মাথায় বলের আঘাত পেয়ে মাঠ ছাড়তে হল অশোক ডিন্ডাকে। সোমবার ইডেনে বাংলার ‘সিমিউলেশন ট্রেনিং’ (ম্যাচের পরিস্থিতি অনুযায়ী অনুশীলন) চলাকালীন এই ভয়ঙ্কর ঘটনা ঘটে। যদিও দিনের শেষে ডিন্ডা জানিয়ে গিয়েছেন, চোট গুরুতর নয়। দু’দিন বিশ্রাম নিয়েই মাঠে ফিরবেন তিনি। 

ওপেনার বিবেক সিংহকে একটি ‘লো ফুলটস’ করেন ডিন্ডা। যা সোজা মারেন বাঁ হাতি ব্যাটসম্যান। হাত দিয়ে মাথা বাঁচানোর প্রয়াসে সফল হননি বঙ্গ পেসার। তাঁর হাতে বল লেগে আছড়ে পড়ে মাথায়। তখনই দু’পা পিছিয়ে মাটিতে শুয়ে পড়েন ডিন্ডা। কিছুক্ষণ শুয়ে থাকার পরে নিজেই উঠে বল করতে এগিয়ে যান। দু’টি বল করার পরে মাথা ঘুরে যায় তাঁর। মাঠ ছেড়ে বেরোতে বাধ্য হন তিনি। কিছুক্ষণের মধ্যেই কলকাতার এক বেসরকারি হাসপাতালে সি টি স্ক্যান করাতে নিয়ে যাওয়া হয় ডিন্ডাকে। বাংলার ফিজিয়ো পার্থব পটেল জানিয়েছেন, স্ক্যানের রিপোর্ট স্বাভাবিক। তিনি বলেন, ‘‘যে ডাক্তার ওকে দেখেছে তিনি জানিয়ে দিয়েছেন ভয়ের কারণ নেই। সব রিপোর্ট স্বাভাবিক। যত দিন পুরো সুস্থবোধ করছে, ওকে পর্যবেক্ষণে রাখা হবে।’’ 

ডিন্ডার চোটে আতঙ্ক তৈরি হয়েছিল গোটা শিবিরে। ব্যাটিং উপদেষ্টা ভিভিএস লক্ষ্মণও দৌড়ে গিয়েছিলেন বঙ্গ পেসারের শুশ্রূষার জন্য। উদ্বেগ তৈরি হয়েছিল কোচ অরুণ লালের মধ্যেও। বলে গেলেন, ‘‘খুব ভয় পেয়ে গিয়েছিলাম। মাথায় বল লাগার শব্দ মাঠের বাইরে থেকেও পাওয়া গিয়েছে। আমরা ভেবেছি রক্তপাত হতে পারে। কিন্তু দেখলাম স্বাভাবিক ভাবেই কথাবার্তা বলতে পারছে।’’ হাসপাতাল থেকে ফের ইডেনে আসেন ডিন্ডা। অনুশীলন না করলেও কোচ ও লক্ষ্মণের সঙ্গে দেখা করেন। বলে যান, ‘‘আমি একদম ঠিক আছি।’’ ডিন্ডার এই চোটের পরে আলোচনা শুরু হয়েছে ‘ফেস মাস্ক’ ব্যবহার করার। সৌরাষ্ট্রের পেসার জয়দেব উনাদকাটের টুইট, ‘‘বোলারদের জন্য ফেস মাস্ক ব্যবহার করার সময় বোধহয় এসে গিয়েছে।’’