বিশ্বকাপার জনি আকোস্তার নাম তো নেই-ই। পরের মরসুমের জন্য আলেসান্দ্রো মেনেন্দেসের তালিকায় নেই কাশিম আইদারা এবং টোনি ডোভালের নামও। আর এনরিকে এসকুয়েদাকে তো আগেই ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

সূত্রের খবর, ইস্টবেঙ্গলের স্প্যানিশ কোচ নতুন মরসুমের জন্য গোপনে যে তালিকা তুলে দিয়েছেন  বিনিয়োগকারী সংস্থার কর্তাদের হাতে তাতে বর্তমান দলের দুই বিদেশির নাম আছে। এঁরা হলেন খাইমে সান্তোস কোলাদো এবং বোরখা গোমেস পেরেস। নতুন বছরে আলেসান্দ্রো যে ভাবে দল গঠনের কথা কর্তাদের জানিয়েছেন, তাতে ছ’জন বিদেশির মধ্যে  দু’জন স্ট্রাইকার, দু’জন স্টপার এবং দু’জন সেন্ট্রাল মিডফিল্ডার রাখতে চাইছেন। পরিস্থিতি এখন পর্যন্ত যা, তাতে চার জন নতুন বিদেশি আসছেন ইস্টবেঙ্গলে। আইএসএল না কি আই লিগ, কী খেলবে ইস্টবেঙ্গল তা এখনও নিশ্চিত নয়। সেটা দেখেই বিদেশি নেওয়া হবে বলে খবর।

শুধু বিদেশি নয়, স্থানীয় ফুটবলারদের অনেককেই নতুন মরসুমে রাখতে নারাজ আলেসান্দ্রো।  গোলকিপার পজিসনে উবেইদ সি কে-কে রাখছেন না তিনি। রক্ষিত দাগার ও মির্শাদ মিচুর সঙ্গে ক্লাবের অ্যাকাডেমির এক গোলকিপার অয়ন রায়কে পছন্দ হয়েছে তাঁর। স্টপারে তাঁর পছন্দ দুই সিংহ— সালামরঞ্জন এবং মেহতাব। সাইড ব্যাক পোজিশনে কমলপ্রীত সিংহ, লালরাম চুলোভা, সামাদ আলি মল্লিক এবং মনোজ মহম্মদকে রাখতে চান তিনি। জানা গিয়েছে, মাঝমাঠে লালরিনডিকা রালতে, লালদানমাউইয়া রালতে, ব্রেন্ডন ভানলালরেমডিকাকে রাখা হয়েছে তালিকায়। স্ট্রাইকারে জবি জাস্টিনের সঙ্গে এক জন ভাল ভারতীয় স্ট্রাইকার চেয়েছেন আলেসান্দ্রো।

মোট সাতাশ জনের দল চাইছেন আলেসান্দ্রো। পুরনোদের মধ্যে বারোজনকে রেখে ক্লাবের অ্যাকাডেমি থেকে নেওয়া হবে গোলকিপার-সহ তিন জন। বাকি ছয় জন নতুন ফুটবলার। 

সুপার কাপ বা অন্য বিষয় নিয়ে মিল না হলেও, দল গঠনের ক্ষেত্রে বিনিয়োগকারী সংস্থার সঙ্গে লাল-হলুদ কর্তারা একসঙ্গে নেমেছেন। জবি জাস্টিনকে রেখে দেওয়ার ক্ষেত্রে ক্লাব কর্তারাই প্রধান ভূমিকা নিয়েছেন। কোচের যে তালিকা বিনিয়োগকারীরা ক্লাব কর্তাদের হাতে তুলে দিয়েছেন তা নিয়ে আলোচনায় বসেছিলেন লাল-হলুদ কর্তারা। কিন্তু বেশির ভাগ ফুটবলারের কাছেই আইএসএলের বিভিন্ন ফ্র্যাঞ্চাইজির বড় টাকার প্রস্তাব রয়েছে। ইস্টবেঙ্গলের ফুটবল বিভাগের সঙ্গে যুক্ত এক কর্তা বললেন, ‘‘সালামরঞ্জন, চুলোভা-সহ অনেকের কাছেই আইএসএলের ক্লাবের প্রস্তাব আছে। চেষ্টা চলছে কোচের তালিকায় থাকা ফুটবলারদের রেখে দেওয়ার। কথা তো চলছে, দেখা যাক কী হয়?’’ কোচের পছন্দের ফুটবলার কাউকে না রাখা গেলে নতুন ফুটবলার নেওয়া হবে। তবে ইন্ডিয়ান অ্যারোজের যে ফুটবলারদের পছন্দ হয়েছে ইস্টবেঙ্গল কোচের, তাঁদের প্রায় সবাই ইতিমধ্যেই চুক্তিবদ্ধ। ফলে মোহনবাগানের অরিজিৎ বাগুই, শেখ ফৈয়জদের মতো ফুটবলারদের নিতে হবে লাল-হলুদ কর্তাদের। 

গত মরসুমে খেলা চার জন বিদেশি ছাড়া পুরো দলই গড়েছিলেন কর্তারা। এ বার আলেসান্দ্রো নিজেই দল গড়ছেন। বিদেশি তিনিই বাছবেন। দল গঠন নিয়ে বিনিয়োগকারী সংস্থার কেউ মুখ খুলছেন না। বলে দিচ্ছেন, ‘‘কোচ তালিকা জমা দিয়েছেন। কোনও খবর থাকলে ই-মেল করে তা জানিয়ে দেওয়া হবে।’’