• বাবুল সুপ্রিয়
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

চুনীদাকে গান স্যালুট না দিয়ে ঠিক হল না

Chuni goswami
চুনী গোস্বামী। ফাইল চিত্র।

গান স্যালুট দেওয়া হল না, বঞ্চিত করা হল, বাঙালির গর্ব আমাদের খেলাধুলা জগতের ‘উত্তমকুমার’ চুনী গোস্বামীকে! যাঁকে বিষেণ সিং বেদী ভারতবর্ষের সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ ক্রীড়া-প্রতিভা বলেছেন। ফুটবল ছাড়াও ক্রিকেট, টেনিস, হকিতেও যিনি ছিলেন ‘গ্ল্যামারাসলি’ সাবলীল।

প্রথমে ভেবেছিলাম কিছু লিখব না— এমনিতেই এত গুরুতর সব অভিযোগ মাননীয়া দিদির বিরুদ্ধে যে, যাই লিখব রাজনীতির রং লাগবে তাতে। কিন্তু না লিখলে অন্যায় করা হতো এমন একজন প্রতিভার প্রতি, তাই মনে যা ‘ঘটছে’ তাই লিখলাম।

আমি কাউকে ছোট করতে চাই না। কিন্তু স্মৃতির পাতা একটু হাতড়ে দেখুন কাকে কাকে ইদানীং কালে গান স্যালুট দেওয়া হয়েছে আর নিজেরাই ভেবে দেখুন যে সেই তালিকায় চুনীদার নাম থাকা উচিত ছিল কি না!

এই লকডাউনের সময়ে মোহনবাগান তাঁবুতে কেন মরদেহ নিয়ে যাওয়া হল না, কেনই বা এখানকার সব নিয়ম মেনেই শেষ শ্রদ্ধা জানাতে দেওয়ার সুযোগ দেওয়া হল না, সে বিতর্কে যাচ্ছি না। তার কারণ আমি তার মধ্যে কোনও অন্যায় দেখছি না। মুম্বই পুলিশও ঋষি কপূরের মরদেহ ওঁর বাড়ি না নিয়ে গিয়ে, সোজা শ্মশানে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছিল কপূর পরিবারকে আর তা-ই হয়েছিল। আমি বরঞ্চ বলব যে— এটা নিতান্তই আমাদের দুর্ভাগ্য যে ইরফান খান, পিকে, ঋষি কপূর ও চুনীদার মতো প্রতিভাদের শেষ শ্রদ্ধা জানানোর সুযোগ আমরা চিরতরে হারালাম কোভিড-১৯-এর রোষে। কিন্তু শ্মশানঘাটে গান স্যালুট তো দেওয়াই যেত। সেটা কেন দেওয়া হল না?

বলতে বাধ্য হচ্ছি যে— এটা সম্পূর্ণ ভাবে মাননীয়া মমতাদি এবং ক্রীড়ামন্ত্রী অরূপবাবুর ব্যর্থতা ও অমার্জনীয় একটি ত্রুটি। আর ময়দান কখনও আমাদের এই ভুল মাফ করবে না।

আরও পড়ুন: নেতৃত্বে গম্ভীর, দেখে নিন নাইট রাইডার্সের সেরা আইপিএল একাদশ

আরও পড়ুন: করোনা-পরীক্ষা দিয়ে মাঠে নামবেন মুলাররা

সরি চুনীদা, আপনার একটা আলাদা ‘ব্যাপার’ ছিল, বাঙালিরা যেটাকে ‘কেতা’ বলে। আর তাই হয়ত বিগত কয়েক বছরে যে ভাবে সের-দরে গান স্যালুট দিয়ে এটার মর্যাদার-কে ম্লান করে দেওয়া হয়েছে, সেটা দেখে, গান স্যালুট না নেওয়ার মধ্যেও সেই ‘কেতা’-র এক ঝলক দেখিয়ে গেলেন আপনি। আফটার অল আপনি ছিলেন আমাদের ময়দানের উত্তমকুমার। বা এটাও বলা যেতে পারে যে উত্তমকুমার ছিলেন টলিউডের চুনীদা। উত্তমকুমারের শেষ ছবি ‘ওগো বধূ সুন্দরী’-ও যেমন বক্স অফিসে উইনার ছিল, মাঠ ছাড়ার আগে শেষ টোকা দিয়ে, আপনিও একটা উইনিং গোল করে গেলেন! হয়ত মুচকি হেসে বলেও গেলেন ‘আরে কোনও ব্যাপার নয়, আমার ও সব লাগে না ভাই।’

(লেখক কেন্দ্রীয় পরিবেশ প্রতিমন্ত্রী)

(অভূতপূর্ব পরিস্থিতি। স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিয়ো আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, feedback@abpdigital.in ঠিকানায়। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।)

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন