প্রজাতন্ত্র দিবসের দিন সন্ধ্যায় ওয়েবসাইটে বার্তাটি চোখে পড়াতে আঁতকে উঠছিলেন ছাত্রছাত্রীরা। কারণ, দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের ওয়েবসাইট হ্যাক করে তাতে নিজেদের পরিচয় লিখে দিয়েছিল বাংলাদেশি হ্যাকাররা। বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতেই তদন্ত শুরু করেছে দিল্লি পুলিশের সাইবার দমন শাখা। কী ভাবে এমন ঘটনা ঘটল তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে খবর, ওয়েবসাইট খুললেই নজরে আসছিল হ্যাকারদের বার্তাটি। অ্যাডমিনদের উদ্দেশে সেখানে লেখা, ‘তোমাদের সিস্টেম এখন আর সুরক্ষিত নয়। দ্রুত মেরামত কর। না হলে আমরা আবার এখানে ঢুকে পড়ব। আমরা বাংলাদেশি।’

এর পরই বিষয়টি পুলিশে জানানো হয়। যদিও হ্যাকাররা কোনও তথ্য চুরি করতে পারেনি বলেই বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে খবর। এমনকী, ওয়েবসাইটির কোনও ক্ষতি হয়নি বলেও জানানো হয়েছে। পাশাপাশি, আতঙ্কিত হওয়ার মতো কিছু নেই বলে দাবি করা হয়েছে দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয় এবং পুলিশের তরফে। বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত এ কে আহুজা ওয়েবসাইট হ্যাক হওয়ার বিষয়টি মেনে নিয়েছেন। তাঁর কথায়, ‘‘কী ভাবে এমন ঘটল তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের সব তথ্য সুরক্ষিত রয়েছে।’’

আরও পড়ুন: আধার গেরো, দিল্লিতে রেশন পেলেন না ২৬ হাজার মানুষ

গত বছরের এপ্রিলে দেশের বেশ কয়েকটি সরকারি প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইট পাক হ্যাকারদের কবলে পড়ে। সেই তালিকায় ছিল দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়, আইআইটি দিল্লি, আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয় এবং বেনারস হিন্দু বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট। হ্যাকাররা ওই ওয়েবসাইটগুলিতে ‘পাকিস্তান জিন্দাবাদ’ লেখার পাশাপাশি ভারত সরকার ও সেনাবাহিনীর নামে গালিগালাজও পোস্ট করেছিল।

আরও পড়ুন: পুলিশের গুলিতে খতম পঞ্জাবের মোস্ট ওয়ান্টেড গ্যাংস্টার