কুস্তির ‘দঙ্গল’ ছেড়ে রাজনীতির আখড়ায় যোগ দিলেন ববিতা ফোগত। হরিয়ানার দল ছেড়ে বিজেপিতে এলেন তাঁর বাবা মহাবীর ফোগতও।

কমনওয়েলথ গেমসে সোনাজয়ী কুস্তিগির ববিতা। ‘দ্রোণাচার্য’ পুরস্কার পেয়েছেন মহাবীর। বছর তিনেক আগে মহাবীর ও তাঁর মেয়েদের লড়াইয়ের কাহিনি নিয়েই তৈরি হয়েছিল আমির খানের ‘দঙ্গল’ ছবি। আর আজ নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহের নেতৃত্বের ভূয়সী প্রশংসা করে দিল্লিতে বিজেপির সদর দফতরে এসে নতুন ইনিংস শুরু করলেন তাঁরা। হরিয়ানার ভোটে বিজেপির প্রার্থীও হতে পারেন ববিতা। বিজেপিতে আসার আগে হরিয়ানার ‘জননায়ক জনতা পার্টি’তে ছিলেন মহাবীর। কিন্তু বালাকোট অভিযান ও ৩৭০ অনুচ্ছেদ বিলোপের ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর সাহসিকতার তারিফ করে আজ এলেন বিজেপিতে। ববিতাও বললেন, ‘‘নরেন্দ্র মোদীর ভক্ত আমি। দেশের জন্য অনেক ভাল কাজ করছেন তিনি। আমার মনে হয়, সকলেই এ দলে যোগ দিতে চাইবেন।’’

ববিতাকে বিজেপিতে আনার জন্য ক্রীড়ামন্ত্রী কিরেণ রিজিজুকে দলের সদর দফতরে নিয়ে আসা হয়। মন্ত্রী বলেন, ‘‘ক্রীড়ামন্ত্রী হিসেবে তাঁকে যতটা সম্ভব ব্যবহার করার চেষ্টা করব।’’ বিজেপি বলছে, হরিয়ানায় বিধানসভা ভোট দু’মাস পরে। ববিতাকে সামনে রেখে যুবাদের কাছে টানার চেষ্টা হবে। মহাবীরকে কাজে লাগানো হবে ‘বেটি বাঁচাও, বেটি পড়াও’ অভিযানে। যে ভাবে হাজারো প্রতিকূলতা সত্ত্বেও মহাবীর ফোগত নিজের মেয়েদের মাথা উঁচু করে বাঁচতে শিখিয়েছেন, সেটি দৃষ্টান্ত। হরিয়ানায় পুরুষের তুলনায় মহিলার সংখ্যা কম, সেখানে এঁদের বার্তা ভোটে কাজ দেবে।

ক’দিন আগে কাশ্মীরি মেয়েদের নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মনোহরলাল খট্টরের মন্তব্যে বিতর্ক হয়েছিল। ববিতা বলেন, ‘‘তিনি মেয়েদের বিষয়ে অপমানজনক কিছু বলেননি। সংবাদমাধ্যমে ভুল ব্যাখ্যা হচ্ছে।’’