উত্তরপ্রদেশে পারলেও ঝাড়খণ্ডে পারল না বিজেপি। বিরোধী জোটে চিড় ধরিয়েও রাজ্যসভার দ্বিতীয় আসনটি দখল করতে পারল না তারা। মাত্র ০.০১ ভোট বেশি পেয়ে বিজেপি প্রার্থী প্রদীপ সানথালিয়াকে হারিয়ে জিতে গেলেন কংগ্রেস প্রার্থী ধীরজ সাহু।

আর এই ফল ঘোষণাকে কেন্দ্র করে ঝাড়খণ্ড বিধানসভায় গভীর রাত পর্যন্ত চলল তুমুল টানাপড়েন। যে উত্তেজনার সঙ্গে গত রবিবারের ভারত-বাংলাদেশ টি-টোয়েন্টি ম্যাচের তুলনা করছেন অনেকেই।

ঝাড়খণ্ডে এ দফায় রাজ্যসভার দু’টি আসনের জন্য ভোট হল। জিততে হলে এক জন প্রার্থীর প্রয়োজন ছিল ২৭টি প্রথম পছন্দের ভোট। বিজেপি ও তার শরিক দলগুলির মোট ভোট ছিল ৫০। কংগ্রেস-সহ বিরোধীদের ৩০। ফলে স্বাভাবিক নিয়মে এক জন বিজেপি এবং এক জন কংগ্রেস প্রার্থীর জেতার কথা। কিন্তু উত্তরপ্রদেশের মতো এখানেও বিরোধী ভাঙানোর খেলায় নামে বিজেপি। বিরোধী শিবিরের দুই বিধায়ক ক্রস ভোটিং করেন। বাতিল হয়ে যায় দু’জনের ভোট। ফলে কংগ্রেস প্রার্থী পান ২৬টি ভোট। অন্য দিকে, বিজেপির প্রথম পছন্দের প্রার্থী সমীর ওঁরাও ২৭টি ভোট পেয়ে জিতে যান। দ্বিতীয় পছন্দের প্রার্থী প্রদীপ সানথালিয়া পান ২৫টি ভোট।

দ্বিতীয় আসনে কেউই ২৭টি ভোট না পাওয়ায় গণনা গড়ায় দ্বিতীয় পছন্দের ভোটে। কিন্তু দেখা যায় প্রদীপ সানথালিয়া মাত্র তিনটি পছন্দের ভোট, যার মোট মূল্য .৯৯। ফলে সব মিলিয়ে তাঁর ভোটের পরিমাণ দাঁড়ায় ২৫.৯৯। কংগ্রেস প্রার্থী ধীরজ সাহু জিতে যান ০.০১ ভোট বেশি পেয়ে। কিন্তু বিজেপির আপত্তিতে প্রায় রাত সাড়ে বারোটা পর্যন্ত শংসাপত্র হাতে পাননি ধীরজ। তার পর তাঁকে জয়ী ঘোষণা করা হলেও আদালতে যাওয়ার হুমকি দিয়েছে বিজেপি।