• সুমিত ঘোষ 
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

লকডাউনেও কেন পাল্টে গেল র‌্যাঙ্কিং, উষ্মা বিরাটদের দলে

Virat Kohli
বিরাট কোহালি। ফাইল চিত্র

প্রায় ৪২ মাস ধরে আইসিসি টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষে থাকার পরে বিরাট কোহালির ভারতের নীচে নেমে যাওয়া নিয়ে ক্রমশ চাপান-উতোর বাড়ছে। আইসিসি নতুন র‌্যাঙ্কিং প্রকাশ করেছে মে মাসের শুরুতে। সেই র‌্যাঙ্কিংয়ে দেখা যায়, শীর্ষে থাকা ভারত নেমে গিয়েছে তিন নম্বরে। শীর্ষে উঠে এসেছে অস্ট্রেলিয়া, দুই নম্বরে নিউজ়িল্যান্ড। 

ক্রিকেট ভক্তদের মনে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে, করোনাভাইরাস অতিমারির জেরে যখন বিশ্ব জুড়ে লকডাউন চলছে, প্রায় দু’মাস ধরে সব খেলাই বন্ধ, তখন র‌্যাঙ্কিং এমন নজিরবিহীন ভাবে পাল্টে গেল কী করে? লকডাউনের ঠিক আগে কোহালিরা নিউজ়িল্যান্ডে টেস্ট সিরিজে ০-২ হোয়াইটওয়াশ হয়েছিলেন। কিন্তু সেই সিরিজে হারের পরেও যে র‌্যাঙ্কিং প্রকাশিত হয়েছিল, তাতে কোহালিরাই এক নম্বরে ছিলেন।

কোহালিদের দলের অন্দরমহলেও অনেকে ফুঁসছেন। আইসিসি যুক্তি দিয়েছে যে, তাদের ‘সিস্টেমে আপডেট’ করার দরুণই সর্বশেষ র‌্যাঙ্কিংয়ে ভারত নেমে গিয়েছে তিনে, অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজ়িল্যান্ড উঠে এসেছে উপরে। কী সেই ‘সিস্টেম আপডেট’? না, ২০১৬ থেকে ২০১৭, এই পর্বটিকে বাদ দিয়েছে নিয়ামক সংস্থা। এই পর্বে ভারত জিতেছিল সব চেয়ে বেশি, ১২টি টেস্ট এবং হেরেছিল মাত্র একটি টেস্টে। যে কারণে দক্ষিণ আফ্রিকা এবং ইংল্যান্ডে টেস্ট সিরিজ হারলেও তারা এক নম্বরেই থেকে গিয়েছিল।

আরও পড়ুন: তুরস্কের টিভি সিরিয়ালে বিরাট কোহালি!

এ বার ২০১৭-র মে থেকে ২০২০ এপ্রিল পর্যন্ত পর্বকে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। এই সময়ের মধ্যে কোহালিরা ১১টি টেস্ট সিরিজ খেলে ৮টিতে জিতেছেন। অস্ট্রেলিয়া ৯টি সিরিজের মধ্যে জিতেছে ৪টিতে। তার পরেও অস্ট্রেলিয়া এগিয়ে যাওয়ার কারণ হিসেবে বলা হচ্ছে, তারা র‌্যাঙ্কিংয়ে উন্নত দলগুলির বিরুদ্ধে জিতেছে। ভারত সেখানে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, আফগানিস্তান, বাংলাদেশের বিরুদ্ধেও জিতেছে, যারা র‌্যাঙ্কিংয়ে ৮, ৯ এবং ১০ নম্বরে। ওয়াকিবহাল মহল ধরিয়ে দিচ্ছে, ভারত কিন্তু ঘরের মাঠে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধেও জিতেছে। আবার অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে প্রথম বার সিরিজ জেতার ইতিহাসও তৈরি করেছে। 

অধিনায়ক কোহালি এবং কোচ রবি শাস্ত্রী, দু’জনেই টেস্টের এক নম্বর হওয়াকে খুব গুরুত্ব দিয়ে এসেছেন বরাবর। টেস্ট ক্রিকেটের ভক্ত কোহালি বার বার বলেছেন, এক নম্বর র‌্যাঙ্কিং নিয়ে তাঁরা গর্বিত। বিশ্বস্ত সূত্রের খবর, দলের পক্ষ থেকে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে এ নিয়ে কথা বলা হতে পারে। খোঁজ নেওয়া হতে পারে সব নিয়মকানুন মেনেই কি আইসিসি এই র‌্যাঙ্কিংকে ‘আপডেট’ করেছে? ২০১৬-’১৭ মরসুমকে যে বাদ দেওয়া হল, তা কি নিয়ম মেনেই হল? বলা হচ্ছে, শীর্ষ র‌্যাঙ্কিং ফিরে পেতে গেলে কোহালিদের অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে টেস্ট সিরিজে হারাতে হবে। করোনভাইরাসের জেরে যে সিরিজ হবে কি না, তা-ই ঠিক নেই। এ দিকে আবার নতুন যে টেস্ট বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপ চালু হয়েছে, তাতে এক নম্বরে ভারত। কোহালিদের ৩৬০ পয়েন্ট। দুই নম্বরে থাকা অস্ট্রেলিয়ার পয়েন্ট ২৯৬। সব মিলিয়ে চূড়ান্ত বিভ্রান্তি।

ঘটনা হচ্ছে, আইসিসি প্রধান হিসেবে রয়েছেন এক ভারতীয়, প্রাক্তন বোর্ড প্রেসিডেন্ট শশাঙ্ক মনোহর। কিন্তু তাঁর আমলেই আইসিসি ও ভারতীয় বোর্ডের সম্পর্ক তলানিতে পৌঁছেছে।। এখন সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত সিওএ (কমিটি অফ অ্যাডমিনিস্ট্রেটর্স) চলে গিয়ে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়রা ক্ষমতায় এসেছেন। বোর্ডের পুরনো কর্তাদের মনোহর এবং আইসিসি-র বর্তমান রীতিনীতি নিয়ে প্রবল অ্যালার্জি রয়েছে। তার প্রধান কারণ, মনোহর এসে ভারতীয় বোর্ডের টাকা কমিয়ে দেন এবং আইসিসি-তে তাদের প্রভাব খর্ব করতে শুরু করেন। র‌্যাঙ্কিং বিতর্ক নিয়ে নতুন সংঘাত বাধলে অবাক হওয়ার থাকবে না।

আরও পড়ুন: আউটডোর অনুশীলন কবে, ভাবনা বোর্ডের

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন