• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ক্রোমাই কাঁটা হতে পারেন বোরখাদের

Kromah
ঘানেফো আনসুমানা অগোগো ক্রোমা।—ফাইল চিত্র।

Advertisement

মোহনবাগান মাঠে গিয়ে এ বারের কলকাতা লিগে সালভা চামোরোদের ম্লান করে জোড়া গোল রয়েছে তাঁর। সেই ঘানেফো আনসুমানা অগোগো ক্রোমার দুরন্ত ফুটবলের সৌজন্যেই মোহনবাগানের বিরুদ্ধে ৩-০ জিতেছিল পিয়ারলেস।

সোমবার ইস্টবেঙ্গলের বিরুদ্ধে কলকাতা লিগে নামছে ক্রোমার দল। এ বার কী হবে? এ বার কী হবে? জানতে চাইলে লাইবেরিয়ান ফুটবলার রবিবার দুপুরে বলে দিলেন, ‘‘ইস্টবেঙ্গলের বিরুদ্ধে গত বছর লিগেও গোল করেছিলাম। ওদের বিপক্ষে ভাল খেলার প্রেরণা পাই। সোমবারও চেষ্টা থাকবে গোল করে পিয়ারলেসকে জেতানোর।’’

ক্রোমা যখন একথা বলছেন, তখন ইস্টবেঙ্গল কোচ আলেসান্দ্রো মেনেন্দেস ব্যস্ত রাজারহাটের হোটেলে ভিডিয়ো সেশনে। যেখানে লাল-হলুদ শিবিরের স্পেনীয় কোচ ছাত্রদের খুঁটিয়ে দেখাচ্ছিলেন তাঁর নিজের দল ও বিপক্ষ পিয়ারলেসের দুর্বলতা ও শক্তি। প্রথমে হল, ইস্টবেঙ্গলের শেষ তিন ম্যাচের বিশ্লেষণ। তার পরে ফুটবলারদের বোঝালেন, পিয়ারলেসের কোন দুর্বল জায়গায় আঘাত হানতে হবে। 

পিয়ারলেসের বিরুদ্ধে নামার আগে গত ৪৮ ঘণ্টায় মাঠে বল নিয়ে অনুশীলনই করালেন না ইস্টবেঙ্গল কোচ। যা নিয়ে সরব আলেসান্দ্রোর অনেক সমালোচকই। কিন্তু তা পাত্তা দিতে নারাজ স্পেনীয় কোচ। ঘনিষ্ঠ মহলে জানিয়েছেন, ফুটবলারদের ফিটনেস ও দক্ষতা নিয়ে চিন্তা নেই। কিন্তু বৃষ্টিভেজা মাঠে তিন দিনের ব্যবধানে খেলা বলে ক্লান্ত হয়ে পড়ছেন ফুটবলাররা। তাই কমলপ্রীত সিংহদের মানসিক ভাবে চাঙ্গা রাখতেই শনি ও রবিবার বল নিয়ে নামেনি ইস্টবেঙ্গল। প্রস্তুতি সেরেছে হোটেলেই। যেখানে সাঁতার ও জিমের মাধ্যমে ফুটবলারদের চাঙ্গা রেখেছেন তাঁদের স্পেনীয় গুরু। পাঁচ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে এই মুহূর্তে লিগ তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে পিয়ারলেস। সমসংখ্যক ম্যাচে ইস্টবেঙ্গলের পয়েন্টও সমান। তবে গোল পার্থক্যে মার্তি ক্রেসপিরা রয়েছেন চার নম্বরে। 

পিয়ারলেসের ১৬ গোলে ৮টিই করেন ক্রোমা। তিনিই লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতা। রয়েছেন অ্যান্টনি উলফ, এডমন্ডের মতো বিদেশি। লক্ষ্মীকান্ত মান্ডি, মনতোষ চাকলাদারের মতো ময়দানে চেনা মুখেরও ভিড় জহর দাসের দলে। তবে ইস্টবেঙ্গল কোচ এ দিন বোরখা গোমেস পেরেস, মার্তি ক্রেসপি ও কাশিম আইদারাদের সঙ্গে বেশি সময় কাটিয়েছেন ক্রোমাকে নিষ্ক্রিয় করার ব্যাপারেই। ক্রোমাকে নিয়ে দলের ভিতর যাতে আতঙ্ক তৈরি না হয়, তার জন্য কোলাদো, বিদ্যাসাগর সিংহদের বুঝিয়েছেন, পিয়ারলেস অপরাজেয় নয়। লিগে সাদার্ন সমিতি ও এরিয়ানের বিরুদ্ধে পয়েন্ট নষ্ট করেছে। যে দুই দলকেই হারিয়েছেন বিদ্যাসাগররা। লাল-হলুদ শিবির সূত্রে খবর, দলে কোনও চোট-আঘাত নেই। পিয়ারলেসের বিরুদ্ধে দেখা যেতে পারে নবাগত বিদেশি হুয়ান মেরা গঞ্জালেসকে।

পিয়ারলেস কোচ জহর দাস আবার গুরুত্ব দিচ্ছেন কোলাদোকে, ‘‘কোলাদো দুর্দান্ত। নবাগত গঞ্জালেসও বেশ ভাল। তবে আমাদের ক্রোমারাও ওদের চিন্তায় রাখবে। বৃষ্টিভেজা মাঠে ইস্টবেঙ্গল মাঠে মাটিতে বল রেখে খেলা মুশকিল হয়। সাদার্নের বিরুদ্ধে ওরা দু’টো গোলই করেছিল হেডে। মাথায় রাখতে হবে ইস্টবেঙ্গল যেন বিদ্যাসাগরদের জন্য বক্সে বল ভাসিয়ে দিতে না পারে। তা হলেই অর্ধেক কাজ হয়ে যাবে। বাকি কাজটা করার জন্য ক্রোমারা তো রয়েছেই।’’

সোমবার: ইস্টবেঙ্গল বনাম পিয়ারলেস (ইস্টবেঙ্গল, দুপুর ৩টে)। সরাসরি সাধনা টিভিতে।

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন