ইউরো কোয়ালিফায়ার্সে বেলজিয়াম, নেদারল্যান্ডস— দু’দলই জিতল ৪-০ গোলে। রোমেলু লুকাকুরা হারালেন স্কটল্যান্ডকে। ডাচরা জিতল এস্তোনিয়ার বিরুদ্ধে। আগের ম্যাচেই হামবুর্গে নেদারল্যান্ডসের কাছে হারলেও সোমবার জিতেছে জার্মানি। য়োয়াকিম লো-র দল ২-০ হারিয়েছে উত্তর আয়ারল্যান্ডকে।

ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে এক নম্বরে থাকা রবের্তো মার্তিনেজের বেলজিয়াম কিন্তু স্কটল্যান্ডের বিরুদ্ধে খুব ভাল খেলতে পারেনি। তবু হ্যাম্পেডন পার্কে তারা ৪-০ জিতেছে এবং নিজেদের গ্রুপে (গ্রুপ ওয়ান) এক নম্বর স্থান ধরে রেখেছে ছ’ম্যাচের সব ক’টিতেই জিতে। গ্লাসগোয় খেলার ৯ মিনিটেই গোল করে বেলজিয়ামকে এগিয়ে দেন ইন্টার মিলানের স্ট্রাইকার লুকাকু। দেশের হয়ে এটা তাঁর ৪৯ তম গোল। ৩২ মিনিটের মধ্যে বেলজিয়ামের হয়ে আরও দু’টি গোল করেন থোমাস ভার্মালিন ও টবি অ্যাডওয়াইরেল্ড। প্রথম তিনটি গোলই কিন্তু হয়েছে ম্যাঞ্চেস্টার সিটির মিডফিল্ডার কেভিন দ্য ব্রুইনের পাস থেকে। ব্রুইন নিজেও দলের চতুর্থ গোলটি করেন খেলার ৮২ মিনিটে। ম্যাচের পরে তিনি বলেন, ‘‘বিশ্বমানের ফুটবল খেলতে পারিনি আমরা। কিন্তু যে’টা দরকার অর্থাৎ গোল করে ম্যাচটা জেতা, সেটা কিন্তু ঠিকঠাকই করেছি।’’ রাশিয়া বিশ্বকাপে তৃতীয় স্থান পায় বেলজিয়াম। পরিস্থিতি যা তাতে কোনও ভাবেই তাদের মূলপর্বে খেলা আটকাচ্ছে না। ব্রুইনও বলেছেন, ‘‘আজকের জয়ের অর্থ একটাই। আমরা যোগ্যতা অর্জন করছি। সেটাই এই মুহূর্তে সব চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।’’ এই গ্রুপে দু’নম্বর রয়েছে রাশিয়া। সোমবার যারা ১-০ জিতেছে কাজ়াখস্তানের বিরুদ্ধে।

জার্মানিকে হারিয়ে আসা নেদারল্যান্ডসের জয়ে সোমবার নায়ক একজনই। রায়ান বাবেল। এই প্রথম দেশের হয়ে কোনও ম্যাচে তিনি জোড়া গোল করলেন। এস্তোনিয়ার বিরুদ্ধে বাবেল গোল করেন ১৭ ও ৪৭ মিনিটে। অন্য দুই গোলদাতা মেম্ফিস দেপাই এবং জর্জিনিয়ো ওয়াইনালডাম। সি গ্রুপে ১২ পয়েন্ট করে পেয়ে প্রথম ও দ্বিতীয় স্থানে আছে যথাক্রমে জার্মানি এবং উত্তর আয়ারল্যান্ড। সেখানে নেদারল্যান্ডসের পয়েন্ট ৯। ডাচরা অবশ্য একটি ম্যাচ (চারটি) কম খেলেছে। ১০ অক্টোবর নেদারল্যান্ডস নিজেদের দেশে খেলবে আইরিশদের বিরুদ্ধে।