সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে শুরু হয়েছিল বন্ধুত্ব। বন্ধুত্ব গভীর হতেই ফেসবুকের সেই অচেনা বন্ধুর সঙ্গে দেখা করতে গুরুগ্রামের একটি শপিং মলকেই বেছে নিয়েছিলেন ২৮ বছরের এক যুবতী। কিন্তু ফেসবুক বন্ধুত্বের পরিণতি এ ভাবে বুমেরাং হয়ে ফিরবে তা বোধ হয় আঁচ করতে পারেরনি ওই যুবতী।

ফেসবুকে বন্ধুত্ব হওয়ার পর ওই বন্ধুর সঙ্গে দেখা করতে একটি শপিং মলে গিয়েছিলেন ওই যুবতী। অভিযোগ, সেখানেই ওই যুবতীর মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে তাঁকে অপহরণ করে চার ব্যক্তি। নিয়ে যায় উত্তরপ্রদেশের বারাউতের একটি শুটিং রেঞ্জে। সেখানে অর্ধনগ্ন হয়ে ওই যুবতীকে নাচতে বাধ্য করে অভিযুক্তরা। তারপর সেখান থেকে একজনের বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয় ওই যুবতীকে। সেখানেই সারা রাত ধরে তাঁকে ধর্ষণ করা হয় বলে জানিয়েছেন ওই যুবতী।

বন্ধুত্বের নামে অপহরণ করে ধর্ষণের ঘটনাটি ঘটে গত ১৭ এপ্রিল। তবে গোটা ঘটনাটি সামনে আসে গত রবিবার, যখন ওই যুবতী পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেন। উত্তরপ্রদেশের বিনাউলি পুলিশ স্টেশনে ওই যুবতী তাঁর ফেসবুক বন্ধু ও বাকীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযুক্তদের নাম বিপিন তোমর, আশিস বাল্যান, তরণজিৎ ও অমিত মঞ্জুল। তাঁদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৬ডি(গণধর্ষণ), ৩৬৩(অপহরণ), ৩২৮ ও ৫০৪ নম্বর ধারায় মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। এদের মধ্যে বিপিন ও আশিসকে পুলিশ গ্রেফতার করলেও বাকিরা এখনও পলাতক। 

আরও পড়ুন: গোমূত্র আমার ক্যানসার সারিয়েছে, দাবি সাধ্বীর