পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত কোনও অবস্থান বা বিক্ষোভ করা যাবে না। শনিবার এমনটাই জানিয়ে দিলেন জম্মু-কাশ্মীর পুলিশের ডিজি দিলবাগ সিংহ।

ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ প্রত্যাহারের প্রতিবাদ জানিয়ে মঙ্গলবার উপত্যকার রাস্তায় নামেন ফারুক আবদুল্লার বোন, মেয়ে-সহ বহু মহিলা শিক্ষাবিদ এবং সমাজকর্মী। ফলে পরিস্থিতি ফের উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। বৃহস্পতিবার ব্যক্তিগত বন্ডে মুক্তি দেওয়া হয় তাঁদের। কাশ্মীরের পরিস্থিতি যাতে ফের অশান্ত না হয়ে ওঠে, তাই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জম্মু-কাশ্মীর পুলিশ সূত্রে খবর। এ প্রসঙ্গে দিলবাগ সিংহ বলেন, “কাশ্মীরের শান্তি অক্ষুণ্ণ রাখতে এ ধরনের অবস্থান বা বিক্ষোভের মতো বিষয়গুলোকে কোনও ভাবেই প্রশ্রয় দেওয়া হবে না।” তিনি আরও জানান, বিক্ষোভকারীদের মধ্যে কয়েক জনের হাতে সে দিন যে প্ল্যাকার্ড ছিল, সেখানে মোটেই ভাল বার্তা ছিল না। রাজ্যের আইনশৃঙ্খলাকে ব্যাহত করার পক্ষে যথেষ্ট রসদ ছিল ওই প্ল্যাকার্ডে। ডিজি এ প্রসঙ্গে বলেন, “শুধু কথার মাধ্যমেই উস্কানি দেওয়া যায় না, উস্কানি আসে প্ল্যাকার্ডে লেখা শব্দগুলো থেকেও।”

মঙ্গলবার শ্রীনগরের লালচকে প্রতাপ পার্ক এলাকায় ৩৭০ অনুচ্ছেদ প্রত্যাহারের প্রতিবাদে ধর্নায় বসেছিলেন বহু মহিলা। তাঁরা প্রতিবাদ শুরু করতেই পুলিশ ধড়পাকড় শুরু করে বলে অভিযোগ। বিক্ষোভকারীদের অনেককেই নিজেদের হেফাজতে নেয় পুলিশ। শ্রীনগরের বিভিন্ন জায়গায় এখনও নিষেধাজ্ঞা চলছে। কিন্তু বিক্ষোভকারীরা কোনও অনুমতি না নিয়েই প্রতিবাদ শুরু করেন বলে পুলিশের অভিযোগ। দিলবাগ সিংহ এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘‘এই নিষেধাজ্ঞাকে মেনে চলা উচিত। কোনও ভাবেই এ ধরনের কর্মকাণ্ড মেনে নেওয়া হবে না। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে ভেবে দেখা যাবে।’’

আরও পড়ুন: সিসিটিভি ফুটেজ, মিষ্টির বাক্সই ধরিয়ে দিল অভিযুক্তদের, কমলেশ খুনে গ্রেফতার ৫

 

আরও পড়ুন: দেবাঞ্জন খুনে প্রথম গ্রেফতার, তৃষার প্রাক্তন প্রেমিক প্রিন্স এখনও ফেরার

৩৭০ অনুচ্ছেদ প্রত্যাহারের পর থেকে কাশ্মীরের পরিস্থিতি থমথমে। বিভিন্ন জায়গায় নিষেধাজ্ঞা চলছে। পরিস্থিতি যাতে উত্তপ্ত না হয়ে ওঠে তাই সেখানকার নেতা-নেত্রীদের রাতারাতি আটক ও গৃহবন্দি করে রাখার মতো পদক্ষেপ করে রাজ্য প্রশাসন। পিডিপি নেত্রী মেহবুবা মুফতি, ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা ওমর আবদুল্লাকে আটক করে রাখার অভিযোগ ওঠে। অন্য দিকে, ফারুক আবদুল্লাকেও গৃহবন্দি করে রাখার অভিযোগ ওঠে। তবে পরে বহু জায়গায় ধীরে ধীরে সেই রাশ আলগা করা হয়েছে। ধাপে ধাপে জম্মু ও কাশ্মীরের আটক ও গৃহবন্দি নেতাদের মুক্তিও দেওয়া হয়েছে।