টাকা করেছি, দেখিয়ে দিন: মোদী
বালিয়ার সভায় প্রধানমন্ত্রী দাবি করেন, তিনি নিজে পিছিয়ে পড়া জাতির হলেও দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার কথাতেই বিশ্বাস রাখেন।
Narendra Modi

দলীয় প্রার্থীর হয়ে প্রচারে নরেন্দ্র মোদী। উত্তরপ্রদেশের বালিয়ায়। ছবি: পিটিআই

তাঁর কোনও বেনামি সম্পত্তি, বাংলো বাড়ি, শপিং কমপ্লেক্স কিংবা বিদেশি ব্যাঙ্কে টাকা রাখা আছে কিনা, তা জানাতে বিরোধীদের উদ্দেশে সরাসরি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। শেষ পর্বের ভোটের প্রচারে উত্তরপ্রদেশে গিয়ে প্রধানমন্ত্রীর দাবি, বিরোধীরা নিজেদের জন্য বিশাল প্রাসাদ তৈরিতে আর সিন্দুক ভরতেই ব্যস্ত। 

বালিয়ার সভায় প্রধানমন্ত্রী দাবি করেন, তিনি নিজে পিছিয়ে পড়া জাতির হলেও দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার কথাতেই বিশ্বাস রাখেন। বিরোধী সমাজবাদী পার্টি-বিএসপির উদ্দেশে জাতপাতের রাজনীতি করার অভিযোগ এনে মোদী বলেন, ‘‘মহাভেজাল জোটের নেতারা জাতপাতের রাজনীতি করে চলেছেন আর সিন্দুক ভরে চলেছেন। এঁরা নিজেদের আর আত্মীয়দের জন্য বিশাল বাংলো, প্রাসাদ বানিয়ে চলেছেন।’’ এর পরেই নিজের সম্পত্তির প্রসঙ্গ টেনে বিরোধীদের চ্যালেঞ্জ ছোড়েন প্রধানমন্ত্রী। বলেন, ‘‘মহাভেজাল জোটের নেতাদের সরাসরি চ্যালেঞ্জ করছি, তাঁরা দেখিয়ে দিন যে আমার কোনও বেনামি সম্পত্তি রয়েছে... কোনও বাংলো বাড়ির মালিক আমি, আমার নামে শপিং কমপ্লেক্স রয়েছে... বিদেশি ব্যাঙ্কে টাকা কিংবা বিদেশে কোনও সম্পত্তি কিনেছি আমি, দামি কোনও গাড়ির মালিক হয়েছি...।’’

মোদীর এ দিন  দাবি করেন, বিরোধী জোটের নেতারা তাঁকে যে ভাবে আক্রমণ করছেন, ইভিএমে তার জবাব দেবে মানুষ। উত্তরপ্রদেশের মহাজোটকে নিশানা করে প্রধানমন্ত্রীর মন্তব্য, ‘‘এঁরা এত দিন পরস্পরকে গালমন্দ করে এসেছে। ভোটের ফল বের হলে সেই পর্বই নতুন করে শুরু হবে।’’ জাতপাতের রাজনীতির জন্য অখিলেশ-মায়বতীকে দুষে মোদী বলেন, ‘‘মায়াবতী কিংবা অখিলেশ মিলে যত দিন মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন, আমি তার থেকেও বেশি সময় গুজরাতের মুখ্যমন্ত্রী ছিলাম। ভোটে লড়েছি, লড়িয়েছি। কিন্তু কখনওই (ভোটের জন্য) নিজের জাতের সাহায্য নিইনি।’’ মোদী দাবি করেন, বিরোধীরা ক্ষমতায় এলে মাওবাদী, কাশ্মীরে ঢিল ছোড়ে যারা কিংবা টুকরে টকরে গ্যাংয়ের খোলা ছাড় মিলবে।

দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

শেষ পর্বে উত্তরপ্রদেশ ও বিহারের বিভিন্ন এলাকায় ভোট প্রচার করতে গিয়ে আজ নিজের কেন্দ্র বারাণসীতে যেতে পারেননি মোদী। তবে এ দিন কাশীর বাসিন্দাদের উদ্দেশে একটি ভিডিয়ো বার্তা প্রকাশ করেন তিনি। ওই শহরের সঙ্গে তাঁর আত্মীয়তার কথা তুলে ধরার পাশাপাশি মোদীর মুখে শোনা যায় শিবস্তুতি। মহাদেবের বন্দনা গান শোনা যায় প্রধানমন্ত্রীর মুখে। তাঁর দাবি, কাশীর জন্য কাজ করা তাঁর কাছে সৌভাগ্যের। বারণসীর উন্নয়নে তিনি কী করেছেন, তার খতিয়ানও দিয়েছেন মোদী। তাঁর মন্তব্য, ‘আমি জানি, এখন সব কাশীবাসী নরেন্দ্র মোদী হয়ে লড়াই করছেন, করাচ্ছেন।’’ বারাণসীর ভোটদানের পরে নিজস্বী তুলে স্যোশাল মিডিয়ায় তা পোস্ট করার জন্যও ভোটারদের উদ্দেশে আর্জি জানান মোদী। 

পরে বিহারের সাসারাম ও বক্সারে পৌঁছেও বিরোধীদের নিশানা করেন মোদী। জানান, কোনও ভাবেই তাঁর সরকার দেশের নিরাপত্তার প্রশ্নে সমঝোতা করবে না। মোদী বলেন, ‘‘আমরা নিরাপত্তা সংস্থাগুলিকে ছাড় দিয়েছি। আজ দেশের ভিতরে এবং বাইরে সাফাই অভিযান চলেছে।’’ পরিবার প্রসঙ্গ তুলে এ দিন প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‘কখনও নিজের বা আত্মীয়দের জন্য বাঁচিনি। দেশের ১৩০ কোটি মানুষই আমার পরিবার।’’ এ দিন মঞ্চ থেকে মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমারের প্রশংসাও করেন তিনি।

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত