোভন​

আরও পড়ুন: কেমন কাজ করল মোদী সরকার? সমীক্ষা বলল, প্রায় সব ক্ষেত্রে মাঝারিরও নীচে নম্বর দিচ্ছেন মানুষ​

২০১৬-য় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনী প্রচারের সময়ই ক্ষমতায় এলে মেক্সিকো সীমান্তে দেওয়াল তুলবেন বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। শুরু থেকেই যার বিরোধিতা করে এসেছেন ডেমোক্র্যাটরা। দীর্ঘ বাদানুবাদের পর এ বছর ফেব্রুয়ারি মাসে রিপাবলিকানদের সঙ্গে বাজেট আলোচনায় বসেন তাঁরা। সেখানে দেওয়ালের জন্য ট্রাম্প ৮০০ কোটি ডলার বরাদ্দ করতে চাইলে আপত্তি তোলে কংগ্রেস। যার পর সকলকে টপকে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেন ডোনাল্ড ট্রাম্প, যাতে সরাসরি পেন্টাগনের নির্মাণ এবং মাদক বাজেয়াপ্ত খাতের টাকায় দেওয়াল তৈরির টাকা জোগানো যায়।

মার্কিন কংগ্রেস জরুরি অবস্থার বিরোধিতা করতে গেলে ১৫ মার্চ ভিটো প্রয়োগ করে তা আটকে দেন ট্রাম্প। ভোটাভুটির মাধ্যমে ট্রাম্পের ভিটো বাতিল করতে নতুন করে সচেষ্ট হচ্ছেন ডেমোক্র্যাটরা। তবে তার জন্য হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভদের দুই তৃতীয়াংশের সমর্থন প্রয়োজন তাঁদের। কোনওভাবে সেখানে উতরে গেলেও, দ্বিতীয় দফার ভোটে রিপাবলিকানদের দখলে থাকা সেনেটেরও সমর্থন পেতে হবে।

(আমেরিকা থেকে চিন, ব্রিকস থেকে সার্ক- সব গুরুত্বপূর্ণ আন্তর্জাতিক খবর জানতে চোখ রাখুন আমাদের আন্তর্জাতিক বিভাগে।)

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন