• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

নেমারকে দেখতে পাঁচ দিনের ছুটি চান ব্রুনা

Bruna Marquezine with Neymar
জুটি: বিশ্বকাপের সময় নেমারকে দেখতে রাশিয়া যেতে পারেন ব্রুনা।

Advertisement

বিশ্বকাপের পরেই বান্ধবী ব্রুনা মার্কেজ়িনকে নিয়ে কোনও অজানা গন্তব্যে ছুটি কাটাতে চলে যাবেন নেমার দ্য সিলভা স্যান্টোস জুনিয়র। এক ব্রাজিলীয় সংবাদ মাধ্যমের চলচ্চিত্র প্রতিবেদকের তেমনই দাবি।

চোট অনেকটাই সারিয়ে নেমার এখন ব্রাজিলের বিশ্বকাপ শিবিরে প্রস্তুতিতে ব্যস্ত। ব্যস্ততা কম নয় তাঁর বান্ধবী ব্রুনারও। ব্রাজিলের এই জনপ্রিয় অভিনেত্রী এখন দিন-রাত এক করে  ‘গড সেভ দ্য  কিং’ টেলি সিরিয়ালের শুটিং শেষ করার চেষ্টা করছেন। বিশ্বকাপের সময়ও কিছু দিন  রাশিয়াতে থেকে বন্ধু নেমারকে উৎসাহ দেওয়ার ইচ্ছে তাঁর। কিন্তু শুটিং থেকে ছুটি পাওয়াটা এখনও নিশ্চিত নয় ব্রুনার।

ব্রাজিলের সংবাদ মাধ্যমের খবর, যে কোনও ভাবে হোক ব্রুনা ছুটি নেবেনই বিশ্বকাপের সময়। যে ভাবে তিনি তেরোসোপলিসে নেমারের সঙ্গে দেখা করে এসেছিলেন, এ ক্ষেত্রেও তাই করবেন বলে খবর। যদিও গ্লোবো টিভি এ সব ব্যাপারে খুব কড়া। তাদের বক্তব্য, বিশ্বকাপের সময় ব্রুনা যে চরিত্রে অভিনয় করছেন তার এক টানা অনেক দিন দৃশ্য গ্রহণের ব্যাপার না থাকলেই একমাত্র তাঁকে রাশিয়ায় যাওয়ার জন্য ছাড়া হবে। এ দিকে ব্রুনা ছুটি চান অন্তত পাঁচ দিনের।

রাশিয়ায় বিশ্বকাপের সময় ব্রাজিল থাকবে সোচিতে। যে হোটেলে থাকবে তার নাম ‘সুইসোটেল রেসর্ট সোচি কামেলিয়া’। হোটেলের মোট ঘরের সংখ্যা ২০৩। আর কৃষ্ণসাগরের তীরে অবস্থিত এই জায়গাটি রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনেরও খুব প্রিয়। এবং ভৌগোলিক কারণেই কার্যত সাধারণের ধরাছোঁয়ার বাইরে থাকবেন নেমাররা। এখান থেকেই ব্রাজিল দল ৪০০ কিলোমিটার বিমানযাত্রা করে যাবে ১৬ জুন সুইৎজারল্যান্ডের সঙ্গে তাদের প্রথম ম্যাচ খেলতে। হোটেল থেকে নেমারদের অনুশীলনের মাঠ পাঁচ মিনিটের হাঁটা পথ।

আপাতত দেখার, বিশ্বকাপের সময় নেমারের সঙ্গে এক বারের জন্য হলেও ব্রুনাকে দেখা যায় কি না। রিওতে ছুটি কাটানোর সময়ও ব্রুনা সঙ্গ দিয়েছেন নেমারকে। দু’জনে এক সঙ্গে কেনাকাটাও করেছেন। এক হাতে ওয়াকিং স্টিক নিয়ে শপিং মল-এর চলমান সিঁড়িতে নেমার তাঁর বান্ধবীকে চুম্বন করছেন এমন ছবিও দেখা গিয়েছে সোশ্যাল মিডায়ায়।

এ দিকে, ব্রাজিলীয় সংবাদ মাধ্যমের দাবি, শুটিংয়ের অবসরে ব্রুনা সারাক্ষণ মোবাইল ফোনে কথা বলে যাচ্ছেন। সবাই ধরেই নিচ্ছেন, ফোনের অন্য প্রান্তে নিশ্চিত ভাবেই নেমার থাকছেন। তাঁরা বাধ্য হয়েই ব্রুনাকে বিশ্বকাপের সময় রাশিয়া যাওয়ার অনুমতি দেবেন বলে অনুমান নেমারের দেশের সংবাদ মাধ্যমের। প্রসঙ্গত, মাঝখানে কিছু দিনের জন্য স্বঘোষিত বিচ্ছেদ হলেও নেমার ও ব্রুনা নতুন করে সম্পর্ক গড়ে সবাইকে চমকে দিয়েছেন। তার পর থেকে ছুটি-ছাটা পেলেই দু’জন দু’জনের কাছে ছুটে যান। বিশ্বকাপের সময়ও সম্ভবত তার অন্যথা হবে না।

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন