বিধানসভা ভোটের প্রচার শেষের এক দিন আগে কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গাঁধীর একমাত্র সভাও বাতিল হয়ে গেল হরিয়ানায়। শেষ মুহূর্তে তাঁর বদলে প্রচারে গেলেন রাহুল গাঁধী। আর প্রিয়ঙ্কা গাঁধী বঢরা তো মহারাষ্ট্র, হরিয়ানায় প্রচারই করলেন না! 

হরিয়ানা-রাজস্থান সীমানাবর্তী মহেন্দ্রগড়ে আজ সভা করার কথা ছিল সনিয়ার। মঞ্চে ছিল শুধু তাঁরই নাম। সভাস্থলে আগেভাগেই পৌঁছে গিয়েছিলেন সনিয়া-মনোনীত প্রদেশ কংগ্রেকে সভানেত্রী কুমারী শৈলজা এবং‌ প্রবীণ নেতা গুলাম নবি আজাদ। সোনিপতের সভা সেরে হেলিকপ্টারে আসার কথা ছিল ভূপেন্দ্র সিংহ হুডার। কিন্তু আজ সকালেই বদলে যায় ছবিটা। দলের পক্ষ থেকে জানানো হয়, সনিয়া যেতে পারবেন না। পরিবর্তে যাবেন রাহুল। 

রাহুলের নাম শুনেই হেলিকপ্টারের মুখ ঘুরিয়ে দিলেন হুডা। গত কয়েকদিন ধরে রাহুলের কোনও সভায় তিনি যাচ্ছেন না। এমনকি নিজের সভায় রাহুলের ছবি পর্যন্ত রাখছেন না। রাহুল তাঁর বক্তৃতার শুরুতেই বলেন, ‘‘সনিয়া গাঁধীই আসতেন। কিন্তু অসুস্থ হয়ে পড়ায় পারেননি। আমাকে শেষ মিনিটে বলা হয়েছে। শেষ সেকেন্ডে বললেও আসতাম।’’ বক্তৃতা শেষ করেই শ্রোতাদের উদ্দেশে হাত নেড়ে মঞ্চ ছেড়ে চলে যান রাহুল। শৈলজা তখনও কিছু ঘোষণা করছিলেন। রাহুল অপেক্ষাই করলেন না। 

কংগ্রেসের এই ছন্নছাড়া দশা দেখে উপভোগই করছে বিজেপি। ক’দিন আগেই একটি ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে। হরিয়ানায় দল ক’টাআসন জিততে পারে সংসদ চত্বরে দাঁড়িয়ে তা মুখে মুখে হিসেব করছেন আহমেদ পটেল, ভূপেন্দ্র হুডা ও গুলাম নবি আজাদ। কংগ্রেসের এই প্রবীণ ব্রিগেড রাহুলের অপছন্দের বলেই দলের অন্দরে জল্পনা। আজ হরিয়ানায় ভোট প্রচারে গিয়ে সেই ভিডিয়োর প্রসঙ্গ তুলে উপহাস করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। পরে টুইট করেন: ‘কংগ্রেসের কী দুর্দশাই না হতে চলেছে।’ সঙ্গে ‘ইমোজি’— হাসতে হাসতে জল এসে গিয়েছে চোখে। এই প্রথম ‘ইমোজি’ ব্যবহার করলেন মোদী। মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়েরও কটাক্ষ, ‘‘হরিয়ানায় শেষ মুহূর্তে সনিয়া গাঁধীর বদলে নামলেন রাহুল গাঁধী। বেশ ভাল খবর। কংগ্রেসের দুর্দান্ত হারের নেতৃত্ব 

দেবেন রাহুল।’’ 

সনিয়ার শরীরটা যে ভাল নেই, তা নিয়ে কংগ্রেসের কারও মনে সংশয় নেই। কিন্তু শেষ মুহূর্তে রাহুলকে সভা করতে বলার পিছনে নানা অঙ্ক খুঁজছেন দলের নেতারা। প্রশ্ন উঠেছে, যে প্রবীণেরা সনিয়াকে আরও সক্রিয় দেখতে চান, তাঁদের কি বার্তা দিলেন কংগ্রেস সভানেত্রী? বুঝিয়ে দিলেন, রাহুলই ‘বস’, তাঁর নেতৃত্বেই দল 

চলবে ভবিষ্যতে?