দাউ দাউ করে জ্বলছে এক যুবক। সেই দৃশ্য দেখতে ভিড় করছে পথচলতি মানুষজন। তাদের সঙ্গে যোগ দিতে দেখা গেল জিআরপি কর্মীদেরও। কিন্তু, কেউ একটি বারের জন্য এগিয়ে এলেন না যুবকটিকে বাঁচাতে। উল্টে নিজেদের মোবাইল থেকে ছবি তুলতে ব্যস্ত সকলে। গত শনিবার এমনই অমানবিক দৃশ্যের সাক্ষী থাকল দিল্লির শকুরবস্তি রেল স্টেশন।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা ‘ইন্ডিয়া টুডে’-কে জানিয়েছেন, শনিবার বিকেলের দিকে উদ্দেশ্যহীন ভাবে রেললাইনে ঘুরতে দেখা যাচ্ছিল ওই শিখ যুবককে। সন্ধে ৬টা নাগাদ হঠাৎ তিনি ব্যাগ থেকে কেরোসিন বার করে গায়ে ঢেলে দেশলাই জ্বালিয়ে দেন। তার পরই সাহায্যের জন্য চিৎকার করতে থাকেন। যদিও তাঁকে সাহায্যের জন্য কেউ এগিয়ে আসেনি। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় বছর কুড়ির ওই অজ্ঞাতপরিচয়ের যুবকের।

মৃত্যুর পর যুবকের দেহ নিয়ে দিল্লি পুলিশ এবং জিআরপি-র মধ্যে টানাপড়েন শুরু হয়। যার ফলে প্রায় তিন ঘণ্টা স্টেশনেই পড়ে থাকে দগ্ধ দেহ। ডিসিপি (উত্তর-পশ্চিম) আসলাম খান জানান, যেহেতু স্টেশনে এই ঘটনা ঘটেছে, ফলে বিষয়টি দেখা উচিত জিআরপি’র।

আরও পড়ুন: হাদিয়ার স্বামীর আইএস যোগ ছিল, বলছে এনআইএ

আরও পড়ুন: কঠিন সময়ে রূপাণীকে বাঁচাতে প্রচারে স্ত্রী-পুত্র

অন্য দিকে, ডিসিপি রেল পারভেজ আহমেদের দাবি, রেললাইনে ওই যুবকের দেহ ছিল না। ফলে স্থানীয় পুলিশই এই ঘটনার তদন্ত করবে। যদিও, শেষ পর্যন্ত জিআরপি-ই দেহটি মর্গে নিয়ে যায়।