আইএএস অফিসার হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে প্রতিবছর প্রচুর ছেলে মেয়ে সিভিল সার্ভিস পরীক্ষা দেন। কিন্তু তাদের মধ্যে হাতে গোনা কয়েক জনই পাশ করতে পারেন। কিন্তু পাশ করতে না পেরে জালিয়াতির আশ্রয় নিলেন এক এক যুবক। আর ছেলের কীর্তি শুনে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন অভিযুক্তের বাবা।

উত্তরপ্রদেশের হাপুরের যুবক সিদ্ধার্থ গৌতম আইএএস পরীক্ষা দেয়। ব্যর্থতা ঢাকতে তালিকা জালিয়াতি করার সিদ্ধান্ত নেয়। আসল তালিকার একটি নকল কপি তৈরি করে সে। যেখানে ৫৩২ নম্বরে নিজের নাম ঢুকিয়ে দেয়। ইউপিএসসি-র একটি নকল সার্টিফিকেটও বানিয়ে নেয়। এবার বুক বাজিয়ে বলে বেড়ায় আইএএস পরীক্ষা পাশ করেছে। ফলে অভিনন্দনের বন্যায় ভাসতে থাকে। পাড়া, প্রতিবেশি, বন্ধু, আত্মীয়রা দেখা করে অভিনন্দন জানিয়ে যায়।

এলাকার যুবকের এই সাফল্য ফলাও করে ছাপা হয় স্থানীয় ছোট বড় সংবাপত্রগুলিতেও। সিদ্ধার্থের সাক্ষাত্কারও ছাপা হয়। আর তাতেই বিপদ বাড়ে। খবর, সাক্ষাত্কার দেখে ওই তালিকার ৫৩২ নম্বরের আসল ব্যক্তি মেরঠ থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। ওই ব্যক্তি বর্তমানে ভারতীয় রেলের অ্যাকাউন্ট সার্ভিসেস অফিসার হিসেবে কাজ করছেন। তিনি ২০১৬, ২০১৭ সালেও সিভিল সার্ভিস পাস করেন। ২০১৮ সালে ফের পাস করেন, তালিকায় স্থান হয় ৫৩২।

আরও পড়ুন : পোষা পাখির আক্রমণেই মরতে হল ফ্লোরিডাবাসীকে

আরও পড়ুন : আগুন নিয়েই তিরের বেগে ছুটছে বাইক, থামিয়ে আরোহীদের প্রাণ বাঁচাল পুলিশ

অভিযোগ পেয়ে পুলিশ অভিযুক্ত সিদ্ধার্থ গৌতমকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারির খবর শুনে আঘাত পান সিদ্ধার্থের বাবা। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তিনি একটি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।