• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

নিশানায় সইদও, দিল্লির সওয়াল শুরু রাষ্ট্রপুঞ্জে

Hafiz Muhammad Saeed
হাফিজ সইদ

জইশ-ই-মহম্মদ প্রধান মাসুদ আজহারকে পঠানকোট হামলায় চার্জশিট দিয়েছে এনআইএ। অন্য দিকে বালুচিস্তানের কোয়েটায় ভারত-বিরোধী জিগির তুলছে লস্কর-ই-তইবা প্রধান হাফিজ সইদ। এই পরিস্থিতিতে ওই জঙ্গি নেতাদের কার্যকলাপ ও পাক মদতপুষ্ট সন্ত্রাস নিয়ে রাষ্ট্রপুঞ্জে ফের সওয়াল শুরু করল ভারত।

আগামিকাল কোয়েটায় একটি জনসভা করার কথা হাফিজ সইদের। গোয়েন্দা সূত্রে খবর, তাতে ভারত-বিরোধী সুর চড়াবে লস্কর প্রধান। বালুচিস্তান থেকে যুবকদের নিজের জঙ্গি সংগঠনে নিয়োগের চেষ্টাও করবে সে। গোয়েন্দাদের মতে, স্বাধীনতা দিবসের বক্তৃতায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বালুচিস্তানের কথা উল্লেখ করায় বিপাকে পড়েছে পাকিস্তান। কারণ, তার পর থেকেই বালুচ জনগোষ্ঠীর বিদ্রোহীরা উৎসাহ পেয়ে গিয়েছে। তাদের সঙ্গে বার বার পাক প্রশাসনের সংঘর্ষ হচ্ছে। ফলে হাফিজকে হাতিয়ার করে ওই এলাকা কিছুটা নিয়ন্ত্রণেও আনতে চাইছে পাক গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই।

গত কাল পঠানকোট হানার মামলায় জইশ প্রধান মাসুদ আজহারকে চার্জশিট দিয়েছে এনআইএ। বিদেশ মন্ত্রক সূত্রে ইঙ্গিত মিলেছিল, ওই চার্জশিটকে হাতিয়ার করে দিল্লি মাসুদকে ফের রাষ্ট্রপুঞ্জের নিষিদ্ধ জঙ্গির তালিকার অন্তর্ভুক্ত করার চেষ্টা করবে। আগে দু’বার চিনের আপত্তিতে স্থগিত হয়ে গিয়েছে এই প্রক্রিয়া।

ঘটনাচক্রে আজই জম্মু-কাশ্মীরের নাগরোটার সেনাঘাঁটিতে হামলায় জইশের ভূমিকার কথা ফলাও করে প্রচার করেছে মাসুদ। সংগঠনের মুখপত্রে তার দাবি, ওই হামলা নিয়ে ব্যস্ত থাকার ফলেই তাদের মুখপত্র প্রকাশে দেরি হয়েছে।

এই অবস্থায় আজ পাক সন্ত্রাস নিয়ে রাষ্ট্রপুঞ্জে ফের সওয়াল শুরু করেছেন ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি সৈয়দ আকবরুদ্দিন। রাষ্ট্রপুঞ্জে নিরাপত্তা পরিষদের একটি অধিবেশনে সৈয়দ আকবরুদ্দিন পার্সি কবি রুমি-কে উদ্ধৃত করে বলেন, ‘তুমি কী বীজ বপন করছ, তা ভবিষ্যতে গাছের প্রতিটি পাতাই তা বলে দেবে। বন্ধু তোমার যদি একটুও বুদ্ধি থাকে তা হলে শান্তি ছাড়া অন্য কিছুই বপন করো না।’ এর পরে পদ্য ছেড়ে চাঁছাছোলা গদ্যে তিনি বলেছেন, ‘‘হক্কানি নেটওয়ার্ক, আইএস, আল-কায়দা, তালিবান, জইশ, লস্করের মতো সব স‌ংগঠনের  বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা নিতে হবে। আফগানিস্তানের বাইরে থেকেও এরা ক্রমাগত সমর্থন পাচ্ছে।’’ আকবরুদ্দিনের ইঙ্গিত যে পাকিস্তানের দিকে, তা নিয়ে কূটনীতিকদের সন্দেহ নেই। বিদেশ মন্ত্রক সূত্রে খবর, এর পর ধীরে ধীরে সুর চড়াবে দিল্লি। মাসুদকে নিষিদ্ধ করা নিয়ে সংশ্লিষ্ট কমিটির কাছে ফের আর্জি পেশ করা হবে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন