বিখ্যাত মার্কিন সুরা প্রস্তুতকারক সংস্থার মালকিন, ধনকুবের ক্লেয়ার ব্রঁফম্যানকে যৌন পাচার চক্রে জড়িত থাকায় দোষী সাব্যস্ত করল আমেরিকার আদালত। ব্যক্তিগত স্বার্থসিদ্ধির জন্য অনুপ্রবেশকারীদের আশ্রয় দেওয়া ও ভুয়ো পরিচয়পত্র তৈরি করে অসাধু উদ্দেশ্য চরিতার্থ করা— এই দুই মামলায় দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন ক্লেয়ার। তাঁর ২১ থেকে ২৭ মাসের কারাদণ্ড হতে পারে। তবে মনে করা হচ্ছে মোটা টাকা জরিমানা দিয়েই রেহাই পাবেন তিনি। ব্রুকলিনের আদালতে দাঁড়িয়ে ক্লেয়ার বলেছেন, ‘‘নিজের কাজের জন্য আমি অনুতপ্ত। মানুষকে সাহায্য করতে চেয়েছিলাম। স্বীকার করছি আমি ভুল করেছি।’’

কানাডার প্রাক্তন ব্যবসায়ী এডগার ব্রঁফম্যানের মেয়ে ক্লেয়ার।  যৌন পাচার চক্রে জড়িত থাকায় ক্লেয়ার-সহ এই নিয়ে মোট ছ’জন প্রভাবশালীকে দোষী সাব্যস্ত করল আদালত। তাঁরা প্রত্যেকেই ‘নেস্কিয়াম সেক্স কাল্ট কেস’-এ জড়িত। নেস্কিয়াম  নামক সংস্থাটির দাবি, তারা ব্যক্তিগত ও পেশাদার জীবনে উন্নতির জন্য প্রশিক্ষণ দেয়। কিন্তু তার তলাতেই চলত যৌন চক্র। সেখানে যৌনদাসী করে রাখার রেওয়াজও রয়েছে সংস্থার কর্মীদের। এ ছাড়া ভুয়ো ভিসা দিয়ে আমেরিকার বাইরে থেকে লোক নিয়ে এসে শ্রমিক হিসেবে ব্যবহার করা হত। সংস্থার মালিকের বিরুদ্ধেও কর্মীদের যৌন নির্যাতন করার অভিযোগ সামনে এসেছে। সব জানার পরেও এই সংস্থার এগজিকিউটিভ বোর্ডে ছিলেন ক্লেয়ার।