চলে গেলেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী সন্তোষমোহন দেব। বিগত কয়েক দিন ধরে শিলচরের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি। নিউমোনিয়ার চিকিৎসা চলছিল তাঁর। বুধবার সকাল ৬টা নাগাদ শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন প্রবীণ এই কংগ্রেস নেতা। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮৩ বছর। সাংসদ-কন্যা সুস্মিতা দেব-সহ তিন কন্যা ও স্ত্রী বিধিকা দেবকে রেখে গেলেন তিনি। বুধবার সকালে সন্তোষবাবুর মৃত্যুর খবর টুইটারে প্রথম প্রকাশ করেন কন্যা সুস্মিতা।

আরও পড়ুন: খতম শীর্ষ লস্কর নেতা দুজানা

১৯৮০ সালে প্রথম লোকসভা নির্বাচনে জয়ী হয়েছিলেন সন্তোষ। এরপর কংগ্রেসের টিকিটে সাত বার সাংসদ হয়েছেন সন্তোষমোহন। এর মধ্যে পাঁচ বার শিলচর থেকে এবং দু’বার ত্রিপুরা থেকে জয়ী হয়েছিলেন তিনি। ১৯৮৬-৮৮ সালের মধ্যে যোগাযোগ মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী ছিলেন। ১৯৮৮ সালে এক বছরের জন্য স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর কুর্সিতেও বসেছিলেন সন্তোষমোহন। ১৯৯১ সালে নরসিংহ রাওয়ের আমলে ইস্পাতমন্ত্রী ছিলেন তিনি। মনমোহন সিংহের ইউপিএ-১ সরকারের সময় ভারী শিল্প দফতরের দায়িত্বে ছিলেন সন্তোষমোহন।

আরও পড়ুন: আদিবাসী স্বার্থরক্ষায় আশ্বাস মুখ্যমন্ত্রীর

তাঁর মৃত্যুতে গভীর শোকপ্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়, কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গাঁধী-সহ একাধিক রাজনৈতিক নেতা।

সুস্মিতা দেবের সেই টুইট: