• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ভোট পিছোনোর দাবি, ঢাকার রাস্তায় ছাত্রেরা

Vote
প্রতীকী ছবি।

Advertisement

এ মাসের ৩০ তারিখে ঢাকা উত্তর ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের তারিখ ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। ২৯ ও ৩০-এ বাংলাদেশের স্কুলে স্কুলে সরস্বতী পুজো। অর্থাৎ, পুজোর মধ্যেই স্কুলগুলিতে বুথ তৈরি করে ভোট নেওয়া হবে। ভোটের দিন পিছনোর দাবি জানিয়েছেন সংখ্যালঘু সংগঠনের নেতাদের পাশাপাশি নির্বাচনের প্রার্থীরাও। কিন্তু কমিশন অনড়। এই পরিস্থিতিতে মঙ্গলবার থেকে পর পর দু’দিন প্রায় ৬ ঘণ্টা করে রাজধানীর প্রাণকেন্দ্র শাহবাগের মোড় দখল করে বিক্ষোভ দেখালেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা।

সংখ্যালঘুদের বৃহত্তম সংগঠন হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রানা দাশগুপ্ত বলেন, ‘‘দুর্গাপুজোর মধ্যে রংপুরে উপনির্বাচন করিয়েছে এই কমিশন। তার পরে সরস্বতী পুজোয় এই নির্বাচন। রংপুরে নির্বাচন বয়কট করেছেন সংখ্যালঘুরা। এ বারও অনাকাঙ্ক্ষিত কিছু ঘটলে তার দায় কমিশনের। আমরা হতাশ। আদালতে রিট পিটিশন করেও সুবিচার মেলেনি।’’

এর মধ্যেই মঙ্গলবার সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা নির্বাচন পিছনোর দাবিতে শাহবাগে রাস্তায় বসে পড়েন। আজ নির্বাচন কমিশন দফতর অভিযানের কর্মসূচি ঘোষণা করে সন্ধ্যায় তাঁরা উঠে যান। পুলিশ এ দিন অভিযান আটকে দেওয়ায় ছাত্ররা ফের শাহবাগে অবস্থান শুরু করেন। প্রায় ছ’ঘণ্টা পরে তাঁরা ওঠেন। সন্ধ্যায় কমিশন সাংবাদিক বৈঠকে ফের জানায়, ৩০ তারিখেই ভোট হচ্ছে। কাল থেকে আন্দোলনের নতুন কর্মসূচি নিয়েছেন ছাত্ররা। 

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন