নাটকীয় ভাবে টি-টোয়েন্টি সিরিজ জিতল নিউজিল্যান্ড। শুক্রবার সিরিজের দ্বিতীয় একদিনের ম্যাচে টানটান উত্তেজনার মধ্যে শেষ বলে জিতল কিউইরা। চার উইকেটে হারাল ভারতকে। একই সঙ্গে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে এগিয়ে গেল ২-০ ব্যবধানে। ফলে, রবিবারের ম্যাচ পরিণত হল নিয়মরক্ষায়।

বুধবার ওয়েলিংটনে সিরিজের প্রথম ম্যাচে ২৩ রানে জিতেছিল নিউজিল্যান্ডের মহিলা ক্রিকেট দল। সিরিজে সমতা ফেরানোর জন্য এদিন জিততেই হত হরমনপ্রীত কৌরের দলকে। কিন্তু ভারতীয় মহিলা ক্রিকেট দল প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত কুড়ি ওভারে ছয় উইকেট হারিয়ে তোলে ১৩৫ রান। স্মৃতি মন্ধানা ও জেমাইমা রডরিগেজ ছাড়া কেউ দুই অঙ্কের রান পাননি।

স্মৃতি ২৭ বলে করেন ৩৬। আর রডরিগেজ ৫৩ বলে করেন ৭২। যাতে ছিল ছয় বাউন্ডারি ও একটি ওভার-বাউন্ডারি। অধিনায়ক হরমনপ্রীত করেন মাত্র ৫। ৯.৪ ওভারে স্মৃতি যখন ফেরেন, তখন দুই উইকেটে ৭১ রান ছিল বোর্ডে। কিন্তু মিডল অর্ডারের ব্যর্থতায় আটকে যায় ভারত

আরও পড়ুন: ধোনির কেরিয়ারের এই লজ্জার রেকর্ড সম্পর্কে জানেন তো?​

আরও পড়ুন: টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে সর্বাধিক রানের জন্য রোহিতের চাই মাত্র ৩৫​

রান তাড়ায় নিউজিল্যান্ডকে টানলেন সুজি বেটস। তিনি ৫২ বলে করেন ৬২। কিউই মিডল অর্ডারও একসময় উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায়। ১০১ রানে তিন উইকেট থেকে ১৩১ রানে ছয় উইকেট হারিয়ে ফেলে তারা। শেষ বলে দরকার ছিল এক রান। যা করতে অসুবিধা হয়নি নিউজিল্যান্ডের।

সিরিজ হারার পর অধিনায়ক হরমনপ্রীত বলেন, “বোলারদের কৃতিত্ব দিতে হবে। আমরা বড় স্কোর তুলিনি। তবু বোলাররা হাল ছাড়েনি। অন্তত ২০ রান কম উঠেছে আমাদের। ভুলগুলো থেকে শিক্ষা নিতে হবে আমাদের। আরও ভাল খেলতে হবে।” প্রশ্ন অবশ্য থেকেই যাচ্ছে। ব্যাটিংয়ের হাল যখন বেহাল, তখন মিতালি রাজকে কেন বসিয়ে রাখা হচ্ছে বাইরে, ক্রিকেটমহলে বাড়ছে গুঞ্জন।

(আইসিসি বিশ্বকাপ হোক বা আইপিএল, টেস্ট ক্রিকেট, ওয়ান ডে কিংবা টি-টোয়েন্টি। ক্রিকেট খেলার সব আপডেট আমাদের খেলা বিভাগে।)