আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকে সিবিএসই-র পাঠ্যক্রমে অন্তর্ভুক্ত হতে চলেছে আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স(এআই)। এ বছরের এপ্রিল থেকে নবম শ্রেণিতে চালু হচ্ছে বিষয়টি। বোর্ড সূত্রে জানানো হয়েছে, ছাত্রছাত্রীদের ঐচ্ছিক ষষ্ঠ বিষয় হিসেবেই থাকবে এআই।

বোর্ড আরও জানিয়েছে, এআই ছাড়াও আরও দুটি নতুন বিষয় চালু করা হবে। সেই দুটি বিষয় হল— ‘আর্লি চাইল্ডহুড কেয়ার এডুকেশন’ এবং ‘যোগ’। আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স-এর  ‘জিও স্ট্র্যাটেজিক’-এর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকার কথা বিবেচনা করেই এই সিলেবাসে এই পাঠ্যক্রমে অন্তর্ভুক্ত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলেও বোর্ড সূত্রে খবর।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির দুনিয়ায় আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে। এমনকি স্মার্টফোনগুলোতেও এআই ব্যবহার করা হচ্ছে। দৈনন্দিন জীবনে এআই আগামী কত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে চলেছে সে সম্পর্কে ছাত্রছাত্রীদের ওয়াকিবহাল করতে এই বিষয়টি অত্যন্ত জরুরি বলেই মনে করছে বোর্ড। এক সার্কুলার জারি করে সিবিএসই জানিয়েছে, নতুন প্রজন্মের ছাত্রদের মধ্যে বিভিন্ন বিষয়ে পারদর্শী করে তুলতেই স্কুলগুলোতে এআই চালু করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।”

আরও পড়ুন: প্রদর্শন বন্ধ করা যাবে না, ‘ভবিষ্যতের ভূত’ নিয়ে নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের

আরও পড়ুন:  দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯ 

বোর্ড এটাও জানিয়েছে, যোগ এবং আর্লি চাইল্ডহুড কেয়ার এডুকেশন বিষয় দুটি সিনিয়র সেকেন্ডারি লেভেলে চালু করা হবে। দশম শ্রেণির ছাত্রছাত্রীরা পাঁচটি আবশ্যিক বিষয়ের সঙ্গে ষষ্ঠ বিষয় হিসেবে একটি ‘স্কিল পেপার’কেও বেছে নিতে পারবে। যদি কোনও পড়ুয়া তিনটি ইলেক্টিভ বিষয়ের (বিজ্ঞান, গণিত ও সোশাল সায়েন্স) মধ্যে একটিতে অকৃতকার্য হয়, তা হলে ওই স্কিল সাবজেক্টটি তার পরিবর্ত হিসেবে নিতে পারবে। সিনিয়র সেকেন্ডারি লেভেলে ছাত্রছাত্রীরা যাতে অন্তত একটা ‘স্কিল’ বিষয় বেছে নেয় স্কুলগুলিকে সে দিকটাও দেখতে বলেছে বোর্ড। ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে স্কিল বিষয়টি চালু করার জন্য স্কুলগুলিকে আবেদনপত্রও পাঠাতে বলেছে বোর্ড।