• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

জয়ার বাড়িতে ঢুকতে বাধা দীপাকে, ধুন্ধুমার

Deepa Jayakumar
পুলিশি-ঘেরাটোপ: জয়ললিতার পোয়েজ গার্ডেনের বাড়ির সামনে দীপা জয়কুমার। রবিবার। ছবি: পিটিআই।

Advertisement

মালিকানা নিয়ে বিতর্ক ছিলই। এ বার জয়ললিতার চেন্নাইয়ের পোয়েজ গার্ডেনের বাড়ি নিয়ে বেঁধে গেল ধুন্ধুমার।

আজ তামিলনাড়ুর প্রয়াত মুখ্যমন্ত্রী জয়ললিতার বাড়ি ‘বেদ নিলয়ম’-এ ঢুকতে পারলেন না জয়ার ভাইঝি দীপা জয়কুমার। তাঁর অভিযোগ, শশিকলার ভাইপো তথা এডিএমকে আম্মা শিবিরের সাধারণ সম্পাদক টিটিভি দিনকরনের সমর্থকরাই তাঁকে ঢুকতে বাধা দেন। আটকায় পুলিশও। শুরু হয় ধাক্কাধাক্কি। উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে পোয়েজ গার্ডেন চত্বরে। বিক্ষোভ দেখান দীপার সমর্থকরা। যদিও আম্মা শিবিরের দাবি, জোর করে পোয়েজ গার্ডেনের বাড়িতে ঢুকতে চাইছিলেন দীপা। তাঁর কাছে বাড়িতে ঢোকার কোনও অনুমতি ছিল না।

সব মিলিয়ে রবিবাসরীয় নাটকের সাক্ষী থাকল ‘বেদ নিলয়ম’।

আম্মার মৃত্যুর পরে ওই বাড়িটি ছিল তাঁর সহযোগী শশিকলার দখলে। প্রায় ১০০ কোটি টাকার বাড়িটির মালিকানা নিয়ে তাঁর সঙ্গে বিবাদ চলছে জয়ার আত্মীয়দের। দুর্নীতি মামলায় শশিকলা এখন জেলে। বাড়িটিও এখন তালাবন্ধ। ভাঙন ধরেছে এডিএমকে-তেও। পিসির স্বাভাবিক মৃত্যু হয়নি বলেও অভিযোগ করেছেন দীপা। তাঁর অভিযোগের তির শশিকলার দিকেই। শশিকলাকে ‘শিক্ষা’ দিতে গড়েছেন রাজনৈতিক মঞ্চও।

আরও পড়ুন: অনশনে শিবরাজ, অহিংস আন্দোলনে চাষিরা

সেই দীপার দাবি, এ দিন একটি অনুষ্ঠান উপলক্ষে তাঁকে পোয়েজ গার্ডেনের বাড়িতে নিমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন তাঁর ভাই দীপক। তিনি যখন পৌঁছন, তখন দীপক ‘বেদ নিলয়ম’ চত্বরেই ছিলেন। বাড়ির সামনে রাখা জয়ার ছবিতে মালা দেন দীপা। তার পরে বাড়ির ভিতরে ঢুকতে যান তিনি। কিন্তু তাঁকে সেই অনুমতি দেয়নি পুলিশ। এর পরেই শুরু হয় গোলমাল। ধাক্কাধাক্কি-ধস্তাধস্তি। দীপা-অনুগামীদের বিক্ষোভ। জখম হয়েছেন বেশ কয়েক জন সাংবাদিকও। দীপার অভিযোগ, ‘‘দিনকরনের নির্দেশেই পুলিশ তাঁকে বাধা দিয়েছে। ওই বাড়ির ভিতরে নিশ্চয় কিছু চলছে। তাই আমাকে ঢুকতে দেওয়া হলো না।’’ জয়ার ওই বাড়ির উপর শুধু মাত্র তাঁর অধিকার রয়েছে বলেও দাবি করেন দীপা। দীপককে বেরিয়ে আসতে হবে বলেও দাবি করেন তিনি।

ছিলেন দীপার স্বামী মাধবনও। দীপা বলেন, ‘‘একা একা এখানে আসতে ভয় পাচ্ছিলাম। সেই কারণেই স্বামীকে সঙ্গে এনেছি।’’ মাধবনেরও অভিযোগ, শশিকলার নিয়োগ করা ‘মাসলম্যান’-দের হামলায় আমাদের প্রাণও যেতে পারতো। হামলাকারীদের কাউকে কি চিনতে পেরেছেন? সাংবাদিকদের এই প্রশ্নের জবাবে দীপা জানান, শশিকলার আত্মীয় প্রিয়া এবং রাজ্জামাকে তিনি চিনতে পেরেছেন।

সূত্রের খবর, দীপকের সঙ্গেও কথা কাটাকাটিতে জড়িয়ে পড়েছিলেন দীপা। একে অপরকে ধাক্কাও দেন।

দীপকও স্থানীয় একটি চ্যানেলকে জানান, তিনিই দীপাকে ‘বেদ নিলয়ম’-এ আসতে বলেছিলেন। ‘‘কিন্তু কেউ দীপাকে আক্রমণও করেনি, ধাক্কাও দেয়নি’’, দাবি তাঁর। ‘প্রতারণা’র জন্য  দীপকের বিরুদ্ধে মামলা করার হুমকি দিয়েছেন দীপা।

এডিএমকে-র আম্মা শিবিরের দাবি, তালাবন্ধ ওই বাড়িতে ঢোকার জন্য দীপার কাছে অনুমতিপত্র ছিল না। তাই পুলিশ তাঁকে বাধা দিয়েছে। দীপা-অনুগামীদের দাবি, তাঁদের নেত্রীকে হেনস্থা করতেই বিরাট পুলিশ বাহিনী দিয়ে পোয়েজ গার্ডেনের বাড়িটি ঘিরে রাখা হয়েছিল।

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন