জামিন নাকচ হওয়ার পরই গ্রেফতার হলেন গোষ্ঠী-সংঘর্ষে অভিযুক্ত কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অশ্বিনী চৌবের ছেলে অর্জিত শ্বাশত। শনিবার রাতে বিহারে মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবন থেকে ৩০০ মিটার দূরে গ্রেফতার হন তিনি। শনিবারই ভাগলপুর কোর্ট তাঁর জামিনের আবেদন নাকচ করে।

ভাগলপুরের পুলিশ সুপার(অতিরিক্ত) রাকেশ দুবে জানান, থানার কাছেই এক হনুমান মন্দির রয়েছে। গোপন সূত্রে পুলিশ জানতে পারে অর্জিত সেখানেই রয়েছেন। এর পরই গভীর রাতে অভিযান চালিয়ে পুলিশের একটি দল তাঁকে হাতেনাতে গ্রেফতার করে। অভিযুক্ত অর্জিতকে এ বার জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলে জানান তিনি।

ছেলে গ্রেফতার হওয়ায় ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন অশ্বিনী চৌবে। তিনি কেন্দ্রের স্বাস্থ্য এবং পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী। ছেলের গ্রেফতারির পিছনে ওই এলাকার কিছু দুর্নীতিগ্রস্ত প্রশাসনিক কর্তার চক্রান্ত রয়েছে বলে দাবি করেছেন তিনি। অর্জিতের গ্রেফতারির খবর পেয়ে তিনি বলেন, ‘‘ওই এফআইআর কয়েক জন দুর্নীতিগ্রস্ত কর্তারা দায়ের এক টুকরো আবর্জনা ছাড়া আর কিছু নয়। আমার ছেলে কোনও ভুল করেনি।’’

আরও পড়ুন: এপ্রিলেই মোদী-হাসিনা বৈঠক হতে পারে লন্ডনে

গত ১৭ মার্চ ৩৬ বছরের এই বিজেপি নেতা ভাগলপুরে রামনবমী উপলক্ষে শোভাযাত্রা বার করেছিলেন। অভিযোগ, সেই শোভাযাত্রা থেকে গোলমালের সূত্রপাত। এর পরই অর্জিত-সহ বেশ কয়েক জনের নামে এফআইআর দায়ের করে পুলিশ। গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে আদালত। কিন্তু পুলিশ তাঁকে গ্রেফতার করেনি। কারণ হিসাবে জানানো হয়েছিল, ‘গা ঢাকা’ দিয়েছে অর্জিত। যদিও এর পরেও ‘গা ঢাকা দেওয়া’ অর্জিতকে পটনা শহরে রামনবমীর শোভাযাত্রায় দেখা গিয়েছিল। সাংবাদিকদের সামনে বিবৃতি দিতেও দেখা গিয়েছিল তাঁকে। বিরোধীদের অভিযোগ ছিল, অর্জিতকে গ্রেফতার না করার পিছনে নীতীশ কুমারের হাত রয়েছে। কারণ অর্জিত মন্ত্রীর ছেলে। এর পরেই অর্জিত আগাম জামিনের জন্য আবেদন করেছিলেন। সেই আবেদন নাকচ হতেই গ্রেফতার হলেন তিনি।