মির্জাপুর থেকে দিল্লি যাওয়ার জন্য মগধ এক্সপ্রেসে উঠেছিলেন তরুণী। অভিযোগ, চলন্ত ট্রেনের মধ্যেই তাঁকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন নিরাপাত্তার দায়িত্বে থাকা জওয়ানরা। তরুণীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে দুই জওয়ানকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: 

ধর্ষণ নিয়ে মন্তব্য, বিতর্কে কিরণ

ঘরোয়া হিংসায় শীর্ষে বাংলাই

অভিযোগকারী ওই প্রথম বর্ষের ছাত্রীটি তাঁর লিখিত বয়ানে জানিয়েছেন, দিন দুয়েক আগে মগধ এক্সপ্রেসের এস ৬ নম্বর কামরায় ছিলেন তিনি। গভীর রাতে ট্রেন কানপুর স্টেশন ছাড়ার পরই, তাঁর উপর চড়াও হয় ওই জওয়ানরা। তরুণীর অভিযোগ, কানপুর থেকে এটাওয়া পর্যন্ত তাঁর শ্লীলতাহানি করে তারা। চলে বেধড়ক মারধর।

তরুণীর অভিযোগ, তাঁকে এস ৬ থেকে এস ৮ বগিতে টেনে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে অভিযুক্তরা। তখনই সুযোগ পেয়ে ১০০ নম্বরে ফোন করে সাহায্য চান তরুণী। এটাওয়া স্টেশনে ট্রেন থামলে ঘটনাস্থলে আসে জিআরপি। দুই জওয়ানকে গ্রেফতার করা হয়। তবে, বাকিরা পালিয়ে যায়। তাঁদের খোঁজ চালাচ্ছে পুলিশ। যদিও, পুলিশের জেরায় ধৃতরা সব অভিযোগ অস্বীকার করেছে।