• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ফিনিশার বলে কার্তিক-কে সাত নম্বরে নামান রোহিত

Rohit Sharma

কলম্বোয় বাংলাদেশকে হারিয়ে ভারতের ট্রফি জয়ের মাঝেও একটা প্রশ্ন কিন্তু উঠে পড়েছে। কেন অনভিজ্ঞ বিজয় শঙ্কর-কে আগে পাঠিয়ে দীনেশ কার্তিক-কে সাত নম্বরে নামানো হয়েছিল? ফাইনালের পরে সাংবাদিক বৈঠকে এসে যে প্রশ্নের জবাব দিয়ে যান রোহিত শর্মা। ভারত অধিনায়ক বলে যান, ‘‘আমি চেয়েছিলাম, দীনেশ যেন ফিনিশারের ভূমিকা পালন করে। সে জন্যই ওকে পরে নামানো।’’

বিজয় শঙ্কর যখন মুস্তাফিজুর রহমানের একের পর এক বল ফস্কাচ্ছিলেন, তখনই আফসোস শুরু হয়ে যায়, কার্তিক কোথায়? সোশ্যাল মিডিয়াতেও ছড়িয়ে পড়ে যে হাহুতাশ। ভারতীয় দর্শকের মতো কার্তিকও তখন খুশি হননি সাত নম্বরে ব্যাট করতে হবে জেনে। যে কথা সাংবাদিকদের সামনে বলে দেন স্বয়ং রোহিতই। ভারত অধিনায়কের কথায়, ‘‘আমি যখন আউট হয়ে ডাগআউটে ফিরি, তখন দীনেশ একটু হতাশ পড়েছিল ছ’নম্বরে ব্যাট করার সুযোগ না পেয়ে। আমি ওকে বলি, ‘তোকে ম্যাচ ফিনিশ করে আসতে হবে। সে জন্য পরে পাঠাচ্ছি। তোর যে দক্ষতা আছে, সেটা শেষ তিন-চার ওভারে কাজে লাগবে।’ ও তখন হতাশ হয়ে পড়লেও এখন নিশ্চয়ই খুশি হবে।’’

কার্তিক-কে ব্যাটিং অর্ডারে পরে পাঠানোর সিদ্ধান্তের প্রশংসা করেছেন সঞ্জয় মঞ্জরেকরের মতো প্রাক্তনও। মঞ্জরেকর টুইট করেন, ‘কার্তিক-কে পরে পাঠানোর সিদ্ধান্তটা আমার ভালই লেগেছে। আমার মনে হয়, ও সেরা খেলাটা তখনই খেলে, যখন কোনও কিছু না ভেবেই প্রথম বল থেকে মারতে হয়।’

ম্যাচের নায়ককে নিয়ে রোহিত আরও বলেন, ‘‘দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে দীনেশ দলের সঙ্গে ছিল। কিন্তু ও বেশি সুযোগ পায়নি ব্যাট করার। এখানে ফাইনালে যে ইনিংসটা খেলল দীনেশ, সেটা ওকে দারুণ আত্মবিশ্বাস জোগাবে।’’ কেন তিনি কার্তিক-কে ফিনিশার হিসেবে দেখছেন, তাও বলেছেন রোহিত। ‘‘ওর হাতে যে সব শট আছে, তা ওকে ম্যাচ শেষ করে আসতে সাহায্য করে। যেমন স্কুপ শট। যেটা রুবেল হোসেন-কে শেষ বলে মেরেছিল দীনেশ। ডেথ ওভারে ফাইন লেগ, মিড অফ বা শর্ট থার্ডম্যান রাখতেই হয়। তার ফলে যে জায়গাটা তৈরি হয়, সেটা কাজে লাগানোর দক্ষতা আছে দীনেশের।’’

আরও পড়ুন: ধোনির সঙ্গে বিশ্বকাপ যাত্রা প্রায় নিশ্চিত কার্তিকের

কার্তিক-কে পরে পাঠানোর পিছনে আরও একটা কারণ ছিল। রোহিতের ব্যাখ্যা, ‘‘আমি ভেবেছিলাম, মুস্তাফিজুর হয়তো ১৮ এবং ২০ নম্বর ওভার দু’টো করবে। ওই সময় এক জন অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান ক্রিজে চেয়েছিলাম আমরা। যে কারণেই দীনেশকে পরে পাঠানো।’’ রোহিত আরও যোগ করেন, ‘‘মুস্তাফিজুরের হাতে ভাল অফকাটার আছে। ওই পরিস্থিতিতে দীনেশই ওকে সামলানোর সেরা লোক হতো। ওর রাজ্য দল এবং আইপিএলে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের হয়ে এ রকম পরিস্থিতি থেকে আগেও ম্যাচ জিতিয়েছে ও।’’

কার্তিক যেখানে ম্যান অব দ্য ম্যাচ হয়েছেন, সেখানে টুর্নামেন্টের সেরা হয়েছেন আঠারো বছর বয়সি অফস্পিনার ওয়াশিংটন সুন্দর। যাঁকে নিয়ে রোহিত বলেন, ‘‘পুরো ত্রিদেশীয় সিরিজেই দুর্দান্ত বল করে গেল সুন্দর। নতুন বলে পাওয়ারপ্লে-তে যে কাজটা করা খুবই কঠিন একজন স্পিনারের পক্ষে। শুধু ব্যাটসম্যানকে আটকে রাখাই নয়, সুন্দর কিন্তু উইকেটও নিয়েছে। কোনও দলই পাওয়ারপ্লে-তে ওর বিরুদ্ধে রান করতে পারেনি।’’ 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন