Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৮ অগস্ট ২০২২ ই-পেপার

URL Copied

চিত্র সংবাদ

Niharika Konidela: তিনিই নাকি প্রভাসের হবু স্ত্রী! মাদকপার্টিতে আটক হয়ে আবারও শিরোনামে চিরঞ্জীবীর ভাইঝি

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ০৬ এপ্রিল ২০২২ ০৯:১৪
আবারও শিরোনামে দক্ষিণী ছবির সুপারস্টার চিরঞ্জীবীর ভাইঝি নীহারিকা কোনিডেলা। হায়দরাবাদের একটি অভিজাত হোটেলের পাবে মাদকপার্টিতে গিয়েছিলেন। সেখানে আটক হওয়া ১৪৪ জনের মধ্যে নীহারিকাও রয়েছেন। যদিও তাঁর বাবা তথা সুপারস্টার নাগা বাবুর দাবি, মেয়ে নির্দোষ। তাঁকে নিয়ে অযথা জল্পনা করা হচ্ছে।

এর আগেও নাগা বাবুর মেয়েকে নিয়ে হইচই কম হয়নি। কয়েক বছর আগে দক্ষিণী ছবির সুপারস্টার প্রভাসের সঙ্গে তাঁর বিয়ের গুঞ্জনে মেতেছিলেন অনেকে। সেটি ছিল ২০১৮ সাল। তবে সে সময় নীহারিকার কাকা চিরঞ্জীবীই জানিয়েছিলেন যে গোটাটাই ভুয়ো খবর।
Advertisement
শেষমেশ প্রভাসের সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধেননি নীহারিকা। ২০২০ সালের ডিসেম্বরে তিনি বিয়ে করেন গুন্টুরের আইজি জে প্রভাকর রাওয়ের ছেলে চৈতন্য জে ভি-কে। সেই বিয়ে নিয়ে সরগরম ছিল সংবাদমাধ্যমের একাংশ।

নীহারিকা এবং চৈতন্যের বিয়েতে যেন চাঁদের হাট বসেছিল। রাজস্থানের উদয়পুরে সেই অনুষ্ঠানে তাঁর তুতো ভাইরাও এসেছিলেন। কোভিডকালে বিয়ের অনুষ্ঠান হওয়ায় অতিথির সংখ্যা কম রাখতে হয়েছিল। ফলে ওই বিয়েতে মোটে ১২০ জন অতিথি হাজির হয়েছিলেন।
Advertisement
তবে কোভিডের বিধিনিষেধ মেনে উদয়পুরের উদয়বিলাস প্যালেসে তুতো বোন নীহারিকার বিয়ের অনুষ্ঠানে গিয়েছিলেন অল্লু অর্জুন, রাম চরণদের মতো সুপারস্টারেরা। ফলে মিডিয়ার ক্যামেরা যেন নীহারিকার বিয়ের অনুষ্ঠানের দিকেই তাক করেছিল।

বাবা-কাকা-তুতো ভাইয়েরা প্রায় সকলেই ছবির জগতের বাসিন্দা। ২৮ বছরের নীহারিকাও যে একই পথে পা বাড়াবেন, তা মোটামুটি নিশ্চিত ছিল। তেলুগু ছবিতে অভিনয়ের মাধ্যমে কেরিয়ার শুরু করেছিলেন নীহারিকা।

তবে ২০১৬ সালে ‘ওকা মানাসু’-তে অভিষেকের পর থেকে এখনও পর্যন্ত মাত্র পাঁচটি ছবিতে কাজ করেছেন। তার মধ্যে একটি তামিল ছবিও রয়েছে।

তামিল এবং তেলুগু ছবিতে অভিনয় করা ছাড়া একটি প্রযোজনা সংস্থাও খুলেছেন নীহারিকা। ২০১৫ সালে সেটির যাত্রা শুরু হয়েছিল। ইতিমধ্যেই টেলিভিশনের জন্য গুটি চারেক অনুষ্ঠানের প্রযোজনা করে ফেলেছে তাঁর সংস্থা ‘পিঙ্ক এলিফ্যান্ট পিকচার্স’। এ ছাড়া টিভিতে তাঁকে সঞ্চালনার কাজেও দেখা গিয়েছে।

আজকাল অবশ্য নীহারিকার কেরিয়ারের বদলে তাঁর ‘কীর্তি’ নিয়েই বেশি আলোচনা হচ্ছে। হায়দরাবাদের অভিজাত এলাকা বানজারা হিলসের একটি পাবে রাত ৩টের সময় হানা দিয়েছিল পুলিশ। সেখান থেকে কোকেন-সহ একাধিক নিষিদ্ধ মাদক উদ্ধার করেছেন হায়দরাবাদ সিটি পুলিশ।

মেয়েকে আটক করা হলেও নেটমাধ্যমে নাগা বাবুর দাবি, এ সব ‘অবাঞ্ছিত জল্পনা’ ছড়াবেন না। এবং পুলিশও নাকি স্বীকার করেছে যে পার্টিতে নীহারিকা থাকলেও তাঁর কোনও দোষ নেই।

চলতি মাসের গোড়ায় ওই পার্টি থেকে আটক ৩৩ জনের মধ্যে রয়েছেন নীহারিকা। তবে মেয়ে যে নির্দোষ, তা মনে করেন নাগা বাবু। সংবাদমাধ্যমে এ দাবিও করেছেন তিনি।

মেয়ের সমর্থনের একটি বিবৃতিও প্রকাশ করেছেন নাগা বাবু। একটি ভিডিয়োবার্তায় তাঁর দাবি, ‘‘আমার মেয়ে একটি পাঁচতারা হোটেলে ৩ এপ্রিল উপস্থিত ছিল। নির্দিষ্ট সময়ের পরেও ওই হোটেলের পাব খোলা ছিল বলে ম্যানেজমেন্টকে দায়ী করেছে পুলিশ। যদিও পুলিশ এটা জানিয়েছে যে আমার মেয়ে (মাদক-কাণ্ডে) কোনও ভাবে জড়িত নয়। যে মাদক উদ্ধার করা হয়েছে তার সঙ্গে আমার মেয়ের কোনও সম্পর্ক নেই।’’