• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

দেশ

স্বাস্থ্যে সেরা কেরল, সবচেয়ে খারাপ উত্তরপ্রদেশ, পশ্চিমবঙ্গ...

শেয়ার করুন
১৩ 1
রাজ্যগুলির স্বাস্থ্য ব্যবস্থার তুলনামূলক তালিকা প্রকাশ করল নীতি আয়োগ। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক এবং বিশ্ব ব্যাঙ্কের সঙ্গে যৌথ ভাবে নীতি আয়োগের তৈরি এই রিপোর্টের নাম ‘হেলদি স্টেটস’। রিপোর্টে বড় ২১টি রাজ্যের মধ্যে শীর্ষে কেরল। তালিকায় সবচেয়ে নিচে উত্তরপ্রদেশ। পশ্চিমবঙ্গের স্থান ১১।
১৩ 2
বড় রাজ্য, ছোট রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল এই তিন ভাগে ভাগ করে তালিকা প্রকাশ করেছে নীতি আয়োগ। বিবেচনায় রাখা হয়েছে ২৩টি সূচক। সেগুলি বিচার করে নম্বর দেওয়া হয়েছে। মূল ভিত্তি হিসেবে ধরা হয়েছে ২০১৫-১৬ সাল (বেস ইয়ার)। সর্বশেষ বছর (রেফারেন্স ইয়ার) ২০১৭-১৮।
১৩ 3
রিপোর্ট অনুযায়ী, বড় রাজ্যগুলির মধ্যে সবচেয়ে ভাল স্বাস্থ্য ব্যবস্থা রয়েছে দক্ষিণের রাজ্য কেরলে। প্রাপ্ত নম্বর ৭৬.৫৫। কেরলের পরেই স্থান পেয়েছে অন্ধ্রপ্রদেশ এবং তার পর মহারাষ্ট্র।
১৩ 4
এর পর তালিকায় ক্রমান্বয়ে এসেছে গুজরাত, পঞ্জাব, হিমাচল প্রদেশ, জম্মু কাশ্মীর, কর্নাটকের মতো রাজ্য। পশ্চিমবঙ্গ থেকে তামিলনাড়ু, বিশেষ করে ভেলোরে বহু মানুষ চিকিৎসা করাতে যান। কিন্তু নীতি আয়োগের তালিকায় সেই তামিলনাড়ু কিন্তু তালিকায় ৯ নম্বরে।
১৩ 5
সম্প্রতি জুনিয়র ডাক্তারদের ধর্মঘটের জেরে রাজ্যের স্বাস্থ্যব্যবস্থার হৃদস্পন্দনই বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। ফেয়ার প্রাইস মেডিসিন শপ, স্বাস্থ্যসাথীর মতো প্রকল্প, জেলায় জেলায় সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল তৈরি হয়েছে পশ্চিমবঙ্গে। তবু অন্তত নীতি আয়োগের তালিকায় সেই প্রতিচ্ছবি ফুটে ওঠেনি। পশ্চিমবঙ্গের স্থান ১১।
১৩ 6
২০১৭ সালে উত্তরপ্রদেশের গোরক্ষপুর হাসপাতালে অক্সিজেনের অভাবে মৃত্যু হয়েছিল ৬৩ শিশুর। এ ছাড়াও নানা কারণে মাঝেমধ্যেই শিরোনামে উঠে আসে উত্তরপ্রদেশ। নীতি আয়োগের রিপোর্টে যোগী আদিত্যনাথের রাজ্য সবচেয়ে নীচে। অর্থাৎ স্বাস্থ্য ব্যবস্থার হাল সবচেয়ে খারাপ উত্তরপ্রদেশে।
১৩ 7
এনসেফ্যালাইটিসে দেড় শতাধিক শিশুর মৃত্যু হয়েছে বিহারে। তার মধ্যেই নীতি আয়োগের ‘স্বাস্থ্যবান রাজ্য’-এর তালিকায় বিহারের স্থান উত্তরপ্রদেশের উপরেই। অর্থাৎ সবচেয়ে খারাপ উত্তরপ্রদেশের এক ধাপ উপরে।
১৩ 8
এর পর নীচের দিক থেকে অর্থাৎ খারাপ পারফরম্যান্সের বিচারে বিহারের উপরেই রয়েছে মধ্যপ্রদেশ। তার পর ক্রমান্বয়ে উপরের দিকে এসেছে উত্তরাখণ্ড, রাজস্থান, অসম, ঝাড়খণ্ড ছত্তীসগঢ়ের মতো রাজ্য।
১৩ 9
ছোট রাজ্যের মধ্যে নীতি আয়োগ অন্তর্ভুক্ত করেছে ৮টি রাজ্যকে। তালিকায় শীর্ষ মিজোরাম। তার পর ক্রমান্বয়ে এসেছে মণিপুর, মেঘালয়, গোয়া, সিকিম, ত্রিপুরা এবং অরুণাচল। তালিকায় সবচেয়ে নিচে নাগাল্যান্ড।
১০১৩ 10
সাতটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের মধ্যে চিকিৎসা ও স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় রাজধানী দিল্লিকেও টপকে শীর্ষে চণ্ডীগড়। এর পর তালিকায় পর পর এসেছে দাদরা ও নগর হাভেলি, লক্ষদ্বীপ, পুদুচেরি। দিল্লির স্থান পঞ্চম। তার পর আন্দমান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ এবং সব শেষে দমন দিউ।
১১১৩ 11
এর পাশাপাশি গত তিন বছরে কোন রাজ্য কেমন উন্নতি করেছে, তার তুলনামূলক চিত্রও তুলে ধরা হয়েছে। তাতে উঠে এসেছে, মোটামুটি সব ক্ষেত্রেই সাতটি রাজ্য স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় ভাল উন্নতি করেছে। এই তালিকায় সবচেয়ে উপরে অন্ধ্রপ্রদেশ। এর পর মহারাষ্ট্র, গুজরাত, হিমাচল প্রদেশ, জম্মু-কাশ্মীর, কর্নাটক এবং তেলঙ্গানা।
১২১৩ 13
স্বাস্থ্য ব্যবস্থার তালিকায় সবচেয়ে নিচে থাকা ছ’টি রাজ্যের মধ্যে পাঁচটিতেই স্বাস্থ্য ব্যবস্থার অবনতি হয়েছে। সবচেয়ে অবনতি হয়েছে উত্তরপ্রদেশে। তার পর রয়েছে বিহার, ওড়িশা, মধ্যপ্রদেশ এবং উত্তরাখণ্ড।
১৩১৩ 14
এই নিয়ে ‘স্বাস্থ্যবান রাজ্য’— এর দ্বিতীয় রিপোর্ট বা তালিকা প্রকাশ করল নীতি আয়োগ। ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারিতে প্রকাশিত হয়েছিল প্রথম রিপোর্ট।

Advertisement

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
বাছাই খবর
আরও পড়ুন