এ বার গো-রক্ষকদের হামলা রাজধানী দিল্লির উপকণ্ঠেই। বাবা হরিদাস নগরে। শনিবার সকালে। গত সপ্তাহেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেছিলেন, ‘‘গোভক্তির নামে হিংসা কোনও ভাবেই বরদাস্ত করা হবে না।’’

গো-রক্ষকদের হাত বেধড়ক মারধর খেলেন ৬ জন। তাঁরা একটি মিনি ট্রাকে চাপিয়ে ৮০টি মোষ নিয়ে যাচ্ছিলেন কসাইখানায়। ৬ জনকেই নিয়ে যেতে হয় হাসপাতালে। প্রাথমিক চিকিৎসার পর ৫ জনকে ছেড়ে দেওয়া হলেও, এক জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

পুলিশ জানাচ্ছে, শনিবার সকালে একটি মিনি ট্রাকে চাপিয়ে মোষগুলিকে যখন কসাইখানায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল, তখন বাবা হরিদাস নগরে একদল দুষ্কৃতী সেই ট্রাকটিকে থামায়। তার পর ট্রাক থেকে ৬ জনকে রাস্তায় নামিয়ে তাঁদের বেধড়ক পেটাতে থাকে দুষ্কৃতীরা। মোষগুলিকে কেড়ে নেওয়া হয়। পুলিশ আসতে দেখেই পালিয়ে যায় দুষ্কৃতীরা। প্রচণ্ড মারধোরে চোট পাওয়া ৬ জনকেই নিয়ে যাওয়া হয় হাসপাতালে। পরে নিগৃহীতরা থানায় একটি এফআইআর করেন। দুষ্কৃতীরা এখনও পলাতক। নিগৃহীতদের দাবি, মোষ নিয়ে যাওয়ার বৈধ কাগজপত্র তাঁদের কাছে আছে।

আরও পড়ুন- এ বার লালুর মেয়ের তিন বাড়িতে ইডি হানা

গত সপ্তাহে ঝাড়খণ্ডে বাজার থেকে গোমাংস কিনে আনার অভিযোগে এক জনকে পিটিয়ে খুন করা হয়। দিনপনেরো আগে হরিয়ানায় ট্রেনে এক কিশোরকে পিটিয়ে, ছুরি মেরে খুন করে একদল দুষ্কৃতী, গোমাংস নিয়ে যাওয়ার অভিযোগে। তার পর দেশজুড়ে হয় প্রতিবাদ-বিক্ষোভও।