অটল প্রয়াণের একমাস পূর্ণ হচ্ছে ১৬ সেপ্টেম্বর। আর নরেন্দ্র মোদীর জন্মদিন ১৭ সেপ্টেম্বর। দুয়ে মিলে প্রচার করবে বিজেপি।

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, কারণ তিনটি। এক, রাফাল থেকে নোটবন্দি—একের পর এক ধাক্কায় ব্যর্থতা প্রকট হচ্ছে মোদীর। এই পরিস্থিতিতে অটলবিহারী বাজপেয়ীকে আঁকড়ে ধরতে চাইছেন মোদী। যে অটলের গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে বিরোধী শিবিরেও। দুই, ভোটের আগে একজোট হওয়া বিরোধীদের মোকাবিলা করতে অনেক বেশি করে দলিত ও ওবিসি তাস খেলতে হচ্ছে মোদীকে। ফলে ক্ষোভ বাড়ছে বিজেপির উচ্চবর্ণের ভোটব্যাঙ্কে। অটলকে সামনে রেখে সেই উচ্চবর্ণকে হাতে রাখতে চাইছে দল। তিন, সামনের নির্বাচনে ‘মোদী কেয়ার’-সহ বিভিন্ন প্রকল্প গরিবদের ভোট পেতে সহায়ক হবে বলে মনে করছেন মোদী-অমিত শাহ। অটল ও মোদীকে একসূত্রে বেঁধে কর্মীদের এই প্রকল্প প্রচারে নামিয়ে দিচ্ছে দল।

সে কারণে বিজেপি সভাপতি আজ নিজে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে জানালেন দলের কর্মসূচি। ১৬ সেপ্টেম্বর দেশের ৪ হাজার জায়গায় অটলের কবিতা শোনানো হবে। কবিতা পাঠের আসর হবে। সব লোকসভা ও বিধানসভা কেন্দ্রে এ অনুষ্ঠান হবে। পরদিনই মোদীর জন্মদিন। মোদী ক্ষমতায় আসার পর থেকে যেদিনটি পালন হয় ‘সেবা দিবস’ হিসাবে। এবার ১৭ সেপ্টেম্বর থেকে দীনদয়াল উপাধ্যায়ের জন্মতিথি ২৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত পালিত হবে ‘সেবা সপ্তাহ’। অমিতের ঘোষণা, গোটা সপ্তাহ জুড়ে দেশের সব বস্তিতে মেডিক্যাল ক্যাম্প হবে। প্রচার হবে ‘মোদী কেয়ার’-এর, সাফাই অভিযান হবে। এজন্য ২০ হাজার জায়গা চিহ্নিত করা হয়েছে।