একটি রেস্তরাঁয় মহিলাদের পোশাক নিয়ে অসংবেদনশীল মন্তব্য করার অভিযোগ উঠল এক মাঝবয়েসি মহিলার বিরুদ্ধে। শুধু তাই নয়, ছোট পোশাক পরা মহিলাদের ধর্ষণ করতে রেস্তরাঁয় পুরুষকর্মীদের উৎসাহও দিয়েছেন বলে অভিযোগ ওই মহিলার বিরুদ্ধে। এই মন্তব্য করার পর ক্ষমা চাওয়ার পরিবর্তে নিজের বক্তব্যে অনড়ও থাকলেন তিনি। তাঁর সেই কথোপকথন ভাইরাল হল সোশ্যাল মিডিয়ায়।

ঘটনাস্থল দেশের রাজধানী। একটি রেস্তরাঁয় কেনাকাটা করছিলেন মাঝবয়েসি এক মহিলা। তাঁর আশেপাশে কেনাকাটা করছিলেন কমবয়েসি কয়েক জন ছেলেমেয়ে। তাঁদের অনেকের পরনেই ছিল মিনিস্কার্ট। তাঁদের দেখেহঠাৎই উত্তেজিত হয়ে পড়েন ওই মহিলা। অভিযোগ, মিনি স্কার্ট পরা মেয়েদের উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, “এত ছোট পোশাক পরে এসেছো, তোমাদের লজ্জা হওয়া উচিত।’’ ঘটনাস্থলে উপস্থিত অনেকেই তাঁর মন্তব্যের প্রতিবাদ করলে তিনি বলেন, ‘‘তোমাদের ধর্ষণ করা উচিত।’’ এখানেই না থেমেরেস্তরাঁয় উপস্থিত পুরুষ কর্মীদের উদ্দেশে তাঁর পরামর্শ, ‘‘ছোট পোশাক পরা এই ধরনের মেয়ে সামনে পেলেই আপনাদের ধর্ষণ করা উচিত।’’

এই মন্তব্যের পরই আশপাশ থেকে প্রতিবাদে সামিল হন আরও অনেকে। ক্ষমা চাইতে হবে বলে তাঁকে ঘিরে ধরেন অনেকেই। যদিও নিজের বক্তব্যে অনড় থাকেন তিনি। ক্ষমা চাওয়ার পরিবর্তে তিনি বলেন, আপনাদের যা ইচ্ছে করে নিন। যাঁরা প্রতিবাদ জানাচ্ছিলেন, তাঁদের বিরুদ্ধে পুলিশে যাওয়ার হুমকিও দেন তিনি।

আরও পড়ুন: গগৈ তদন্তে ‘না’ যৌন হেনস্থার অভিযোগ আনা তরুণীর

পুরো ঘটনাটি ক্যামেরাবন্দি করে রাখেন উপস্থিত মহিলারা। আপলোড হওয়া মাত্রই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে সেই ভিডিয়ো। মহিলার এই অসংবেদনশীল মন্তব্যের প্রতিবাদে সামিল হয়েছেন নেটিজেনদের একাংশ। এই প্রতিবেদন লেখার সময় প্রায় সাড়ে চার লক্ষবার দেখা হয়েছে ভিডিয়োটি এবং ১২,১৫৮ বার শেয়ার হয়েছে সেই ভিডিয়ো।

আরও পড়ুন: ২০৫ কিমি বেগে গোপালপুর-চাঁদবালির উপর আছড়ে পড়তে পারে ফণী