ধ্যান নিয়ে রসিকতা-ব্যঙ্গের মধ্যেই বদ্রীনাথে পুজো প্রধানমন্ত্রীর, অনুমতির জন্য কমিশনকে ধন্যবাদ
মোদী বলেন, নির্বাচনী বিধি কার্যকর থাকা সত্ত্বেও তাঁর এই আধ্যাত্মিক সফরের অনুমতি দেওয়ার জন্য কমিশনকে ধন্যবাদ।
Narendra Modi

বদ্রিনাথ মন্দিরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ছবি: টুইটার থেকে

কেদারনাথের গুহায় ধ্যান নিয়ে বিরোধীদের কটাক্ষ আর সমালোচনা, তৃণমূলের আনা বিধিভঙ্গের অভিযোগ। সোশ্যাল মিডিয়ায় রসিকতার বন্যা। তার মধ্যেই এ বার কেদারনাথ সফর সেরে বদ্রীনাথে পৌঁছলেন নরেন্দ্র মোদী। সেখানে পুজো দেওয়ার পর সফরের অনুমতি দেওয়ার জন্য নির্বাচন কমিশনকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন মোদী। বিশ্ববাসীর জন্য প্রার্থনা করেছেন সুখ-সমৃদ্ধি। যদিও কেদারনাথে সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হওয়া থেকে শুরু করে ছবি-ভিডিয়ো প্রচার নিয়ে সমালোচনা পিছু ছাড়ছে না প্রধানমন্ত্রীর।

শনিবারই দু’দিনের উত্তরাখণ্ড সফরে পৌঁছন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেখানে কেদারনাথের গর্ভগৃহে ঢুকে পুজো দেওয়ার পর প্রায় ১৭ ঘণ্টা ধ্যান করেন। গুহার ভিতরে মোদীর ধ্যানমগ্ন হওয়ার সেই ছবিও সংবাদ মাধ্যমে উঠে এসেছে। কেদারনাথে পুজো-পাঠ সেরে রবিবার দুপুরে বেরোন প্রধানমন্ত্রী। সেখান থেকে উত্তরাখণ্ডের ৪ ধামের অন্যতম বদ্রীনাথ মন্দিরে যান। সেখানেও পুজো দেন মোদী।

কেদারনাথে পুজো-ধ্যান শেষ করে বেরনোর পর নির্বাচন কমিশনকে ধন্যবাদ জানিয়ে মোদী বলেন, নির্বাচনী বিধি কার্যকর থাকা সত্ত্বেও তাঁর এই আধ্যাত্মিক সফরের অনুমতি দেওয়ার জন্য কমিশনকে ধন্যবাদ। তিনি জানান, প্রার্থনার সময় কোনও কিছু চাননি। তাঁর মন্তব্য, ‘‘ঈশ্বর আমাদের দান করার ক্ষমতা দিয়েছেন, চাওয়ার নয়।’’ ‘‘শুধু ভারতবর্ষ নয়, সারা বিশ্বের মানুষকেই সুখ ও সমৃদ্ধি দিন সর্বশক্তিমান’’— প্রার্থনা করেছেন মোদী। এ ছাড়া উত্তরাখণ্ড তথা কেদারনাথে ভয়াবহ  বন্যার পর এখানকার উন্নয়ন ও পুনর্গঠনে যে মাস্টার প্ল্যান হয়েছে এবং সেই কাজ যে চলছে, সে কথাও জানাতে ভোলেননি প্রধানমন্ত্রী।

কিন্তু পুজো দেওয়া এবং সংবাদ মাধ্যমে সেই ছবি-ভিডিয়ো সংবাদ মাধ্যম এবং সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশিত হওয়া নিয়ে বিরোধীদের তোপের মুখে পড়েছেন মোদী। নির্বাচনী বিধি কার্যকর থাকাকালীন এবং প্রচার নিষিদ্ধ হওয়ার পরও এই ভাবে কার্যত ভোটপ্রচার করা এবং উন্নয়ন প্রকল্পের অগ্রগতি সম্পর্কে মন্তব্য করা নিয়ে বিধিভঙ্গের অভিযোগ দায়ের করছে তৃণমূল কংগ্রেস। দলের রাজ্যসভার সাংসদ ডেরেক ওব্রায়েন বলেছেন, ‘‘এটা পুরোপুরি নির্বাচনী বিধিভঙ্গ। উনি কেদারনাথের মাস্টার প্ল্যানের কথা বলেছেন, সেখান সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেছেন। এটা সম্পূর্ণ অনৈতিক এবং নীতিগত ভাবে ঠিক নয়।’’ ডেরেকের আরও অভিযোগ, প্রধানমন্ত্রী মোদীর প্রতি মিনিটের কাজকর্ম সংবাদ মাধ্যমে ‘কভার’ করা হচ্ছে, যা আসলে ভোটারদেরে প্রভাবিত করার চেষ্টা।

আরও পডু়ন: লাইভ: রণক্ষেত্র কাঁকিনাড়া, সংঘর্ষ, বোমাবাজি, নামল র‌্যাফ, লাঠিচার্জ পুলিশের, রিপোর্ট তলব কমিশনের

আরও পডু়ন: একাধিক ইস্যুতে এনডিএ-বিরোধী সুর! বুথফেরত সমীক্ষার আগে নীতীশের মন্তব্যে জল্পনা

থেমে নেই অন্য বিরোধীরাও। কংগ্রেসের মুখপাত্র রণদীপ সিংহ সূরজেওয়ালার কটাক্ষ, ‘‘ধর্মীয় স্থানে প্রকৃত ভক্তরা নিজেদের ইগো এবং ঔদ্ধত্য বিসর্জন দিতে যান। রেড কার্পেটে হেঁটে নন।’’ এ ছাড়া গুহার মধ্যে ধ্যানমগ্ন মোদীর ছবি, পুজো দেওয়ার ছবি নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘুরছে প্রচুর মিম, ব্যাঙ্গ-বিদ্রুপ ভরা পোস্ট। সে সবের জবাবে মুখ না খুললেও নির্বাচন কমিশনের অনুমোদন নিয়েই যে তিনি কেদার-বদ্রিনাথ সফরে গিয়েছে, কৌশলে সে কথা শুনিয়ে কার্যত বিরোধীদের অভিযোগই খণ্ডন করতে চেয়েছেন, মত রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের।

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত