• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

কর্তব্যরত চিকিৎসককে ধমক দিয়ে বিতর্কে অখিলেশ

akhilesh
হাসপাতালে আহতদের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছেন অখিলেশ যাদব। ছবি: টুইটার।

কর্তব্যরত এক চিকিৎসকের সঙ্গে দুর্ব্যবহারের অভিযোগ উঠল সমাজবাদী পার্টির নেতা অখিলেশ যাদবের বিরুদ্ধে। কনৌজে বাস দুর্ঘটনায় আহতদের সঙ্গে সোমবার ছিবরামুর এরটি সরকারি হাসপাতালে গিয়েছিলেন অখিলেশ। বিভিন্ন ওয়ার্ড ঘুরে ঘুরে আহত ও তাঁদের পরিবারের সঙ্গে কথা বলছিলেন। অভিযোগ, সেই সময়ই এক চিকিৎসকের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন। ভিডিয়োতে ধরা পড়েছে সেই ঘটনা।

অখিলেশ যখন আহতদের সঙ্গে কথা বলছিলেন, সে সময় তাঁদের পরিবারেরই কয়েক জন সদস্য অভিযোগ জানান, তাঁরা কোনও ক্ষতিপূরণ পাননি। ওই ওয়ার্ডেই উপস্থিত ছিলেন এক মেডিক্যাল অফিসার। তিনি কোনও কিছু একটা বলার চেষ্টা করেন। ভিডিয়োতে দেখা যায়, তখনই অখিলেশ তাঁকে ধমকে ওঠেন। বলেন, “আপনি সরকারি কর্মচারি। সরকারের পক্ষ নিয়ে আপনি কেন বলতে এসেছেন?” এখানেই থামেননি অখিলেশ। ওই চিকিত্সককে আরএসএস এবং বিজেপির লোক বলেও ভর্ত্সনা করেন। অখিলেশ বলেন, “আপনি আরএসএস বা বিজেপির লোক হতে পারেন। আহতরা কী বলছেন সে ব্যাপারে আপনার ব্যখ্যা শুনতে চাই না। এখনই এখান থেকে বেরিয়ে যান!”

সিএএ-কে অসাংবিধানিক ঘোষণা করা হোক, সুপ্রিম কোর্টে মামলা কেরল সরকারের আরও পড়ুন

অভিযোগ, চিকিৎসক আরও কিছু বলার চেষ্টা করলে বেজায় চটে গিয়ে অখিলেশ তাঁকে ধমকের সুরে বলেন, “আপনি অধস্তন আধিকারিক। খুব ছোট মাপের কর্মী। ওঁরা কী বলছেন সেটা আপনার কাছ থেকে শুনব না।”

ঠিক কী হয়েছিল?

 

ডিএস মিশ্র নামে ওই চিকিৎসকের দাবি, আহতরা যখন অখিলেশের কাছে দাবি করছিলেন তাঁরা কোনও চেক পাননি। তিনি তখন সেই বিষয়টি শুধরে দেওয়া চেষ্টা করেন। চিকিৎসক বলেন, “অ্যাটেন্ডিং অফিসার হিসেবে আমি ওখানেই দাঁড়িয়ে ছিলাম। যখন এক আহতের পরিবার ক্ষতিপূরণ না পাওয়ার দাবি করছিল, সেটাকে শুধরে দিয়ে বলেছিলাম ওঁরা চেক পেয়েছেন। তখনই অখিলেশ আমাকে ওই ওয়ার্ড ছেড়ে বেরিয়ে যেতে বলেন।”  

এক জন জনপ্রতিনিধি হয়ে অখিলেশ কী ভাবে কর্তব্যরত চিকিত্সকের সঙ্গে এমন ব্যবহার করতে পারলেন তা নিয়ে প্রবল সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

গত ১১ জানুয়ারি যাত্রিবোঝাই একটি বাসের সঙ্গে ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। তার পরই আগুন ধরে যায় বাসটিতে। সেই দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয় কমপক্ষে ২০ জনের। আহতদের সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। মৃতদের পরিবারের জন্য রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে ২ লক্ষ টাকা এবং আহতদের জন্য ৫০ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করা হয়। অন্য দিকে, মৃতদের পরিবারকে ২০ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা ঘোষণা করে সমাজবাদী পার্টি।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন