নতুন বিতর্কে ইংল্যান্ডের বিখ্যাত টেলিভিশন ব্যক্তিত্ব পিয়ার্স মর্গ্যান। দু'বছর আগে ভারতের প্রাক্তন ওপেনার বীরেন্দ্র সহবাগের করা একটি টুইটের জবাব দিয়ে নতুন করে বিতর্কের জন্ম দিলেন তিনি।

ঘটনার সুত্রপাত বছর দুই আগে। ২০১৬ সালে রিও অলিম্পিকে ভারত দু'টি মেডেল জিততে সক্ষম হয়। পিভি সিন্ধু রুপোর মেডাল জিতেছিলেন। ব্রোঞ্জ পেয়েছিলেন সাক্ষী মালিক। সিন্ধু ও সাক্ষী দেশে ফিরলে তাঁদের জমকালো সংবর্ধনা দেওয়া হয়। এই বিষয়টি নিয়ে একটি ইংরেজি খবরের কাগজ ঘটা করে প্রথম পাতা জুড়ে একধিক স্টোরি করে।

এই খবরের কাগজের একটি ছবি পোস্ট করে মর্গান টুইটারে লিখেছিলেন ‘‘১.২ বিলিয়ন জনগণ ঘটা করে দু'টি হেরে যাওয়া মেডাল উদযাপন করছে। এটা কতটা লজ্জাজনক?"

মর্গ্যানের এই পোস্ট এক প্রকার অপমানকর ছিল ভারতীয়দের কাছে। এক জন ভারতীয় হিসেবে সহবাগ এর উত্তরে মর্গ্যানকে সেই সময়ে জানিয়েছিলেন, ‘‘আমরা অনেক ছোট ছোট খুশিও উপভোগ করতে করি। কিন্তু, যে দেশে ক্রিকেট আবিষ্কার হয়েছে, সেই ইংল্যান্ড এখনও কোনও বিশ্বকাপ জিততে পারেনি। যদিও আমরা ইতিমধ্যেই দু’ বার বিশ্বকাপ জিতেছি। এটাও কি লজ্জাজনক নয়?’’

আরও পড়ুন: সুপার ওভারে উত্তেজনা, শিষ্য নিশামের ছক্কা দেখে শেষ নিঃশ্বাস গুরুর

সে বার সহবাগের এই টুইটে যথেষ্ট শোরগোল পড়ে যায় নেট দুনিয়ায়। তবে তখন এর কোনও পাল্টা উত্তর মর্গ্যান না দিলেও এ বার ইংল্যান্ড ক্রিকেট বিশ্বকাপ জিতে যাওয়ার পরে উত্তর দিলেন। মঙ্গলবার দু'বছর আগে করা সহবাগের সেই পোস্টটি খুঁজে বের করে সেটাকে রিটুইট করে ছোট্ট একটি ক্যাপশন দিয়ে মর্গ্যান লেখেন ‘‘ও হে বন্ধু।’’ অর্থাৎ তিনি বীরুকে বুঝিয়ে দিলেন যে তিনি এখনও ভোলেননি সেই অপমান। এছাড়াও একটা প্রশ্ন ছুড়ে দিয়েছেন সহবাগের দিকে,  এবার তো ইংল্যান্ড বিশ্বকাপও জিতে গেল। এখন কী বলবে বন্ধু?

আরও পড়ুন: কেকেআর নয়, হায়দরাবাদের কোচ বিশ্বকাপ জয়ী বেইলিস

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নেওয়ার পরে সোশ্যাল মিডিয়ায় বিভিন্ন বিষয় নিয়ে মন্তব্য করে তারকা হয়ে উঠেছেন ‘নজফগড়ের নবাব’। বিভিন্ন প্রসঙ্গে সহবাগের করা বিভিন্ন পোস্ট বারবার খবরের শিরোনামে উঠে এসেছে।

মর্গ্যানের  খোঁচার জবাব এখনও দেননি বীরু। ওয়াকিবহাল মহলের মতে, সহবাগ সহজে কিছু ভোলেন না। খুব শীঘ্রই হয়তো তিনি সমুচিত জবাব দেবেন।