মহারাষ্ট্রের সিরিডিতে সাঁইবাবার মন্দির দেশের অন্যতম ধনী মন্দির বলে মনে করা হয়। কিন্তু সেই মন্দিরে দানপাত্র খুলে এখন সমস্যায় পড়ছেন মন্দির কর্তৃপক্ষ। কারণ প্রতি সপ্তাহে প্রায় ১৪ লক্ষ টাকার দান আসছে শুধু কয়েনে। আর সেই সেই সব কয়েন নিতে অস্বীকার করছে ব্যাঙ্কগুলিও। ব্যঙ্কগুলির তরফে বলা হয়েছে, তাঁদের কাছে এই বিপুল পরিমাণ কয়েন রাখার জায়গা নেই।

গোটা দেশ থেকে সারা বছর পুণ্যার্থীরা সিরিডির সাঁই বাবার মন্দিরে যান দর্শনের জন্য। তাঁদের মধ্যে বহু মানুষ দানের বাক্সে নোটের পাশাপাশি কয়েনও দান করেন। শ্রী সাঁইবাবা সংস্থান ট্রাস্টের সিইও দীপক মুগলিকার জানিয়েছেন, তাঁরা সপ্তাহে দু’বার গুনে দেখেন দানপাত্রে জমা হওয়া অর্থ। প্রতিবার প্রায় ২ কোটি টাকা পাওয়া যায়। অর্থাত্ সপ্তাহে প্রায় ৪ কোটি টাকা দান আসে। আর এর মধ্যে প্রায় ১৪ লক্ষ টাকা আসছে কয়েনে। আর ব্যাঙ্ক সেই কয়েন নিতে অস্বীকার করছে। তবে একটি বিকল্প প্রস্তাবও দেওয়া হয়েছে মন্দির ট্রাস্টের তরফে। ব্যাঙ্কগুলিতে অতিরিক্ত জায়গার ব্যবস্থা করে দিতে পারে মন্দির কর্তৃপক্ষ।

মোট আটটি ব্যাঙ্কে মন্দিরের নামে অ্যাকাউন্ট রয়েছে। আর সব ব্যাঙ্কই জায়গার অপ্রতুলতার জন্য কয়েন নিতে অস্বীকার করছে। এখন মন্দিরের ট্রাস্টের তরফে রিজার্ভ ব্যাঙ্ককে এই সমস্যার কথা জানিয়ে সমাধান চাওয়া হয়েছে। সূত্রের খবর, মন্দিরের তরফে প্রায় দেড় কোটি টাকার কয়েন ব্যাঙ্কগুলিতে জমে রয়েছে।

আরও পড়ুন : ‘মহিলাদের স্তন কেটে বিক্রি করতাম’

আরও পড়ুন : ভক্তদের হাত থেকে দিশাকে উদ্ধার করলেন টাইগার