তাদের বিরুদ্ধে আদর্শগত লড়াইয়ের ‘মঞ্চ’ এবং ‘সুযোগ’ তৈরি করে দেওয়ার জন্য রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘকে (আরএসএস) ‘ধন্যবাদ’ জানালেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গাঁধী। একটি মানহানির মামলায় হাজিরা দিতে তিনি আজ আমদাবাদে যান। ওই মামলায় রাহুল জামিন পেয়েছেন। পরবর্তী শুনানি আগামী ৭ সেপ্টেম্বর।

আমদাবাদে পৌঁছেই রাহুল টুইট করেন, ‘‘আমার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ আরএসএস/বিজেপির করা আরও একটি মানহানি মামলার জন্য আদালতে হাজিরা দিতে আজ আমি আমদাবাদে। আমার আদর্শগত লড়াইকে মানুষের কাছে নিয়ে যাওয়ার মঞ্চ এবং সুযোগ করে দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ। সত্যমেব জয়তে।’’ 

রাহুলের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করেছিল আমদাবাদ ডিস্ট্রিক কো-অপারেটিভ ব্যাঙ্ক এবং ব্যাঙ্কের চেয়ারম্যান অজয় পটেল। ওই ব্যাঙ্কের অন্যতম ডিরেক্টর বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ। ব্যাঙ্কটির বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে কংগ্রেস সভাপতি গত বছর টুইটারে লিখেছিলেন, ২০১৬ সালে নোটবন্দির পাঁচ দিনের মধ্যে বাতিল হওয়া নোটে ৭৫০ কোটি টাকা ওই ব্যাঙ্কে জমা দেওয়া হয়েছিল। ওই মন্তব্যের বিরুদ্ধেই আদালতের মানহানির মামলা করে ব্যাঙ্কটি। 

দেশের বিভিন্ন প্রান্তে বিজেপি-সঙ্ঘ রাহুলের বিরুদ্ধে কুড়িটির বেশি মামলা করেছে। আজ কংগ্রেস সভাপতি বলেন, ‘‘এই লড়াই দেশের ভবিষ্যতের জন্য, দুর্নীতি-অত্যাচারের বিরুদ্ধে।’’ গত ৪ জুলাই মুম্বইয়ে একটি মানহানি মামলার হাজিরা দিতে হয়েছিল রাহুলকে। গৌরী লঙ্কেশ-হত্যার সঙ্গে ‘আরএসএস-মতাদর্শ’ জড়িত বলে অভিযোগ করেছিলেন। একটি নির্বাচনী সভায় রাহুল বলেছিলেন, ‘সব চোরের পদবি মোদী’। ওই মন্তব্যের প্রেক্ষিতে মামলা করেন বিহারের উপমুখ্যমন্ত্রী সুশীল মোদী। এই মামলায় গত ৭ জুলাই জামিন পান কংগ্রেস সভাপতি।